মঙ্গলবার, ০৬ ডিসেম্বর ২০২২, ১০:৩৪ পূর্বাহ্ন

পাকিস্তান সেনাবাহিনীর সমালোচনা করে বরখাস্ত হামিদ মীর

ভয়েস ডিজিটাল ডেস্ক
  • প্রকাশ: মঙ্গলবার, ৮ জুন, ২০২১
  • ৮১

হামিদ মীর পাকিস্তানের শক্তিশালী সামরিক বাহিনীর বিরুদ্ধে কথা বলার ঠিক কয়েকদিন পর সোমবার তাকে টিভি অনুষ্ঠান থেকে সরিয়ে নেওয়া হয়। গত সপ্তাহে ইসলামাবাদে নিজ বাড়িতে পাকিস্তানি সাংবাদিক আসাদ আলী তুরের ওপর হামলার প্রতিবাদে আয়োজিত এক আয়োজনে দেশটির সেনাবাহিনী ও সেনাপ্রধান জেনারেল কামার জাভেদ বাজওয়ার সমালোচনা করেছিলেন হামিদ মির। পাশাপাশি সাংবাদিক হামিদ মীর মিডিয়া সেন্সর করা এবং সাংবাদিকদের নিয়ন্ত্রণ করার অভিযোগ এনেছিলেন। পাকিস্তান সরকার সাংবাদমাধ্যমের স্বাধীনতার কথা অস্বীকার করে এলেও সমালোচকরা বলছেন, পাকিস্তানের সাংবাদিকরা ক্রমশ হুমকির মুখে পড়ছেন।

দেশের বৃহত্তম মিডিয়া গ্রুপ জিও নিউজে পাকিস্তানের সবচেয়ে জনপ্রিয় রাজনৈতিক টকশো, ‘ক্যাপিটাল টক’ শো উপস্থাপনা করেন হামিদ মীর। তিনি বিবিসিকে জানান, কোনো কারণ না জানিয়েই সোমবার তাকে অনুষ্ঠান করতে নিষেধ করা হয়, বলা হয় সাময়িকভাবে তাকে বরখাস্ত করা হয়েছে। সংবাদ সংস্থা রয়টার্স জিও নিউজের নামহীন কর্মকর্তাদের উদ্ধৃতি দিয়ে বিষয়টি নিশ্চিত করেছে যে, চ্যানেলটিকে সামরিক বাহিনীর হয়ে কাজ করার জন্য চাপ দেওয়া হয়েছিল। স্ত্রী ও মেয়েকে হুমকি দেওয়া হয়েছে বলে হামিদ মীর বিবিসিকে জানিয়েছেন। এর আগে সেনাবাহিনীর সমালোচক আরেক সাংবাদিক আসাদ আলী তুরকে অজ্ঞাত পরিচয়ের তিনজন তার বাড়িতে হামলা করেন। অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল হামিদ মীরের বরখাস্তের নিন্দা জানিয়েছে।

কমিটি টু প্রটেক্ট জার্নালিস্টসের স্টিভেন বাটলার পাকিস্তানে সংবাদমাধ্যমের প্রকৃত স্বাধীনতার অভাব রয়েছে বলে মন্তব্য করেন। পাকিস্তানের মানবাধিকার কমিশন মীরের বরখাস্তের তীব্র নিন্দা জানিয়ে বলেছে যে তাকে এখনই কাজে পুনর্বহাল করে তার বিরুদ্ধে হুমকির তদন্ত করা উচিত। বরখাস্তের পরে হামিদ মীর এক টুইটে লিখেছেন, ‘আগে আমি দুবার চাকরি হারিয়েছি। হত্যা চেষ্টার হাত থেকে বেঁচে গেছি।’

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published.

More News Of This Category
© All rights reserved © 2017 voiceekattor
কারিগরি সহযোগিতায়: সোহাগ রানা
11223