ঢাকা ০৮:১৬ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ২৪ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১২ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

Rabindra Sangeet Festival : শুক্রবার শুরু হচ্ছে দু’দিনের জাতীয় রবীন্দ্রসঙ্গীত উৎসব

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০৭:৪৩:২৭ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৪ নভেম্বর ২০২২ ৭২ বার পড়া হয়েছে
ভয়েস একাত্তর অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

জাতীয় রবীন্দ্র সঙ্গীত উৎসব উপলক্ষে সাংবাদিক সম্মেলন

নিজস্ব প্রতিনিধি, ঢাকা

‘এই জীবনে ব্যথা যত এইখানে সব হবে গত’ কবিগুরুর এই অমিয়বাণী ধারণ করে ঢাকায় শুরু হচ্ছে ৩৪তম জাতীয় রবীন্দ্রসঙ্গীত উৎসব। উৎসবে নবীন-প্রবীণ শিল্পীরা অংম নেবেন। শুক্রবার উৎসবের উদ্বোধন ও গুণীজন সম্মাননা দেবেন সংস্কৃতিবিষয়ক মন্ত্রকের প্রতিমন্ত্রী কে এম খালিদ এমপি।

ধারাবাহিকতার ৩৪ বছর। শুরুটা সেই ১৯৮৮ সালে। রবীন্দ্রসঙ্গীতের বিকাশে কাজ করে চলেছে বাংলাদেশ রবীন্দ্রসঙ্গীত শিল্পী সংস্থা। অতিমারি ঘিরে ধরায় বছর তিনেক পর মঞ্চে ফিরলো প্রাণের উৎসব। বাংলা ভাষার দিগপাল বিশ্বকবি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর। এবার উৎসবের আয়োজন স্থান আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা ইনস্টিটিউট মিলনায়তন। স্নিগ্ধ পরিবেশে স্রোতা এবং উৎসব দুয়ে মিলে বেশ কেটে যাবে।

আয়োজনকে সামনে রেখে সাংবাদিক বৈঠকে জানানো হয়, প্রায় বছর তিনেক স্থগিতের পর ফের এই উৎসবের বর্ণাঢ্য আয়োজন।

৩৪ বছরে রবীন্দ্র সঙ্গীতশিল্পী সংস্থা বহু শিল্পী তৈরির দায়িত্ব পালন করেছে। প্রতি বছরই নতুন নতুন শিল্পীদের সুযোগ দেওয়া হচ্ছে। এমন তথ্যই জানালেন সভাপতি তপন মাহমুদ।

এবারের উৎসবের সারা দেশ থেকে প্রায় ২০০ জন শিল্পী একক ও দলীয় পরিবেশনায় অংশ নেবেন। তার পরও বহু শিল্পীকেই এবারে সুযোগ দেওয়া সম্ভব হচ্ছে না। জানালেন, রবীন্দ্রসঙ্গীত শিল্পী সংস্থার সাধারণ সম্পাদক ও কণ্ঠশিল্পী পীযূষ বড়ুয়া।

বিশ্বের বাঙালিকে রবীন্দ্রনাথ সাহিত্যের যে ভাণ্ডার দিয়ে গেছেন, তা তুলনাহীন। তার সাহিত্য এবং গানের মাধ্যমে বাঙালি জাতিকে সমৃদ্ধ করেছেন। কবিভাষায় সাহিত্যের চেয়ে গানেই তিনি বেচে থাকবেন।

এবারে উৎসবে গুণীজন সম্মাননা পাচ্ছেন স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্রের দুই শব্দ সৈনিক বরেণ্য বাচিকশিল্পী আশরাফুল আলম এবং বরেণ্য কণ্ঠশিল্পী রফিকুল আলম। করোনাকালে যেসব শিল্পী, সাহিত্যিক, সাংবাদিক, কবি ও সংস্কৃতজন প।রয়াত হয়েছেন, তাদের স্মৃতির প্রতি শ্রদ্ধা জানাতে এবারের উৎসবটি উৎসর্গ করা হয়েছে।

এসময় উপস্থিত ছিলেন, বাংলাদেশ রবীন্দ্রসঙ্গীত শিল্পী সংস্থার আমিনা আহমেদ, সহসভাপতি খন্দকার খায়রুজ্জামান কাইয়ুম, বুলা মাহমুদ, কাজল মুখার্জী, জ্যেষ্ঠ যুগ্ম সম্পাদক (সাধারণ) তানজিমা তমা, জ্যেষ্ঠ যুগ্ম সম্পাদক (পরিকল্পনা) সাগরিকা জামালী, অর্থ সম্পাদক কনক খান, দফতর সম্পাদক সীমা সরকার, সাংগঠনিক সম্পাদক রিফাত জামাল মিতু এবং নির্বাহী সম্পাদক শর্মিলা চক্রবর্তী, আহমেদ শাকিল হাসমী, সাজ্জাদ হোসেন, জাফর আহমেদ ও রাবিতা সাবাহ প্রমুখ।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published.

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

আপলোডকারীর তথ্য
ট্যাগস :

Rabindra Sangeet Festival : শুক্রবার শুরু হচ্ছে দু’দিনের জাতীয় রবীন্দ্রসঙ্গীত উৎসব

আপডেট সময় : ০৭:৪৩:২৭ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৪ নভেম্বর ২০২২

জাতীয় রবীন্দ্র সঙ্গীত উৎসব উপলক্ষে সাংবাদিক সম্মেলন

নিজস্ব প্রতিনিধি, ঢাকা

‘এই জীবনে ব্যথা যত এইখানে সব হবে গত’ কবিগুরুর এই অমিয়বাণী ধারণ করে ঢাকায় শুরু হচ্ছে ৩৪তম জাতীয় রবীন্দ্রসঙ্গীত উৎসব। উৎসবে নবীন-প্রবীণ শিল্পীরা অংম নেবেন। শুক্রবার উৎসবের উদ্বোধন ও গুণীজন সম্মাননা দেবেন সংস্কৃতিবিষয়ক মন্ত্রকের প্রতিমন্ত্রী কে এম খালিদ এমপি।

ধারাবাহিকতার ৩৪ বছর। শুরুটা সেই ১৯৮৮ সালে। রবীন্দ্রসঙ্গীতের বিকাশে কাজ করে চলেছে বাংলাদেশ রবীন্দ্রসঙ্গীত শিল্পী সংস্থা। অতিমারি ঘিরে ধরায় বছর তিনেক পর মঞ্চে ফিরলো প্রাণের উৎসব। বাংলা ভাষার দিগপাল বিশ্বকবি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর। এবার উৎসবের আয়োজন স্থান আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা ইনস্টিটিউট মিলনায়তন। স্নিগ্ধ পরিবেশে স্রোতা এবং উৎসব দুয়ে মিলে বেশ কেটে যাবে।

আয়োজনকে সামনে রেখে সাংবাদিক বৈঠকে জানানো হয়, প্রায় বছর তিনেক স্থগিতের পর ফের এই উৎসবের বর্ণাঢ্য আয়োজন।

৩৪ বছরে রবীন্দ্র সঙ্গীতশিল্পী সংস্থা বহু শিল্পী তৈরির দায়িত্ব পালন করেছে। প্রতি বছরই নতুন নতুন শিল্পীদের সুযোগ দেওয়া হচ্ছে। এমন তথ্যই জানালেন সভাপতি তপন মাহমুদ।

এবারের উৎসবের সারা দেশ থেকে প্রায় ২০০ জন শিল্পী একক ও দলীয় পরিবেশনায় অংশ নেবেন। তার পরও বহু শিল্পীকেই এবারে সুযোগ দেওয়া সম্ভব হচ্ছে না। জানালেন, রবীন্দ্রসঙ্গীত শিল্পী সংস্থার সাধারণ সম্পাদক ও কণ্ঠশিল্পী পীযূষ বড়ুয়া।

বিশ্বের বাঙালিকে রবীন্দ্রনাথ সাহিত্যের যে ভাণ্ডার দিয়ে গেছেন, তা তুলনাহীন। তার সাহিত্য এবং গানের মাধ্যমে বাঙালি জাতিকে সমৃদ্ধ করেছেন। কবিভাষায় সাহিত্যের চেয়ে গানেই তিনি বেচে থাকবেন।

এবারে উৎসবে গুণীজন সম্মাননা পাচ্ছেন স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্রের দুই শব্দ সৈনিক বরেণ্য বাচিকশিল্পী আশরাফুল আলম এবং বরেণ্য কণ্ঠশিল্পী রফিকুল আলম। করোনাকালে যেসব শিল্পী, সাহিত্যিক, সাংবাদিক, কবি ও সংস্কৃতজন প।রয়াত হয়েছেন, তাদের স্মৃতির প্রতি শ্রদ্ধা জানাতে এবারের উৎসবটি উৎসর্গ করা হয়েছে।

এসময় উপস্থিত ছিলেন, বাংলাদেশ রবীন্দ্রসঙ্গীত শিল্পী সংস্থার আমিনা আহমেদ, সহসভাপতি খন্দকার খায়রুজ্জামান কাইয়ুম, বুলা মাহমুদ, কাজল মুখার্জী, জ্যেষ্ঠ যুগ্ম সম্পাদক (সাধারণ) তানজিমা তমা, জ্যেষ্ঠ যুগ্ম সম্পাদক (পরিকল্পনা) সাগরিকা জামালী, অর্থ সম্পাদক কনক খান, দফতর সম্পাদক সীমা সরকার, সাংগঠনিক সম্পাদক রিফাত জামাল মিতু এবং নির্বাহী সম্পাদক শর্মিলা চক্রবর্তী, আহমেদ শাকিল হাসমী, সাজ্জাদ হোসেন, জাফর আহমেদ ও রাবিতা সাবাহ প্রমুখ।