শুক্রবার, ০৩ ডিসেম্বর ২০২১, ০৪:২০ অপরাহ্ন

সাতশ’ কোটি টাকার বিজ্ঞাপন হারাতো দেশীয় টিভি ক্লিনফিড হওয়ায় সুফল পেতে শুরু করেছে

ভয়েস ডিজিটাল ডেস্ক
  • Update Time : রবিবার, ২১ নভেম্বর, ২০২১
  • ৩১ Time View

ছবি: সংগৃহীত

‘বিদেশিদের নিয়ে বিজ্ঞাপন বানালে সরকারকে দুই লাখ টাকা করে দিতে হবে’

ক্লিনফিড না হওয়ায় পর্যন্ত দেশীয় টেলিভিশন শিল্প পাঁচশ থেকে সাতশ’ কোটি টাকার বিজ্ঞাপন হারাতো। বর্তমানে সেগুলো আসতে শুরু করেছে। অর্থাৎ দেশীয় টিভি চ্যানেলগুলো সুফল পেতে শুরু করেছে।

রবিবার বিশ্ব টেলিভিশন দিবস উপলক্ষে ঢাকার বনানীতে এসোসিয়েশন অব টেলিভিশন চ্যানেল ওনার্স (এটকো) আয়োজিত ‘বাংলাদেশে টেলিভিশন চ্যানেলের বিকাশ’ গোলটেবিল বৈঠকে একথা বলেন, বাংলাদেশের তথ্য ও সম্প্রচারমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ।

এসময় তিনি আরও বলেন, বিদেশি কোন শিল্পীকে নিয়ে বিজ্ঞাপন বানালে শিল্পী প্রতি দুই লাখ সরকারের কোষাগারে টাকা জমা দিতে হবে। তিনি বলেন, মানুষকে ভাবায়, কাঁদায় এমন অনেক বিজ্ঞাপন বাংলাদেশের নির্মাতারাই তৈরি করছেন।

টেলিভিশন শুধু বিনোদন বা সংবাদের জন্যই নয়, টেলিভিশন জীবন, সমাজ ও দেশ গঠনে কাজ করবে, সেটিই হোক বিশ্ব টেলিভিশন দিবসে আমাদের লক্ষ্য বলেন তথ্যমন্ত্রী।

তথ্যমন্ত্রী আরও বলেন, আগে বাংলাদেশে একটি টেলিভিশন ছিলো। আজ একে একে ৩৪টি টেলিভিশন সম্প্রচারে রয়েছে। আরও কয়েকটি আসার প্রস্তুতি নিচ্ছে। ৪৫টির লাইসেন্স দেওয়া হয়েছে। সাংবাদিক, কলাকুশলী ছাড়াও টেলিভিশন শিল্পে সবমিলিয়ে এই শিল্পের সঙ্গে প্রায় লাখ খানেক মানুষ যুক্ত। আরও অনেকেই কন্টেন্ট ও বিজ্ঞাপন বানায় ও বিক্রি করে। প্রায় পাঁচ কোটি বাড়িতে টেলিভিশন রয়েছে।

টেলিভিশনকে মানুষের প্রাত্যহিক জীবনের একটি অংশ বর্ণনা করে ড. হাছান বলেন, অনেকের ঘরে টেলিভিশন না থাকলেও দেখা যায় চায়ের দোকানে বসে টেলিভিশনে নাটক, সিনেমা দেখছে। আমি দৃঢ়ভাবে বিশ্বাস করি মানুষের জীবনের ওপর টেলিভিশনের একটা প্রভাব রয়েছে। পুরো টেলিভিশন শিল্পটা জীবন গঠনে ভূমিকা রাখবে। জীবন, সমাজ, দেশ গঠনে এবং রাষ্ট্রকে লক্ষ্যে পৌঁছানোর জন্য টেলিভিশন কাজ করবে, এটিই বিশ্ব টেলিভিশন দিবসে আমার প্রত্যাশা।

তথ্যমন্ত্রী ড. হাচান মাহমুদ বলেন, বাংলাদেশে সম্প্রচারের জন্য বিদেশি চ্যানেলকে আইন অনুযায়ী ক্লিনফিড পাঠাতে হবে। বাংলাদেশের কেউ কেউ বিদেশি চ্যানেলগুলোর ফিড ক্লিন করার দায়িত্ব নেয়ার চেষ্টা করছে। এর প্রয়োজন আছে বলে তিনি মনে করেন না।

কারণ, আইন অনুযায়ী ক্লিনফিড পাঠানো বিদেশি চ্যানেলগুলোরই দায়িত্ব। তারা নেপাল, শ্রীলংকা, মধ্যপ্রাচ্যের দেশগুলোতে পাঠায়, সেখানে বাজার অনেক ছোট। আর বাংলাদেশে পাঠাবে না, আমরা দায়িত্ব নিয়ে ক্লিনফিড করবো, তার প্রয়োজন নেই।

দেশে টেলিভিশনগুলোর রেটিং বা টিআরপি একটা সংস্থা করতো, অন্যান্য দেশে কিভাবে করা হয়, বিশেষ করে ভারতে কিভাবে করা হয় অনেকগুলো পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে আমরা একটা সিদ্ধান্ত এসেছি এবং খুব সহসা এতে শৃঙ্খলায় নিরয়ে আসা হবে।

হাছান মাহমুদ জানান, সংবাদমাধ্যমকর্মী আইন চূড়ান্ত পর্যায়ে রয়েছে। খুব সহসা এটি জাতীয় সংসদে তোলা হবে। এটি পাশ হলে সম্প্রচার সংবাদমাধ্যমের সঙ্গে সংশ্লিষ্টদের আইনী সুরক্ষা প্রতিষ্ঠা সম্ভব হবে।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category
© All rights reserved © 2017 voiceekattor
কারিগরি সহযোগিতায়: সোহাগ রানা
11223