ঢাকা ০৯:৪৫ অপরাহ্ন, রবিবার, ২৩ জুন ২০২৪, ৯ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

পদ্মায় বসলো ৩৮তম স্প্যান দৃশ্যমান হলো ৫৭০০ মিটার

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০১:৪৫:২৬ অপরাহ্ন, শনিবার, ২১ নভেম্বর ২০২০ ৪২৩ বার পড়া হয়েছে
ভয়েস একাত্তর অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

ভয়েস রিপোর্ট

মাত্র ৯ দিনের মাথায় পদ্মাসেতুতে বসলো ৩৮তম স্প্যান। শনিবার দুপুরে মাওয়া প্রান্তের ১ ও ২ নম্বর খুঁটির ওপর স্প্যানটি স্থাপন করা হয়। তাতে করে পদ্মাসেতু দৃশ্যমান হলো ৫৭০০ মিটার। ৪১টি স্প্যানের মধ্যে বাকি রয়েছে মাত্র ৩টি। চলতি নভেম্বরেই বসানো হবে আরও ১টি স্প্যান। পদ্মাসেতু কর্তপক্ষ জানিয়েছেন, বিজয় দিবসের আগেই বাকী তিনটি স্প্যান স্থাপনের কাজ সম্পন্ন করা সম্ভব হবে। এদিনের ৩৮তম স্প্যানটি বসানোর পর ৬ দশমিক ১৫ কিলোমিটার দৈর্ঘ্যের দ্বিতল সেতুর বাকি রয়েছে আর মাত্র আধা কিলোমিটার পথেরও কম।

সেতু সংশ্লিষ্ট কাজ এগিয়ে চলছে জোড়কদমে। এখনো পর্যন্ত মূল সেতুর অগ্রগতি ৯০ শতাংশ আর সার্বিক অগ্রগতি ৮২ শতাংশ। এরই মধ্যে ১ হাজার ২১১টি রোডওয়ে স্লাব ও ১ হাজার ৮০০ রেলওয়ে স্লাব বসানোর কাজ সম্পন্ন হবার কথা জানালেন সেতু কর্তৃপক্ষ। সংযোগ সেতু এবং নদী শাসনের কাজও দ্রুত এগুচ্ছে। ২০১৪ সালের ডিসেম্বরে শুরু হওয়া পদ্মাসেতুর দুয়ার খুলে দেয়া হবে ২০২১ সালে।

পদ্মা সেতুর নির্বাহী প্রকৌশলী দেওয়ান মো. আব্দুল কাদের সংবাদমাধ্যমকে বলেছেন, এদিন কুমারভোগের কন্সট্রাকশন ইয়ার্ড থেকে স্প্যানটি ভাসমান জাহাজে ‘১-এ’ নাম্বর খুঁটির কাছে স্প্যানটি পৌঁছে দেওয়ার পর শুরু হয় বসানোর প্রক্রিয়া। এ্যাংকরিংসহ অন্যান্য অনুষঙ্গিক কাজ শেষে দুপুর ২টা ৩৫ মিনিটে স্প্যানটি স্থাপন সম্পন্ন হয়। এর আগে ১২ নভেম্বর মাওয়া প্রান্তের ৯ ও ১০ নম্বর খুঁটিতে ৩৭তম স্প্যানটি স্থাপন করা হয়। এই প্রকৌশলী আরও বলেন, সেতুর ৪২টি খুঁটির ওপর ৪১টি স্প্যান বসানো হবে। এর মধ্যে ৩৮তম স্প্যান বসানোর কাজ সম্পন্ন করেছেন তারা। তাতে করে সেতুর দৃশ্যমান হল ৫৭০০ মিটার।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published.

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

আপলোডকারীর তথ্য
ট্যাগস :

পদ্মায় বসলো ৩৮তম স্প্যান দৃশ্যমান হলো ৫৭০০ মিটার

আপডেট সময় : ০১:৪৫:২৬ অপরাহ্ন, শনিবার, ২১ নভেম্বর ২০২০

ভয়েস রিপোর্ট

মাত্র ৯ দিনের মাথায় পদ্মাসেতুতে বসলো ৩৮তম স্প্যান। শনিবার দুপুরে মাওয়া প্রান্তের ১ ও ২ নম্বর খুঁটির ওপর স্প্যানটি স্থাপন করা হয়। তাতে করে পদ্মাসেতু দৃশ্যমান হলো ৫৭০০ মিটার। ৪১টি স্প্যানের মধ্যে বাকি রয়েছে মাত্র ৩টি। চলতি নভেম্বরেই বসানো হবে আরও ১টি স্প্যান। পদ্মাসেতু কর্তপক্ষ জানিয়েছেন, বিজয় দিবসের আগেই বাকী তিনটি স্প্যান স্থাপনের কাজ সম্পন্ন করা সম্ভব হবে। এদিনের ৩৮তম স্প্যানটি বসানোর পর ৬ দশমিক ১৫ কিলোমিটার দৈর্ঘ্যের দ্বিতল সেতুর বাকি রয়েছে আর মাত্র আধা কিলোমিটার পথেরও কম।

সেতু সংশ্লিষ্ট কাজ এগিয়ে চলছে জোড়কদমে। এখনো পর্যন্ত মূল সেতুর অগ্রগতি ৯০ শতাংশ আর সার্বিক অগ্রগতি ৮২ শতাংশ। এরই মধ্যে ১ হাজার ২১১টি রোডওয়ে স্লাব ও ১ হাজার ৮০০ রেলওয়ে স্লাব বসানোর কাজ সম্পন্ন হবার কথা জানালেন সেতু কর্তৃপক্ষ। সংযোগ সেতু এবং নদী শাসনের কাজও দ্রুত এগুচ্ছে। ২০১৪ সালের ডিসেম্বরে শুরু হওয়া পদ্মাসেতুর দুয়ার খুলে দেয়া হবে ২০২১ সালে।

পদ্মা সেতুর নির্বাহী প্রকৌশলী দেওয়ান মো. আব্দুল কাদের সংবাদমাধ্যমকে বলেছেন, এদিন কুমারভোগের কন্সট্রাকশন ইয়ার্ড থেকে স্প্যানটি ভাসমান জাহাজে ‘১-এ’ নাম্বর খুঁটির কাছে স্প্যানটি পৌঁছে দেওয়ার পর শুরু হয় বসানোর প্রক্রিয়া। এ্যাংকরিংসহ অন্যান্য অনুষঙ্গিক কাজ শেষে দুপুর ২টা ৩৫ মিনিটে স্প্যানটি স্থাপন সম্পন্ন হয়। এর আগে ১২ নভেম্বর মাওয়া প্রান্তের ৯ ও ১০ নম্বর খুঁটিতে ৩৭তম স্প্যানটি স্থাপন করা হয়। এই প্রকৌশলী আরও বলেন, সেতুর ৪২টি খুঁটির ওপর ৪১টি স্প্যান বসানো হবে। এর মধ্যে ৩৮তম স্প্যান বসানোর কাজ সম্পন্ন করেছেন তারা। তাতে করে সেতুর দৃশ্যমান হল ৫৭০০ মিটার।