March 1, 2021, 9:52 am

ভারতের উপহার ২০ লাখ টিকা মিলবে দুদিনের মাথায়

Reporter Name
  • Update Time : Monday, January 18, 2021,
  • 47 Time View

ভয়েস রিপোর্ট

রাত পোহালেই বাংলাদেশকে উপহার দেওয়া ভারত সরকারের ২০ লাখ টিকা পাচ্ছে বাংলাদেশ। সোমবার সন্ধ্যায় স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক আবুল বাসার মোহাম্মদ খুরশীদ আলম বলেছেন, ভারত সরকার বাংলাদেশ সরকারকে টিকা উপহার দেওয়ার ব্যাপারে চিঠি দিয়েছে। সরকারের ঊর্ধ্বতন একাধিক কর্মকর্তা এ তথ্যের সত্যতা নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, চিঠিতে অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার ২০ লাখ টিকা দেওয়ার কথা বলা হয়েছে। বুধবার ২০ টিকা আসার কথা। ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটিতে আয়োজিত ‘মিট দ্য প্রেস’ অনুষ্ঠানে স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক বলেছিলেন, ২৬ জানুয়ারির মধ্যে সেরামের তৈরি অক্সফোর্ড অ্যাস্ট্রাজেনেকার টিকার প্রথম চালান আসবে। এ টিকা ১৮ বছরের নিচের কাউকে দেওয়া হবে না। তবে, তার আগে ভারত সরকারের দেয়া উপহারসরূপ টিকার চালান মিলবে।

এরই মধ্যে প্রস্তুতি প্রায় সম্পন্ন। সব কিছু ঠিকঠাক থাকলে চলতি সপ্তাহেই ভারত থেকে করোনা টিকার প্রথম চালান পাচ্ছে বাংলাদেশ। পাশাপাশি ৪২ হাজার কর্মীকে প্রশিক্ষণ দিয়ে প্রস্তুত করা হচ্ছে। এরই মধ্যে বাংলাদেশে টিকা পাঠানোর প্রক্রিয়ায় হাত লাগিয়ে সেরাম। প্রথম চালানে যে টিকা পাঠানোনোর কথা রয়েছে, তার প্রয়োজনীয় কাগজপত্র ভারতের সংশ্লিষ্ট দপ্তরে পাঠানো হয়েছে। বাকী প্রক্রিয়া শেষে ইন্ডিয়া কাস্টমসে যাবে কাগজপত্র।

বাংলাদেশের স্বাস্থ্য ও পরিবারকল্যাণ মন্ত্রী জাহিদ মালেক বলেছেন, চলতি মাসের ২৫ বা ২৬ জানুয়ারি বাংলাদেশে করোনার ভ্যাকসিন আসবে। ভ্যাকসিনের যে প্রথম চালান আসবে, তা থেকে বাংলাদেশে রিপোর্টারদের অন্যতম সংগঠন ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির (ডিআরইউ) সদস্যরা ভ্যাকসিন পাবেন। পর্যায়ক্রমে সকল সাংবাদিককে করোনার ভ্যাকসিন দেওয়া হবে।

সোমবার ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির আয়োজনে ‘মিট দ্য রিপোর্টার্স’ অনুষ্ঠানে এসে এমন বার্তা দিলেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী। এসময় তিনি বলেন, সিরামের সঙ্গে চুক্তি অনুযায়ী আগামী ২৫ বা ২৬ জানুয়ারির মধ্যে প্রথম ধাপের টিকার চালান বাংলাদেশে প্রবেশ করবে। টিকা আনতে প্রয়োজনে বিশেষ উড়ানের ব্যবস্থা করবে সরকার।

দেশে ভ্যাকসিন প্রবেশের এক সপ্তাহের মধ্যেই তার প্রয়োগ কার্যক্রম শুরু করা হবে। এজন্য ৪২ হাজার কর্মীকে প্রশিক্ষণ দিয়ে প্রস্তুত করা হচ্ছে। ঢাকা জেলায় ৩০০টি চিকিৎসাকেন্দ্রে টিকাদান কেন্দ্র তৈরি করা হবে।
মন্ত্রী বলেন, বেসরকারিভাবেও টিকা আমদানি ও প্রয়োগের অনুমোদনও সরকার দেবে। এর একটি নীতিমালাও করা হয়েছে। টিকার মূল্য সরকার নির্ধারণ করে দেবে। স্বাস্থ্যমন্ত্রী জানান, ভারত সরকার কিছু করোনার টিকা উপহারস্বরূপ বাংলাদেশকে দেবে। যা প্রথম চালানের আগেই আসার সম্ভবনা রয়েছে। স্বাস্থ্যমন্ত্রী আরও বলেন, মহামারি করোনাভাইরাস সংক্রমণের দ্বিতীয় ঢেউ নিয়ন্ত্রণে এসেছে। নতুন সংক্রমণ ও মৃত্যু কমে যাওয়ার পরিসংখ্যানে আভাস দিচ্ছে।

দেশে সফলভাবে করোনা নিয়ন্ত্রণ করায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রশংসা করে চিঠি দিয়েছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা। তারা করোনা সংক্রমণ প্রতিরোধের মতো ভ্যাকসিন দেওয়ার কর্মসূচিতেও ভালো করার আশাবাদ জানিয়ে সার্বিক সহযোগিতার প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন। আমাদের মাত্র একটি করোনা পরীক্ষার ল্যাব ছিল উল্লেখ স্বাস্থ্যমন্ত্রী বর্তমানে ২০০টি ল্যাব স্থাপন করা হয়েছে। বিশ্বব্যাপী লকডাউন থাকায় পিপিই সংকট ছিল। বর্তমানে আমরা পিপিই রপ্তানি করছি। স্বাস্থ্যমন্ত্রী জানিয়েছেন, যারা বিদেশ যাচ্ছেন আমরা তাদের করোনা টেস্টের ব্যবস্থা করে দিচ্ছি।

টেলিমেডিসিনের মাধ্যমে প্রচুর মানুষ সুবিধা নিয়েছে। এটি আমাদের একটি সফল কার্যক্রম। করোনার মধ্যেও স্বাস্থ্য খাতের উন্নয়ন থেমে নেই। দেশের অন্য সব পাবলিক পরীক্ষা স্থগিত থাকলেও মেডিক্যাল কলেজের সব পরীক্ষা চলমান রয়েছে। স্বাস্থ্যমন্ত্রী জানান, করোনা টিকার প্রথম ধাপে সাংবাদিক, ডাক্তার, নার্স, টেকলোজিস্ট, পুলিশ, সেনাবাহিনী, প্রশাসনের কর্মকর্তা-কর্মচারী, সাধারণের মধ্যে ৫৫ বছর বা তার ঊর্ধ্বে মানুষদের প্রধান ধাপে করোনার টিকা প্রয়োগ করা হবে।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category
© All rights reserved © 2017 voiceekattor
কারিগরি সহযোগিতায়: সোহাগ রানা
11223