ঢাকা ১১:২৮ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২১ মে ২০২৪, ৭ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

করোনার টিকা পেতে চীন-বাংলাদেশসহ ছয় দেশের জোটে

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০৯:১৮:২৬ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২২ এপ্রিল ২০২১ ২০৪ বার পড়া হয়েছে
ভয়েস একাত্তর অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকা 

জরুরি প্রয়োজনে টিকা পেতে চীনের উদ্যোগে নতুন প্ল্যাটফর্মে যুক্ত হলো বাংলাদেশ। করোনার টিকা পেতে ছয়টি দেশকে এক কাতারে নিয়ে আসা অন্য দেশগুলো হচ্ছে,  চীন, পাকিস্তান, আফগানিস্তান, নেপাল ও শ্রীলঙ্কা। এই জোটের নাম দেওয়া হয়েছে, ইমার্জেন্সি ভ্যাকসিন স্টোরেজ ফ্যাসিলিটি ফর কোভিড ফর সাউথ এশিয়া।

বিষয়টি সংবাদমাধ্যমকে নিশ্চিত করেছেন, বাংলাদেশের বিদেশন্ত্রী ড. এ কে আবদুল মোমেন। তিনি বলেন, শুরুতেই চীন উপহার হিসেবে বাংলাদেশকে ছয় লাখ ডোজ টিকা উপহার দেবে। এ জন্য একটি সমঝোতা স্মারকটি স্বাক্ষর  হবে তাও চূড়ান্ত।

বৃহস্পতিবার ড. মোমেন সাংবাদিকদের বলেছেন, করোনার টিকার জন্য চীনের সঙ্গে সম্পর্ক করেছেন তারা। সংবাদমাধ্যমকে জানান,  চীন তাদের ছয় লাখ ডোজ টিকা উপহার দেবে। এ বিষয়ে একটি সমঝোতা স্মারক সই হবে। আর খুব শিগগিরই এসব ভ্যাকসিন পাওয়া যাবার আশা করছেন তিনি।

এছাড়া বাংলাদেশ টিকা উৎপাদনে রাশিয়ার সহায়তাও নিচ্ছে জানিয়ে ড. মোমেন বলেন, এ ক্ষেত্রে টিকা তৈরির প্রযুক্তি বাংলাদেশকে দেবে রাশিয়া। এ বিষয়েও সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষরিত হচ্ছে। শর্ত সাপেক্ষে বাংলাদেশকে রাশিয়া টিকা তৈরির প্রযুক্তি দিতে সম্মত হয়েছে। প্রযুক্তিটি অন্য কোথাও দেওয়া যাবে না  এমন শর্ত দেওয়া হয়েছে।

রশিয়ার এই শর্তকে মেনে নিয়েছে বাংলাদেশ। বাংলাদেশের ওষুধ প্রস্তুতকারী কোনো প্রতিষ্ঠানকে প্রযুক্তি দেওয়ার কথা বলছে রাশিয়া। পুরো প্রক্রিয়া সম্পন্ন হতে প্রায় দুই থেকে তিন মাস  সময় লাগতে পারে।

উল্লেখ্য, ত্রিপক্ষীয় চুক্তির আওতায় ভারতের সেরাম ইনস্টিটিউট ৩ কোটি ডোজের মধ্যে ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত ৭০ লাখ ডোজ টিকা  পেয়েছে বাংলাদেশ।  প্রতি মাসে ৫০ লাখ ডোজ টিকা দেওয়ার কথা থাকলেও ফেব্রুয়ারির পর বাংলাদেশের আর কোনো টিকার চালান মেলেনি।

ভারতে করোনা সংক্রমণ সাম্প্রতিক সময়ে মারাত্মক আকার ধারণ করেছে। এ পরিস্থিতিতে বাংলাদেশকে চুক্তি অনুযায়ী সময়মতো টিকা দেওয়া অনিশ্চিত হয়ে পড়েছে।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published.

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

আপলোডকারীর তথ্য
ট্যাগস :

করোনার টিকা পেতে চীন-বাংলাদেশসহ ছয় দেশের জোটে

আপডেট সময় : ০৯:১৮:২৬ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২২ এপ্রিল ২০২১

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকা 

জরুরি প্রয়োজনে টিকা পেতে চীনের উদ্যোগে নতুন প্ল্যাটফর্মে যুক্ত হলো বাংলাদেশ। করোনার টিকা পেতে ছয়টি দেশকে এক কাতারে নিয়ে আসা অন্য দেশগুলো হচ্ছে,  চীন, পাকিস্তান, আফগানিস্তান, নেপাল ও শ্রীলঙ্কা। এই জোটের নাম দেওয়া হয়েছে, ইমার্জেন্সি ভ্যাকসিন স্টোরেজ ফ্যাসিলিটি ফর কোভিড ফর সাউথ এশিয়া।

বিষয়টি সংবাদমাধ্যমকে নিশ্চিত করেছেন, বাংলাদেশের বিদেশন্ত্রী ড. এ কে আবদুল মোমেন। তিনি বলেন, শুরুতেই চীন উপহার হিসেবে বাংলাদেশকে ছয় লাখ ডোজ টিকা উপহার দেবে। এ জন্য একটি সমঝোতা স্মারকটি স্বাক্ষর  হবে তাও চূড়ান্ত।

বৃহস্পতিবার ড. মোমেন সাংবাদিকদের বলেছেন, করোনার টিকার জন্য চীনের সঙ্গে সম্পর্ক করেছেন তারা। সংবাদমাধ্যমকে জানান,  চীন তাদের ছয় লাখ ডোজ টিকা উপহার দেবে। এ বিষয়ে একটি সমঝোতা স্মারক সই হবে। আর খুব শিগগিরই এসব ভ্যাকসিন পাওয়া যাবার আশা করছেন তিনি।

এছাড়া বাংলাদেশ টিকা উৎপাদনে রাশিয়ার সহায়তাও নিচ্ছে জানিয়ে ড. মোমেন বলেন, এ ক্ষেত্রে টিকা তৈরির প্রযুক্তি বাংলাদেশকে দেবে রাশিয়া। এ বিষয়েও সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষরিত হচ্ছে। শর্ত সাপেক্ষে বাংলাদেশকে রাশিয়া টিকা তৈরির প্রযুক্তি দিতে সম্মত হয়েছে। প্রযুক্তিটি অন্য কোথাও দেওয়া যাবে না  এমন শর্ত দেওয়া হয়েছে।

রশিয়ার এই শর্তকে মেনে নিয়েছে বাংলাদেশ। বাংলাদেশের ওষুধ প্রস্তুতকারী কোনো প্রতিষ্ঠানকে প্রযুক্তি দেওয়ার কথা বলছে রাশিয়া। পুরো প্রক্রিয়া সম্পন্ন হতে প্রায় দুই থেকে তিন মাস  সময় লাগতে পারে।

উল্লেখ্য, ত্রিপক্ষীয় চুক্তির আওতায় ভারতের সেরাম ইনস্টিটিউট ৩ কোটি ডোজের মধ্যে ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত ৭০ লাখ ডোজ টিকা  পেয়েছে বাংলাদেশ।  প্রতি মাসে ৫০ লাখ ডোজ টিকা দেওয়ার কথা থাকলেও ফেব্রুয়ারির পর বাংলাদেশের আর কোনো টিকার চালান মেলেনি।

ভারতে করোনা সংক্রমণ সাম্প্রতিক সময়ে মারাত্মক আকার ধারণ করেছে। এ পরিস্থিতিতে বাংলাদেশকে চুক্তি অনুযায়ী সময়মতো টিকা দেওয়া অনিশ্চিত হয়ে পড়েছে।