ঢাকা ১২:০০ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ০৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ২০ মাঘ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম ::
Sheikh Hasina : দেশে অনির্বাচিত সরকার আসলে সংবিধান অশুদ্ধ হবে , বইমেলার উদ্বোধন করে শেখ হাসিনা  Underground railway : পাতাল রেলের নির্মাণ কাজের উদ্বোধন ঘিরে সেজেছে পূর্বাঞ্চল Remittance : বছরের শুরুতেই প্রকাসী আয়ের মাথা উঁচু উপস্থিতি Fire at Mongla EPZ : মোংলা ইপিজেডে ব্যাগ কারখানার আগুন নিয়ন্ত্রণে আসেনি Judgment in Bengal : ভাষা শহীদদের সম্মানে বাংলায় রায় দিলেন হাইকোর্ট Taslima Nasreen : বাঙালিরা আমার যত সর্বনাশ করেছে তত আর কেউ করেনি, বললেন তসলিমা February : ভাষা মাস ‘ফেব্রুয়ারি’ Obaidul Quader : বিএনপির দম ফুরানো নীরব পদযাত্রা: ওবায়দুল কাদের Constitution  :  সংবিধানের পঞ্চদশ সংশোধনী অবৈধভাবে  ক্ষমতা দখল বন্ধ করেছে: শেখ হাসিনা  Missile  : মিসাইল ফায়ারিং যুগে বাংলাদেশ

India-Bangladesh : ভারত সবসময় বাংলাদেশের পাশে থাকবে: রাষ্ট্রপতি মুর্মু

  • প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০৮:০৮:২৮ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৯ নভেম্বর ২০২২
  • ৪১ বার পড়া হয়েছে

ভারতের রাষ্ট্রপতি দ্রৌপদী মুর্মুর কাছে পরিচয়পত্র পেশ করেন ভারতে বাংলাদেশের নবনিযুক্ত হাইকমিশনার মো. মুস্তাফিজুর রহমান : ছবি সংগ্রহ

নিউজ ডেস্ক

ভারতে বাংলাদেশের নবনিযুক্ত হাইকমিশনার মো. মুস্তাফিজুর রহমান সোমবার রাইসিনা হিলসের রাষ্ট্রপতি ভবনে দ্রৌপদী মুর্মুর কাছে তার পরিচয়পত্র পেশ করেন।

অনুষ্ঠানে রাষ্ট্রপতি মুরমু হাইকমিশনারকে বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নেতৃত্বে মহান মুক্তি সংগ্রামের পথ অনুসরণ করে ভারত সবসময় বাংলাদেশের পাশে থাকবে। তিনি আরও বলেন, বঙ্গবন্ধু কন্যার যোগ্য নেতৃত্বে বাংলাদেশ দেশের উন্নয়ন ও জনগণের জীবনমান উন্নয়নে অসাধারণভাবে এগিয়ে যাচ্ছে।

রাষ্ট্রপতি মুর্মু আরও বলেন, প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি এবং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশনায়, দুই দেশের মধ্যে দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক একটি নতুন উচ্চতায় পৌঁছেছে যা সারা বিশ্ব স্বীকৃত। সহযোগিতার উদ্যোগ সম্পর্কটিকে নতুন উচ্চতায় নিয়ে যেতে থাকবে। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর দেখানো পথ হিসেবে। মুক্তিযুদ্ধের সময় শুধু ভারত সরকার নয়, এদেশের মানুষও বাংলাদেশের জনগণের পাশে দাঁড়িয়েছিল।

এক বছরে দুইবার প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে তার সাক্ষাতের কথা স্মরণ করেন রাষ্ট্রপতি। তিনি প্রথম প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সাথে দেখা করেছিলেন যখন তিনি গত সেপ্টেম্বরে ভারতে একটি সরকারী দ্বিপাক্ষিক সফরে এসেছিলেন এবং আবার লন্ডনে এসেছিলেন যখন তারা উভয়ই রানী দ্বিতীয় এলিজাবেথের রাষ্ট্রীয় অন্ত্যেষ্টিক্রিয়ায় যোগ দিয়েছিলেন। তিনি উভয় দেশের জনগণের প্রতি তার প্রতিশ্রুতির জন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দ্বারা বেশ মুগ্ধ হয়েছিলেন।

রাষ্ট্রপতি মুরমু অত্যাচারীর হাত থেকে দেশের মুক্তি সংগ্রামে অনন্য নেতৃত্বের জন্য জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর প্রতি গভীর শ্রদ্ধা জ্ঞাপন করেন। বঙ্গবন্ধুর নেতৃত্বে মুক্তি সংগ্রাম সারা বিশ্বের জন্য এবং বিশেষ করে নিপীড়িত মানুষের জন্য এক দৃষ্টান্ত।

রাষ্ট্রপতি মুরমুর প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে হাইকমিশনার স্বাধীনতা সংগ্রামে ভারতের ভূমিকার প্রশংসা করেন এবং সমৃদ্ধির অভিন্ন লক্ষ্য অর্জনে বাংলাদেশের প্রতি সমর্থন অব্যাহত রাখেন। তিনি স্বীকার করেন যে সাম্প্রতিক বছরগুলিতে দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক একটি উচ্চতায় পৌঁছেছে এবং আশা করেন যে সমস্ত অমীমাংসিত সমস্যা আগামী বছরগুলিতে যৌক্তিক উপসংহারে শেষ হবে।

পরিচয়পত্র উপস্থাপন অনুষ্ঠানে হাইকমিশনারের স্ত্রী তানজিনা বিনতে আলমগীর, ডেপুটি হাইকমিশনার নুরুল ইসলাম, প্রতিরক্ষা উপদেষ্টা আবুল কালাম আজাদ, প্রেস মিনিস্টার শাবান মাহমুদ, মন্ত্রী রাজনৈতিক সেলিম জাহাঙ্গীর ও কাউন্সিলর শফিউল আলম উপস্থিত ছিলেন। অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন বিদেশ মন্ত্রকের যুগ্ম সচিব স্মিতা পান্ত এবং অন্যান্য আধিকারিকরা।

মুহাম্মদ ইমরানের স্থলাভিষিক্ত হয়েছেন জেনেভায় জাতিসংঘ কার্যালয়ে বাংলাদেশের সাবেক স্থায়ী প্রতিনিধি এবং সুইজারল্যান্ডে রাষ্ট্রদূত মুস্তাফিজুর। মুস্তাফিজুর বাংলাদেশ সিভিল সার্ভিস (বিসিএস) ফরেন অ্যাফেয়ার্স ক্যাডারের ১১ তম ব্যাচের একজন ক্যারিয়ার ফরেন সার্ভিস অফিসার। তার কূটনৈতিক কর্মজীবনে, তিনি প্যারিস, নিউইয়র্ক, জেনেভা এবং কলকাতায় বাংলাদেশ মিশনে দায়িত্ব পালন করেছেন, বিদেশমন্ত্র অনুসারে। তিনি সিঙ্গাপুরে বাংলাদেশের হাইকমিশনার হিসেবেও দায়িত্ব পালন করেছেন।

স্যার সলিমুল্লাহ মেডিকেল কলেজ থেকে একজন মেডিকেল স্নাতক, মুস্তাফিজুর যুক্তরাজ্যের লন্ডন বিশ্ববিদ্যালয় থেকে পাবলিক ইন্টারন্যাশনাল ল বিষয়ে স্নাতকোত্তর ডিগ্রি এবং ফ্রান্সের ইন্টারন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অফ পাবলিক অ্যাডমিনিস্ট্রেশন থেকে স্নাতকোত্তর ডিপ্লোমা অর্জন করেন।

ট্যাগস :

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published.

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

আপলোডকারীর তথ্য

Sheikh Hasina : দেশে অনির্বাচিত সরকার আসলে সংবিধান অশুদ্ধ হবে , বইমেলার উদ্বোধন করে শেখ হাসিনা 

Home
Account
Cart
Search

India-Bangladesh : ভারত সবসময় বাংলাদেশের পাশে থাকবে: রাষ্ট্রপতি মুর্মু

আপডেট সময় : ০৮:০৮:২৮ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৯ নভেম্বর ২০২২

নিউজ ডেস্ক

ভারতে বাংলাদেশের নবনিযুক্ত হাইকমিশনার মো. মুস্তাফিজুর রহমান সোমবার রাইসিনা হিলসের রাষ্ট্রপতি ভবনে দ্রৌপদী মুর্মুর কাছে তার পরিচয়পত্র পেশ করেন।

অনুষ্ঠানে রাষ্ট্রপতি মুরমু হাইকমিশনারকে বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নেতৃত্বে মহান মুক্তি সংগ্রামের পথ অনুসরণ করে ভারত সবসময় বাংলাদেশের পাশে থাকবে। তিনি আরও বলেন, বঙ্গবন্ধু কন্যার যোগ্য নেতৃত্বে বাংলাদেশ দেশের উন্নয়ন ও জনগণের জীবনমান উন্নয়নে অসাধারণভাবে এগিয়ে যাচ্ছে।

রাষ্ট্রপতি মুর্মু আরও বলেন, প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি এবং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশনায়, দুই দেশের মধ্যে দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক একটি নতুন উচ্চতায় পৌঁছেছে যা সারা বিশ্ব স্বীকৃত। সহযোগিতার উদ্যোগ সম্পর্কটিকে নতুন উচ্চতায় নিয়ে যেতে থাকবে। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর দেখানো পথ হিসেবে। মুক্তিযুদ্ধের সময় শুধু ভারত সরকার নয়, এদেশের মানুষও বাংলাদেশের জনগণের পাশে দাঁড়িয়েছিল।

এক বছরে দুইবার প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে তার সাক্ষাতের কথা স্মরণ করেন রাষ্ট্রপতি। তিনি প্রথম প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সাথে দেখা করেছিলেন যখন তিনি গত সেপ্টেম্বরে ভারতে একটি সরকারী দ্বিপাক্ষিক সফরে এসেছিলেন এবং আবার লন্ডনে এসেছিলেন যখন তারা উভয়ই রানী দ্বিতীয় এলিজাবেথের রাষ্ট্রীয় অন্ত্যেষ্টিক্রিয়ায় যোগ দিয়েছিলেন। তিনি উভয় দেশের জনগণের প্রতি তার প্রতিশ্রুতির জন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দ্বারা বেশ মুগ্ধ হয়েছিলেন।

রাষ্ট্রপতি মুরমু অত্যাচারীর হাত থেকে দেশের মুক্তি সংগ্রামে অনন্য নেতৃত্বের জন্য জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর প্রতি গভীর শ্রদ্ধা জ্ঞাপন করেন। বঙ্গবন্ধুর নেতৃত্বে মুক্তি সংগ্রাম সারা বিশ্বের জন্য এবং বিশেষ করে নিপীড়িত মানুষের জন্য এক দৃষ্টান্ত।

রাষ্ট্রপতি মুরমুর প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে হাইকমিশনার স্বাধীনতা সংগ্রামে ভারতের ভূমিকার প্রশংসা করেন এবং সমৃদ্ধির অভিন্ন লক্ষ্য অর্জনে বাংলাদেশের প্রতি সমর্থন অব্যাহত রাখেন। তিনি স্বীকার করেন যে সাম্প্রতিক বছরগুলিতে দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক একটি উচ্চতায় পৌঁছেছে এবং আশা করেন যে সমস্ত অমীমাংসিত সমস্যা আগামী বছরগুলিতে যৌক্তিক উপসংহারে শেষ হবে।

পরিচয়পত্র উপস্থাপন অনুষ্ঠানে হাইকমিশনারের স্ত্রী তানজিনা বিনতে আলমগীর, ডেপুটি হাইকমিশনার নুরুল ইসলাম, প্রতিরক্ষা উপদেষ্টা আবুল কালাম আজাদ, প্রেস মিনিস্টার শাবান মাহমুদ, মন্ত্রী রাজনৈতিক সেলিম জাহাঙ্গীর ও কাউন্সিলর শফিউল আলম উপস্থিত ছিলেন। অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন বিদেশ মন্ত্রকের যুগ্ম সচিব স্মিতা পান্ত এবং অন্যান্য আধিকারিকরা।

মুহাম্মদ ইমরানের স্থলাভিষিক্ত হয়েছেন জেনেভায় জাতিসংঘ কার্যালয়ে বাংলাদেশের সাবেক স্থায়ী প্রতিনিধি এবং সুইজারল্যান্ডে রাষ্ট্রদূত মুস্তাফিজুর। মুস্তাফিজুর বাংলাদেশ সিভিল সার্ভিস (বিসিএস) ফরেন অ্যাফেয়ার্স ক্যাডারের ১১ তম ব্যাচের একজন ক্যারিয়ার ফরেন সার্ভিস অফিসার। তার কূটনৈতিক কর্মজীবনে, তিনি প্যারিস, নিউইয়র্ক, জেনেভা এবং কলকাতায় বাংলাদেশ মিশনে দায়িত্ব পালন করেছেন, বিদেশমন্ত্র অনুসারে। তিনি সিঙ্গাপুরে বাংলাদেশের হাইকমিশনার হিসেবেও দায়িত্ব পালন করেছেন।

স্যার সলিমুল্লাহ মেডিকেল কলেজ থেকে একজন মেডিকেল স্নাতক, মুস্তাফিজুর যুক্তরাজ্যের লন্ডন বিশ্ববিদ্যালয় থেকে পাবলিক ইন্টারন্যাশনাল ল বিষয়ে স্নাতকোত্তর ডিগ্রি এবং ফ্রান্সের ইন্টারন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অফ পাবলিক অ্যাডমিনিস্ট্রেশন থেকে স্নাতকোত্তর ডিপ্লোমা অর্জন করেন।