শুক্রবার, ৩০ জুলাই ২০২১, ০৭:৩৬ পূর্বাহ্ন

কাল থেকে প্রবাসী কর্মীদের পাঠাতে বিশেষ ফ্লাইট

Reporter Name
  • Update Time : শুক্রবার, ১৬ এপ্রিল, ২০২১
  • ৮৭ Time View

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকা

যেসকল প্রবাসীকর্মীরা স্বদেশে এসে লকডাউনে কারণে কর্মস্থলে ফিরে যেতে পারছেন, তাদেরকে কর্মস্থলে পাঠানোর ব্যবস্থা গ্রহণ করেছে সরকার। এ অবস্থায় শনিবার থেকে সৌদি আরব, সংযুক্ত আরব আমিরাত, ওমান, কাতার ও সিঙ্গাপুরে বিশেষ ফ্লাইট পরিচালনার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

বৃহস্পতিবার রাতে বাংলাদেশের বিদেশমন্ত্রী ড. এ. কে. আব্দুল মোমেনের সভাপতিত্বে আন্তঃমন্ত্রণালয় সভায় এ সিন্তান্ত নেওয়া হয়েছে। বিদেশমন্ত্রকের এক সংবাদ বার্তায় এতথ্য জানানো হয়েছে।

প্রবাসী বাংলাদেশি কর্মীদের জন্য বিশেষ ফ্লাইট চালু হচ্ছে। এক্ষেত্রে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সসহ বাংলাদেশি অন্যান্য এয়ারলাইন্স এবং সংশ্লিষ্ট দেশসমুহের ন্যাশনাল ক্যারিয়ারসহ অন্যান্য ক্যারিয়ার বিশেষ ফ্লাইট পরিচালনা করতে পারবে।

সিদ্ধান্তে বলা হয়েছে, উল্লেখিত ৫টি দেশে বাংলাদেশি কর্মীদের মধ্যে যাদের প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রকের ইস্যুকৃত বিএমইটি ক্লিয়ারেন্স রয়েছে, তাদেরকে বিদেশ গমনে অগ্রাধিকার দেওয়া হবে। যাদের ভিজিট ভিসা রয়েছে, কিন্তু বিএমইটি ক্লিয়ারেন্স নেই, তারা বিদেশ গমনে অগ্রাধিকার পাবেন না। ভিজিট ভিসা নিয়ে যেসকল বাংলাদেশি কর্মের উদ্দেশ্যে সংযুক্ত আরব আমিরাত যাবেন, তারা বিএমইটি’র ছাড়পত্র নিয়ে যেতে পারবেন।

তিন দিন আগে টিকেট কেনা সত্ত্বেও যেসব যাত্রী লকডাউনের কারণে বিদেশ কর্মস্থলে যেতে পারেননি, তাদেরকে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স বা সংশ্লিষ্ট দেশসমুহের ন্যাশনাল ক্যারিয়ারের অতিরিক্ত বিশেষ ফ্লাইটের মাধ্যমে বিদেশে পাঠানোর ব্যবস্থা করবে। যারা চট্টগ্রাম থেকে টিকেট কিনেছেন, তাদেরকে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের কানেকটিং ফ্লাইটে ঢাকায় আনা যাবে।

টিকেটের মূল্য সহনীয় পর্যায়ে রাখার জন্য যাত্রী পরিবহনের জন্য পরিচালিত বিশেষ ফ্লাইটের গ্রাউন্ড হ্যান্ডেলিং চার্জ সাধারণ ফ্লাইটের ক্ষেত্রে প্রযোজ্য চার্জের সমপরিমাণ প্রদেয় হবে। স্বাস্থ্য বিভাগ ও স্বাস্থ্য অধিদপ্তর অগ্রাধিকারপ্রাপ্ত বিদেশগামী যাত্রীদের পিসিআর টেস্ট নির্বিঘ্নে এবং স্বল্পতম সময়ের মধ্যে সম্পন্ন করে ফলাফল প্রদান করবে।

লকডাউন চলাকালে উল্লিখিত ৫টি দেশ ব্যতীত অন্যান্য দেশে যারা জরুরি প্রয়োজনে যেতে ইচ্ছুক, তারা বিদেশমন্ত্রকের ছাড়পত্র সাপেক্ষে ট্রানজিট-প্যাসেঞ্জার হিসেবে বিশেষ ফ্লাইটে ভ্রমণ করতে পারবেন।

৫টি দেশে বা ট্রানজিট যাত্রীগণ এয়ারপোর্টে আসার পথে পাসপোর্ট/ভ্যালিড ভিসা/বিমানের টিকিট/বিএমইটি কার্ড অথবা নিরাপত্তা এজেন্সি কর্তৃক ইস্যুকৃত পাস সঙ্গে রাখবেন। আইনশৃঙ্খলা বানিহীর সদস্যরা বিভিন্ন পয়েন্টে তাদের চলাচলে সহযোগিতা করবেন।

প্রবাসী বাংলাদেশিগণ জরুরি প্রয়োজনে ১৪ দিনের বাধ্যতামূলক প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টাইনের শর্তে দেশে আসতে পারবেন। প্রত্যেক যাত্রীকে কোভিড নেগেটিভ সার্টিফিকেট বাধ্যতামূলকভাবে প্রদর্শন করতে হবে। বিদেশে অবস্থিত বাংলাদেশ মিশনসমুহ দেশে ফিরতে ইচ্ছুক প্রবাসী কর্মীদের তালিকা প্রস্তুত করবে।

বিদেশ ফেরত যাত্রীদের ১৪ দিনের প্রাতিষ্ঠানিক কোরেনটাইন নিশ্চিতে সশস্ত্র বাহিনী বিভাগ দিয়াবাড়ি, চট্টগ্রাম ও সিলেটে পর্যাপ্ত প্রস্তুতি নিয়ে রাখবে। ৫টি দেশ হতে যেসকল যাত্রী দেশে ফিরবেন, তাদেরকে বোর্ডিং এর পূর্বেই কোয়ারান্টাইনের নির্দিষ্ট হোটেলে বুকিং নিশ্চিত করতে হবে।

কাতার ও ওমানে সংক্রমণ কমে যাওয়ায় নিষিদ্ধ দেশসমুহের তালিকা থেকে দেশ দু’টির নাম প্রত্যাহারের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

বিদেশে অবস্থিত বাংলাদেশ মিশনসমুহ দেশে ফিরতে ইচ্ছুক প্রবাসী কর্মীদের লকডাউন চলাকালে দেশে আসার বিষয়ে নিরুৎসাহিত করার সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়েছে। এক্ষেত্রে, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম, বাংলাদেশ মিশনের ওয়েব সাইট, নিউজ পোর্টাল ইত্যাদি ব্যবহার এবং কমিউনিটি লিডারদের সহযোগিতা নেওয়া সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়েছে।

আন্ত:মন্ত্রণালয় সভায় স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয় মন্ত্রী, প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রী, বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন প্রতিমন্ত্রী, বিদেশ প্রতিমন্ত্রীসহ সংশ্লিষ্ট মন্ত্রকের উর্ধ্বতন কর্মকর্তারা সংযুক্ত ছিলেন।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category
© All rights reserved © 2017 voiceekattor
কারিগরি সহযোগিতায়: সোহাগ রানা
11223