বুধবার, ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১২:১০ অপরাহ্ন

মন্ত্রীর সঙ্গে অভদ্রতা : রাজ্যসভা থেকে বহিষ্কৃত সাংসদ শান্তনু সেন তৃণমূল

ভয়েস ডিজিটাল ডেস্ক
  • প্রকাশ: শুক্রবার, ২৩ জুলাই, ২০২১
  • ১১৯

ছবি সংগ্রহিত

রাজ্যসভা থেকে সাসপেন্ড হলেন তৃণমূল সাংসদ শান্তনু সেন। জানা গিয়েছে গোটা বাদল অধিবেশনে থাকতে পারবেন না এই তৃণমূল সাংসদ। বৃহস্পতিবারে রাজ্যসভায় তার আচরণের প্রতিবাদে এমনই সিদ্ধান্ত নেওয়ার হয়েছে বলে খবর।

প্রসঙ্গত, পেগাসাস কাণ্ডের জেরে বৃহস্পতিবারের রাজ্যসভার অধিবেশন মুলতুবি করা হয় শুক্রবার পর্যন্ত। এদিন রাজ্যসভায় কেন্দ্রীয় মন্ত্রী হরদীপ পুরির সঙ্গেও বাকবিতন্ডায় জড়িয়ে পড়েন সাংসদ শান্তনু সেন।

শুক্রবার রাজ্যসভার চেয়ারম্যান বেঙ্কাইয়া নায়ডু ‘অগণতান্ত্রিক এবং অসংসদীয়’ আচরণের জন্য শান্তনুকে সাসপেন্ড করার সিদ্ধান্ত নেন।

এদিন সকালে রাজ্যসভার নেতা তথা কেন্দ্রীয় মন্ত্রী পীযূষ গয়াল সাক্ষাৎ করেন বেঙ্কাইয়ার সঙ্গে। বৈঠকে রাজ্যসভায় সরকার পক্ষের সহকারী দলনেতা মুখতার আব্বাস নকভি এবং সংসদ বিষয়ক মন্ত্রী ভি মুরলীধরনও হাজির ছিলেন।

এরপর অধিবেশন শুরু হলে শান্তনুর শাস্তির সিদ্ধান্ত ঘোষণা করেন বেঙ্কাইয়া। তিনি বলেন, অগণতান্ত্রিক এবং অসংসদীয় আচরণের জন্য অভিযুক্ত সাংসদের বিরুদ্ধে এই ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। সূত্রআনন্দবাজার।

বৃহস্পতিবার রাজ্যসভায় কেন্দ্রীয় তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রী অশ্বিনী বৈষ্ণোর হাত থেকে বক্তৃতার কাগজ ছিনিয়ে নিয়েছিলেন শান্তনু। তারপর তা ছিঁড়ে ফেলে ডেপুটি চেয়ারম্যান হরিবংশ নারায়ণ সিংহের আসনের দিকে ছুড়ে দেন। সে সময় পেগাসাস স্পাইওয়্যারের সাহায্যে ফোনে আড়ি পাতার অভিযোগ নিয়ে বক্তৃতা করছিলেন অশ্বিনী। শান্তুনুকে সাসপেন্ডের সিদ্ধান্ত ঘোষণার পরে তৃণমূলের রাজ্যসভার নেতা ডেরেক ও’ব্রায়েন অভিযোগ করেন, বৃহস্পতিবার কাগজ ছেঁড়ার ঘটনার পরে কেন্দ্রীয় মন্ত্রী হরদীপ সিংহ পুরী নিজের আসন ছেড়ে শান্তনুর দিকে তেড়ে গিয়েছিলেন। অসংসদীয় বাক্যও প্রয়োগ করেছিলেন। ডেরেকের প্রশ্ন, ‘‘অন্য অভিযুক্ত (হরদীপ) কেন ছাড় পেলেন?’’ তৃণমূল-সহ বিরোধীদের হট্টগোলের জেরে শুক্রবারও মুলতবি হয় রাজ্য়সভার অধিবেশন।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published.

More News Of This Category
© All rights reserved © 2017 voiceekattor
কারিগরি সহযোগিতায়: সোহাগ রানা
11223