ঢাকা ০৯:১৭ অপরাহ্ন, রবিবার, ২৩ জুন ২০২৪, ৯ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

সকল আয়োজন সম্পন্ন, রাত পোহালেই শারদ উৎসব

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০৮:২৯:৪৯ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৯ অক্টোবর ২০২৩ ১২২ বার পড়া হয়েছে

বাগেরহাট শিকদার বাড়ির প্রতিমা

ভয়েস একাত্তর অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

নিজস্ব প্রতিনিধি, ঢাকা

সময় এখন শারদ উৎসব বন্দনার। ১৪ অক্টোবর মহালয়া দিন থেকে সনাতন ধর্মাবলম্বীদের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব

শারদীয় দুর্গাপূজার আগমনধ্বনি বেজে উঠেছে। ২০ অক্টোবর মহাষষ্ঠী দিয়ে শুরু হবে পূজার আনুষ্ঠানিকতা। পরদিন

মহাসপ্তমী। ২৪ অক্টোবর দশমীতে প্রতিমা বিসর্জনের মাধ্যমে শেষ হবে শারদ উৎসব। ইতোমধ্যে বাংলাদেশে পূজার

সব প্রস্তুতি সম্পন্ন হয়েছে।

চলছে দেবীকে সাজানোর কাজ। এবছর প্রায় ৩৩ হাজারের মত পূজা উদযাপন হবে বাংলাদেশে। দেশজুড়ে মণ্ডপে

সাজ সাজ রব। মণ্ডপগুলোর নিরাপত্তা নিশ্চিত করার কাজ সেরেছে নিচ্ছেন জেলা প্রশাসন। নেওয়া হয়েছে কঠোর

নিরাপত্তা ব্যবস্থা। পূজা উদযাপন কমিটির সঙ্গে বৈঠক করেছে পুলিশ।

ঢাকার ঐতিহাসিক রমনা কালিমন্দির ও মা আনন্দময়ী আশ্রম প্রাঙ্গণে পা রাখতেই দেখা গেলো প্রতিমা সাজাতে ব্যস্ত

সংশ্লিষ্টরা। বিশাল এলাকাজুড়ে সাজসজ্জা ও আলোকসজ্জার কাজ চলছে। ঐতিহ্যবাহী পোশাক আর গহনায় সাজানো

হয়েছে প্রতিমা। দেবী দুর্গার সঙ্গে সাজিয়ে তোলা হয়েছে কার্তিক, গণেশ, লক্ষ্মী আর সরস্বতীকেও। উৎসবের আমেজ

ছোট-বড় সবার মাঝে। এখন অপেক্ষা উৎসবের।

পঞ্জিকা মতে, এ বছর দেবী দুর্গার আগম ঘোড়ায় চড়ে এবং বিদায়ও নেবেন ঘোড়ায়। আশ্বিন মাসের শুক্ল পক্ষটিকে

বলা হয় দেবীপক্ষ। দেবীপক্ষের সূচনার অমাবস্যাটির নাম মহালয়া। সাধারণত শুক্ল পক্ষের ষষ্ঠ থেকে দশম দিন

পর্যন্ত দুর্গাপূজা অনুষ্ঠিত হয়।

এই পাঁচ দিন যথাক্রমে মহাষষ্ঠী, মহাসপ্তমী, মহাঅষ্টমী, মহানবমী ও বিজয়া দশমী নামে পরিচিত। ২০ অক্টোবর

শুক্রবার শুভ বিল্বষষ্ঠীর মধ্য দিয়ে পাঁচ দিনব্যাপী শারদীয় দুর্গাপূজার আনুষ্ঠানিকতা শুরু হবে।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published.

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

আপলোডকারীর তথ্য
ট্যাগস :

সকল আয়োজন সম্পন্ন, রাত পোহালেই শারদ উৎসব

আপডেট সময় : ০৮:২৯:৪৯ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৯ অক্টোবর ২০২৩

নিজস্ব প্রতিনিধি, ঢাকা

সময় এখন শারদ উৎসব বন্দনার। ১৪ অক্টোবর মহালয়া দিন থেকে সনাতন ধর্মাবলম্বীদের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব

শারদীয় দুর্গাপূজার আগমনধ্বনি বেজে উঠেছে। ২০ অক্টোবর মহাষষ্ঠী দিয়ে শুরু হবে পূজার আনুষ্ঠানিকতা। পরদিন

মহাসপ্তমী। ২৪ অক্টোবর দশমীতে প্রতিমা বিসর্জনের মাধ্যমে শেষ হবে শারদ উৎসব। ইতোমধ্যে বাংলাদেশে পূজার

সব প্রস্তুতি সম্পন্ন হয়েছে।

চলছে দেবীকে সাজানোর কাজ। এবছর প্রায় ৩৩ হাজারের মত পূজা উদযাপন হবে বাংলাদেশে। দেশজুড়ে মণ্ডপে

সাজ সাজ রব। মণ্ডপগুলোর নিরাপত্তা নিশ্চিত করার কাজ সেরেছে নিচ্ছেন জেলা প্রশাসন। নেওয়া হয়েছে কঠোর

নিরাপত্তা ব্যবস্থা। পূজা উদযাপন কমিটির সঙ্গে বৈঠক করেছে পুলিশ।

ঢাকার ঐতিহাসিক রমনা কালিমন্দির ও মা আনন্দময়ী আশ্রম প্রাঙ্গণে পা রাখতেই দেখা গেলো প্রতিমা সাজাতে ব্যস্ত

সংশ্লিষ্টরা। বিশাল এলাকাজুড়ে সাজসজ্জা ও আলোকসজ্জার কাজ চলছে। ঐতিহ্যবাহী পোশাক আর গহনায় সাজানো

হয়েছে প্রতিমা। দেবী দুর্গার সঙ্গে সাজিয়ে তোলা হয়েছে কার্তিক, গণেশ, লক্ষ্মী আর সরস্বতীকেও। উৎসবের আমেজ

ছোট-বড় সবার মাঝে। এখন অপেক্ষা উৎসবের।

পঞ্জিকা মতে, এ বছর দেবী দুর্গার আগম ঘোড়ায় চড়ে এবং বিদায়ও নেবেন ঘোড়ায়। আশ্বিন মাসের শুক্ল পক্ষটিকে

বলা হয় দেবীপক্ষ। দেবীপক্ষের সূচনার অমাবস্যাটির নাম মহালয়া। সাধারণত শুক্ল পক্ষের ষষ্ঠ থেকে দশম দিন

পর্যন্ত দুর্গাপূজা অনুষ্ঠিত হয়।

এই পাঁচ দিন যথাক্রমে মহাষষ্ঠী, মহাসপ্তমী, মহাঅষ্টমী, মহানবমী ও বিজয়া দশমী নামে পরিচিত। ২০ অক্টোবর

শুক্রবার শুভ বিল্বষষ্ঠীর মধ্য দিয়ে পাঁচ দিনব্যাপী শারদীয় দুর্গাপূজার আনুষ্ঠানিকতা শুরু হবে।