ঢাকা ১১:১৭ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২১ মে ২০২৪, ৭ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

শুধু ভারতের ভ্যাকসিনের আশায় বসে থাকিনি: স্বাস্থ্যমন্ত্রী

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০৫:৩৪:৪১ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৭ এপ্রিল ২০২১ ৮৬ বার পড়া হয়েছে
ভয়েস একাত্তর অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

ভয়েস ডিজিটাল ডেস্ক

স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক বলেছেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ভারতের প্রধানমন্ত্রীকে বারবার অনুরোধ জানিয়েছেন ভ্যাকসিনের জন্য। আশা করছি, হয়তো আমরা তাড়াতাড়ি পাবো। কিন্তু কখন পাবো সেই সঠিক সময়টি আমরা জানতে পারিনি। হয়তো আগামী অল্পদিনের মধ্যে জানতে পারবো। কিন্তু শুধু ভারতের ভ্যাকসিনের জন্য বসে থাকিনি। চীন, রাশিয়ার সঙ্গে যোগাযোগ করেছি এবং সেটা বেশ এগিয়েছে।

জাহিদ মালেক বলেন, আমরা গত বছরের মে মাস থেকে ভ্যাকসিন নিয়ে কাজ করছি। যার কারণে অনেক দেশের আগেই ভ্যাকসিন কার্যক্রম শুরু করতে পেরেছে বাংলাদেশ। আমরা ৩ কোটি ডোজ অর্ডার দিয়েছিলাম এবং টাকাও দিয়েছি। কিন্তু আফসোসের বিষয়, ভ্যাকসিনগুলো সময়মতো পাচ্ছি না।

মঙ্গলবার বাংলাদেশ কলেজ অব ফিজিশিয়ানস অ্যান্ড সার্জনস (বিসিপিএস) প্রাঙ্গণে সাংবাদিক বৈঠকে এসব কথা বলেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী।

ভ্যাকসিন কার্যক্রম ব্যাহত হচ্ছে উল্লেখ করে স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, আমরা চেষ্টা করে যাচ্ছি এবং বেক্সিমকো চেষ্টা করে যাচ্ছে বিদেশমন্ত্রকের মাধ্যমে। স্বাস্থ্যমন্ত্রী মনে করেন, চীন-রাশিয়া থেকেও ভ্যাকসিন আগামীতে আনতে পারবো। চীন আমাদের উপহার হিসেবে ৫ লাখ ডোজ টিকা দেবার প্রতিশ্রুতি দিয়েছে।

তিনি আরও বলেন, ভ্যাকসিন নিয়ে পৃথিবীতে একটা টানাপড়েন চলছে। কারণ ভ্যাকসিন উৎপাদন কম। ১০ ধনী রাষ্ট্র ৭০ শতাংশ ভ্যাকসিন নিয়ে গেছে। অনেক রাষ্ট্র রয়েছে, যরা এখনও পর্যন্ত টিকা নিতে পারেননি। আমাদের আশেপাশের দেশেও ভ্যাকসিন কার্যক্রম শুরু হয়নি। কিছু দেশে অল্প অল্প শুরু হয়েছে, কিন্তু আমাদের মতো ব্যাপকভাবে তারাও দিতে পারেনি।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published.

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

আপলোডকারীর তথ্য
ট্যাগস :

শুধু ভারতের ভ্যাকসিনের আশায় বসে থাকিনি: স্বাস্থ্যমন্ত্রী

আপডেট সময় : ০৫:৩৪:৪১ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৭ এপ্রিল ২০২১

ভয়েস ডিজিটাল ডেস্ক

স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক বলেছেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ভারতের প্রধানমন্ত্রীকে বারবার অনুরোধ জানিয়েছেন ভ্যাকসিনের জন্য। আশা করছি, হয়তো আমরা তাড়াতাড়ি পাবো। কিন্তু কখন পাবো সেই সঠিক সময়টি আমরা জানতে পারিনি। হয়তো আগামী অল্পদিনের মধ্যে জানতে পারবো। কিন্তু শুধু ভারতের ভ্যাকসিনের জন্য বসে থাকিনি। চীন, রাশিয়ার সঙ্গে যোগাযোগ করেছি এবং সেটা বেশ এগিয়েছে।

জাহিদ মালেক বলেন, আমরা গত বছরের মে মাস থেকে ভ্যাকসিন নিয়ে কাজ করছি। যার কারণে অনেক দেশের আগেই ভ্যাকসিন কার্যক্রম শুরু করতে পেরেছে বাংলাদেশ। আমরা ৩ কোটি ডোজ অর্ডার দিয়েছিলাম এবং টাকাও দিয়েছি। কিন্তু আফসোসের বিষয়, ভ্যাকসিনগুলো সময়মতো পাচ্ছি না।

মঙ্গলবার বাংলাদেশ কলেজ অব ফিজিশিয়ানস অ্যান্ড সার্জনস (বিসিপিএস) প্রাঙ্গণে সাংবাদিক বৈঠকে এসব কথা বলেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী।

ভ্যাকসিন কার্যক্রম ব্যাহত হচ্ছে উল্লেখ করে স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, আমরা চেষ্টা করে যাচ্ছি এবং বেক্সিমকো চেষ্টা করে যাচ্ছে বিদেশমন্ত্রকের মাধ্যমে। স্বাস্থ্যমন্ত্রী মনে করেন, চীন-রাশিয়া থেকেও ভ্যাকসিন আগামীতে আনতে পারবো। চীন আমাদের উপহার হিসেবে ৫ লাখ ডোজ টিকা দেবার প্রতিশ্রুতি দিয়েছে।

তিনি আরও বলেন, ভ্যাকসিন নিয়ে পৃথিবীতে একটা টানাপড়েন চলছে। কারণ ভ্যাকসিন উৎপাদন কম। ১০ ধনী রাষ্ট্র ৭০ শতাংশ ভ্যাকসিন নিয়ে গেছে। অনেক রাষ্ট্র রয়েছে, যরা এখনও পর্যন্ত টিকা নিতে পারেননি। আমাদের আশেপাশের দেশেও ভ্যাকসিন কার্যক্রম শুরু হয়নি। কিছু দেশে অল্প অল্প শুরু হয়েছে, কিন্তু আমাদের মতো ব্যাপকভাবে তারাও দিতে পারেনি।