ঢাকা ০৬:২৮ অপরাহ্ন, শনিবার, ২০ এপ্রিল ২০২৪, ৭ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ঝর্না রহমানের কবিতা নিবেদন হৃদয়কুসুম

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০৫:১১:১১ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৪ ডিসেম্বর ২০২৩ ৮৪ বার পড়া হয়েছে

রায়েরবাজার বধ্যভূমিতে

ভয়েস একাত্তর অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

 

ঝর্না রহমান

এখানে ফুটে আছে অজস্র মেধা ফুল, এ বাগান প্রতিদিন হয়ে ওঠে উজ্জ্বলতর।
এখান থেকেই ডেকে ওঠে ভোরের দোয়েল পাখি।

ওদের শিস থেকে বেরিয়ে আসে অনিন্দ্য সুন্দর জ্ঞানময় স্তোত্রমালা,
যে বাণীগুলো এইখানে এই পুণ্যভূমিতে স্থিরতায় লিপিবদ্ধ আছে।

এখানে ভোরের আলোকরশ্মিগুলো কোমলতায় নুয়ে পড়ে। যেন ঝরে মিহি মসলিন,
যেন বোনে অলৌকিক কোনো জামা, যেন ঢেকে দেবে বাংলাদেশের খুবলে নেয়া বুক।
এখানে বারুদের গন্ধ ছাপিয়ে আসে সারি সারি শ্রেষ্ঠ হৃদয় থেকে উৎসারিত মনীষার সৌরভ,
এখানে রচিত হয়েছে শুদ্ধ চেতনার বেদি,

যার প্রতিটি ইট ধৌত করা হয়েছে চোখবাঁধা ত্রিকালদর্শী মনীষীদের মহান রক্তধারা দিয়ে।
এখানে কেউ কথা বোলো না,
এখানে পা ফেলো ধীরে ধীরে, নতমুখে,

এখানে তোমার নিঃশ্বাগুলো সেইসব মাবাবা ভাইবোন স্ত্রী বা সন্তানদের কাছে পাঠিয়ে দাও
যারা অনন্তকাল উত্তরের খোলা জানালায় মাথা রেখে জেগে আছে।

তোমার অশ্রুবিন্দুগুলো আলতোভাবে রেখে দাও কুয়াশাভেজা রুমালের সুতোর ভাঁজে।
এইখানে সাবধানে নিবেদন কর তোমার হৃদয়কুসুম। যাতে তোমার আঙুল প্রতিটি হৃৎস্পন্দন টের পায়।

১৪ ডিসেম্বর ২০২৩
রায়েরবাজার বধ্যভূমিতে রচিত এবং পঠিত

ঝর্না রহমানের ফেস বুক থেকে
ঝর্না রহমান
ঝর্না রহমান

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published.

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

আপলোডকারীর তথ্য
ট্যাগস :

ঝর্না রহমানের কবিতা নিবেদন হৃদয়কুসুম

আপডেট সময় : ০৫:১১:১১ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৪ ডিসেম্বর ২০২৩

 

ঝর্না রহমান

এখানে ফুটে আছে অজস্র মেধা ফুল, এ বাগান প্রতিদিন হয়ে ওঠে উজ্জ্বলতর।
এখান থেকেই ডেকে ওঠে ভোরের দোয়েল পাখি।

ওদের শিস থেকে বেরিয়ে আসে অনিন্দ্য সুন্দর জ্ঞানময় স্তোত্রমালা,
যে বাণীগুলো এইখানে এই পুণ্যভূমিতে স্থিরতায় লিপিবদ্ধ আছে।

এখানে ভোরের আলোকরশ্মিগুলো কোমলতায় নুয়ে পড়ে। যেন ঝরে মিহি মসলিন,
যেন বোনে অলৌকিক কোনো জামা, যেন ঢেকে দেবে বাংলাদেশের খুবলে নেয়া বুক।
এখানে বারুদের গন্ধ ছাপিয়ে আসে সারি সারি শ্রেষ্ঠ হৃদয় থেকে উৎসারিত মনীষার সৌরভ,
এখানে রচিত হয়েছে শুদ্ধ চেতনার বেদি,

যার প্রতিটি ইট ধৌত করা হয়েছে চোখবাঁধা ত্রিকালদর্শী মনীষীদের মহান রক্তধারা দিয়ে।
এখানে কেউ কথা বোলো না,
এখানে পা ফেলো ধীরে ধীরে, নতমুখে,

এখানে তোমার নিঃশ্বাগুলো সেইসব মাবাবা ভাইবোন স্ত্রী বা সন্তানদের কাছে পাঠিয়ে দাও
যারা অনন্তকাল উত্তরের খোলা জানালায় মাথা রেখে জেগে আছে।

তোমার অশ্রুবিন্দুগুলো আলতোভাবে রেখে দাও কুয়াশাভেজা রুমালের সুতোর ভাঁজে।
এইখানে সাবধানে নিবেদন কর তোমার হৃদয়কুসুম। যাতে তোমার আঙুল প্রতিটি হৃৎস্পন্দন টের পায়।

১৪ ডিসেম্বর ২০২৩
রায়েরবাজার বধ্যভূমিতে রচিত এবং পঠিত

ঝর্না রহমানের ফেস বুক থেকে
ঝর্না রহমান
ঝর্না রহমান