ঢাকা ১১:৩৫ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২১ মে ২০২৪, ৭ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

৬ চীনা নাবিককে নিবিড় পর্যবেক্ষন

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০৩:২৫:৫৩ অপরাহ্ন, সোমবার, ২৭ এপ্রিল ২০২০ ৪৭৭ বার পড়া হয়েছে
ভয়েস একাত্তর অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

৬জন চীনা নাগরিককে আইসোলেশনে নেওয়া নিয়েছে বন্দর কর্তৃপক্ষ। বন্ধ রাখা হয়েছে জাহাজের পণ্য খালাসও। বাংলাদেশের দ্বিতীয় সমুদ্র বন্দর মোংলায় আসা বিদেশি পতাকাবাহী একটি জাহাজের ক্যাপ্টেনসহ ছয় চীনা নাবিকের আইসোলেশনে নেওয়া হয়। ধারণা করা হচ্ছে এদের দেহে করোনাভাইরাস থাকতে পারে। জাহাজটিতে মোট ২০ জন নাবিক রয়েছেন। স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের পোর্ট হেলথ অফিসার ডাঃ সুফিয়া খাতুন সংবাদমাধ্যমকে জানিয়েছেন, রবিবার বিকাল নাগাদ জাহাজটি বন্দরে আসে। ছয় নাবিকের শরীরে স্বাভাবিকের চাইতে জ্বরের মাত্রা বেশি পাওয়ায় তাদেরকে আইসোলেশনে রাখা হয়েছে। তাদের রিপোর্ট না পাওয়া পর্যন্ত জাহাজটিতে পণ্য খালাসের অনুমতি দেওয়া যাচ্ছে না। মোংলা বন্দরের হারবার মাষ্টার কমান্ডার শেখ ফকর উদ্দিন এবং জাহাজের স্থানীয় শিপিং এজেন্ট মের্সাস সুলতান শিপিংয়ের ব্যবস্থাপক মাহমুদুল হক রাজু জানিয়েছেন, ২৪ হাজার মেট্রিক টন কয়লা নিয়ে ইন্দোনেশিয়া থেকে আসা মের্সাস চ্যাং হ্যাং জিং হাই জাহাজটি রবিবার মোংলা বন্দরে আসে। বন্দরের হারবারের ৭ নম্বর মুরিং বয়ায় এটি অবস্থান নেয়। এরপরই স্বাস্থ্য বিভাগের চিকিৎসকের পরীক্ষায় তাদের শরীরে জ্বরের মাত্রা বেশি পাওয়ায় করোনা সন্দেহ তাদেরকে আইসোলেশনে রাখা হয়। এ অবস্থায় জাহাজটিতে পণ্য খালাস বন্ধ রাখা হয়। স্বাস্থ্য বিভাগের রিপোর্ট পাওয়ার পরই জাহাজের পণ্য খালাসের সিদ্ধান্ত হবে। জানা গেছে, একই জাহাজ গত ১ এপ্রিল চট্রগ্রাম বন্দরে এসে ৩০ হাজার মেট্রিক টন কয়লা খালাস গিয়েছে।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published.

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

আপলোডকারীর তথ্য
ট্যাগস :

৬ চীনা নাবিককে নিবিড় পর্যবেক্ষন

আপডেট সময় : ০৩:২৫:৫৩ অপরাহ্ন, সোমবার, ২৭ এপ্রিল ২০২০

৬জন চীনা নাগরিককে আইসোলেশনে নেওয়া নিয়েছে বন্দর কর্তৃপক্ষ। বন্ধ রাখা হয়েছে জাহাজের পণ্য খালাসও। বাংলাদেশের দ্বিতীয় সমুদ্র বন্দর মোংলায় আসা বিদেশি পতাকাবাহী একটি জাহাজের ক্যাপ্টেনসহ ছয় চীনা নাবিকের আইসোলেশনে নেওয়া হয়। ধারণা করা হচ্ছে এদের দেহে করোনাভাইরাস থাকতে পারে। জাহাজটিতে মোট ২০ জন নাবিক রয়েছেন। স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের পোর্ট হেলথ অফিসার ডাঃ সুফিয়া খাতুন সংবাদমাধ্যমকে জানিয়েছেন, রবিবার বিকাল নাগাদ জাহাজটি বন্দরে আসে। ছয় নাবিকের শরীরে স্বাভাবিকের চাইতে জ্বরের মাত্রা বেশি পাওয়ায় তাদেরকে আইসোলেশনে রাখা হয়েছে। তাদের রিপোর্ট না পাওয়া পর্যন্ত জাহাজটিতে পণ্য খালাসের অনুমতি দেওয়া যাচ্ছে না। মোংলা বন্দরের হারবার মাষ্টার কমান্ডার শেখ ফকর উদ্দিন এবং জাহাজের স্থানীয় শিপিং এজেন্ট মের্সাস সুলতান শিপিংয়ের ব্যবস্থাপক মাহমুদুল হক রাজু জানিয়েছেন, ২৪ হাজার মেট্রিক টন কয়লা নিয়ে ইন্দোনেশিয়া থেকে আসা মের্সাস চ্যাং হ্যাং জিং হাই জাহাজটি রবিবার মোংলা বন্দরে আসে। বন্দরের হারবারের ৭ নম্বর মুরিং বয়ায় এটি অবস্থান নেয়। এরপরই স্বাস্থ্য বিভাগের চিকিৎসকের পরীক্ষায় তাদের শরীরে জ্বরের মাত্রা বেশি পাওয়ায় করোনা সন্দেহ তাদেরকে আইসোলেশনে রাখা হয়। এ অবস্থায় জাহাজটিতে পণ্য খালাস বন্ধ রাখা হয়। স্বাস্থ্য বিভাগের রিপোর্ট পাওয়ার পরই জাহাজের পণ্য খালাসের সিদ্ধান্ত হবে। জানা গেছে, একই জাহাজ গত ১ এপ্রিল চট্রগ্রাম বন্দরে এসে ৩০ হাজার মেট্রিক টন কয়লা খালাস গিয়েছে।