বুধবার, ০৮ ডিসেম্বর ২০২১, ০৯:৪০ অপরাহ্ন

করোনা দুনিয়ায় ফের সুপার সাইক্লোন!

ভয়েস রিপোর্ট
  • Update Time : বৃহস্পতিবার, ২০ মে, ২০২১
  • ৫০ Time View

গত বছর ২১ মে তাণ্ডব চালিয়েছিল আম্ফান। তার বছর ঘুরতেই ফের বিধ্বংসী, ভয়ংকর শক্তিধর সুপার সাইক্লোন উত্তর-পশ্চিম বঙ্গোপসাগর পেরিয়ে বুধবার নাগাদ আঘাত হানতে পারে সুন্দরবনসহ উপকূলভাগে। ওমানের আবহায়া বিজ্ঞানিরা যার নাম দিয়েছেন ‘যশ’।

মানুষ আসহায় কাতর। দিন দিন তাদের ধৈর্যের মাত্রা কমে যাচ্ছে। ঘরে বাইরে সমাল তালে হতাশার চাদরে ডাকা। নতুন দিনের সূর্যটাও আলো দিতে ভুলে গেছে। অক্সিজেন নেইম টিকা অপ্রতুলতা, হাসপাতালে খা খা শয্যা আজ অতীত। মানুষে মানুষে সাহায্যের মাত্রাও তমে গিয়েছে। মানুষ দিনকে দিন যারপর নাই মানুষিক যন্ত্রণাকে সঙ্গী করেই দিন গুণছেন।

কিন্তু এমন সময়েই তাওকতে আঘাত হানলো ভারতের গুজরাতসহ কয়েকটি রাজ্যে। মৃত্রের সখ্যাও নেহায়েত কম নয়। নিখোঁজ ব্যক্তিদের অনেককেরই সাগর থেকে ভাসমান মৃতদেহ উদ্ধার করেছে।

আবহাওয়া বিজ্ঞানিরা বলছেন, অব্যাহত তাপপ্রবাহের কারণে উত্তপ্ত হয়ে উঠেছে বঙ্গোপসাগরের পৃষ্ঠদেশ। ঘূর্ণাবর্তের সঙ্গে সঞ্চারিত হচ্ছে ঘন মেঘমালার। সুপার সাইক্লোন আম্ফানের ঠিক এক বছরের মাথায় আগামী রবিবার পূর্ব-মধ্য বঙ্গোপসাগরে আরো একটি সুপার সাইক্লোন সৃষ্টির আভাস দিয়েছেন আবহাওয়াবিদরা।

গত বছর ২১ মে তাণ্ডব চালিয়েছিল আম্ফান। তার বছর ঘুরতেই ফের বিধ্বংসী, ভয়ংকর শক্তিধর সুপার সাইক্লোন উত্তর-পশ্চিম বঙ্গোপসাগর পেরিয়ে বুধবার নাগাদ আঘাত হানতে পারে সুন্দরবনসহ উপকূলভাগে। ওমানের আবহায়া বিজ্ঞানিরা যার নাম দিয়েছেন ‘যশ’।

স্যাটেলাইট পর্যবেক্ষণ করে উইন্ডি ডটকম ও আবহাওয়াবিদরা বলছেন, আগামী ২২ মে শনিবার ঘূর্ণাবর্তটি তৈরি হতে পারে মধ্য বঙ্গোপসাগরে। আন্দামানের কাছে পূর্ব-মধ্য বঙ্গোপসাগরে রবিবার এটি নিম্নচাপে পরিণত হতে পারে। ক্রমশ এই নিম্নচাপ ঘূর্ণিঝড়ে রূপ নিতে পারে। ২৩ মে পরবর্তী নিম্নচাপ অক্ষরেখার গতিবিধি বুঝে এই ঘূর্ণিঝড়ের দিক সম্পর্কে আরও বিশদ জানাতে পারবেন আবহাওয়া বিজ্ঞানিরা।

প্রথমে উত্তর-পশ্চিম বঙ্গোপসাগরে অভিমুখ থাকলেও পরে এর অভিমুখ পরিবর্তন হতে পারে। বুধবার পর্যন্ত এর অভিমুখ ছিল পশ্চিমবঙ্গ-ওড়িশা-সুন্দরবন উপকূল এলাকাতেই আছড়ে পড়ার প্রবল আশঙ্কা!

‘যশ’ সম্পর্কে বাংলাদেশের আবহাওয়াবিদরা বলছেন, আগামী তিন-চার দিনের মধ্যে বঙ্গোপসাগরে একটি লঘুচাপ সৃষ্টির আশঙ্কা রয়েছে। পশ্চিমবঙ্গের আলিপুর আবহাওয়া অফিস ধারণা করছে, এই ঘূর্ণিঝড়ের অভিমুখ থাকতে পারে সুন্দরবনের দিকে। তারপর অভিমুখ পরিবর্তন করে বাংলাদেশের দিকে যেতে পারে।

বাতাস ও ঘূর্ণিঝড়ের তথ্য প্রদানকারী ওয়েবসাইট উইন্ডি ডটকমের অবশ্য বলছে, ২৩ মে দুপুরে বঙ্গোপসাগরে দৃশ্যমান হতে পারে ঘূর্ণিঝড় ‘যশ’। যা ধীরে ধীরে দেশের দক্ষিণ-পশ্চিম দিকে এগিয়ে আসবে। ২৬ মে দুপুরে ঘূর্ণিঝড়টি ভারতের বালাসোর ও হলদিবাড়িতে আঘাত হানতে পারে।

আর বিকাল থেকে রাতের মধ্যে বাংলাদেশের পটুয়াখালী জেলার কলাপাড়া, কুয়াকাটা, সুন্দরবন অংশে আঘাত হানতে পারে। ঘূর্ণিঝড়টির সম্ভাব্য গতিপথ ধরা হয়েছে, বালাসোর থেকে দক্ষিণ-পশ্চিম দিকে।

আর আলিপুর আবহাওয়া অধিদপ্তর সূত্রের খবর, এক সঙ্গে দুটি নিম্নচাপ ঘনীভূত হচ্ছে, একটি বঙ্গোপসাগরে, আরেকটি আরব সাগরে। দেশটির আবহাওয়াবিদদের আশঙ্কা, ঘূর্ণিঝড়টি গত বছরের আম্ফানের মতো সুপার সাইক্লোনে পরিণত হতে পারে।

আছড়ে পড়তে পারে ভয়ংকর রূপ নিয়ে। আপাতত ঘূর্ণিঝড়টির গতিবিধির দিকে খেয়াল রাখছেন আবহাওয়া বিজ্ঞানিরা।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category
© All rights reserved © 2017 voiceekattor
কারিগরি সহযোগিতায়: সোহাগ রানা
11223