মঙ্গলবার, ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৪:২১ অপরাহ্ন

সেনাবাহিনী প্রধানের সঙ্গে জাতিসংঘ শান্তিরক্ষা মিশনের ফোর্স কমান্ডারগণ এবং ভুটান সেনাবাহিনীর ডেপুটি চিফ অব অপারেশনস্ এর সৌজন্য সাক্ষাৎ

Reporter Name
  • Update Time : বুধবার, ১৪ এপ্রিল, ২০২১
  • ৭২ Time View

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকা

বাংলাদেশে সফররত ইউনাইটেড নেশনস ল্টিডাইমেনশনাল ইন্টিগ্রেটেড স্ট্যাবিলাইজেশন মিশন ইন দ্য সেন্ট্রাল আফ্রিকান রিপাবলিক (মিনুসকা) এর ফোর্স কমান্ডার লেফটেন্যান্ট জেনারেল সিদিকি ড্যানিয়েল ত্রাওর ও ইউনাইটেড নেশনস্ মিশন ইন সাউথ সুদান (আনমিস) এর ফোর্স কমান্ডার লেফটেন্যান্ট জেনারেল শাইলেশ সাদাশিভ তিনাইকার মঙ্গলবার সেনাবাহিনী সদর দপ্তরে বাংলাদেশ সেনাবাহিনী প্রধান জেনারেল আজিজ আহমেদ, এসবিপি (বার), বিএসপি, বিজিবিএম, পিবিজিএম, বিজিবিএমএস, পিএসসি, জি, পিএইচডি এর সাথে সৌজন্য সাক্ষাৎ করেন। আইএসপিআর বিজ্ঞপ্তিতে এতথ্য জানিয়েছে।

ফোর্স কমান্ডারগণ সাক্ষাৎকালে পারস্পরিক কুশল বিনিময় ছাড়াও চলমান শান্তিরক্ষা কার্যক্রমে উদ্ভূত চ্যালেঞ্জসমূহ এবং তা মোকাবেলায় করণীয় বিভিন্ন বিষয় নিয়ে আলোচনা হয়। আলোচনায় শান্তিরক্ষা কার্যক্রমে নারীদের বিশেষভাবে সম্পৃক্তকরণ, মিশন এলাকায় এয়ার সহায়তা বৃদ্ধি এবং বৈশ্বিক মহামারি কোভিড-১৯ পরিস্থিতিতে শান্তিরক্ষা অপারেশনের কার্যপ্রণালীর উপর বিশেষ গুরুত্বারোপ করেন জেনারেল আজিজ আহমেদ।

এছাড়াও আফ্রিকা মহাদেশে নিযুক্ত বাংলাদেশী শান্তিরক্ষীরা সেখানকার জীব বৈচিত্র ও পরিবেশের ভারসাম্য রক্ষা এবং খাদ্যে স্বয়ংসম্পূর্ণতা অর্জনে সহায়ক ভূমিকা পালন করতে পারে বলে সেনাবাহিনী প্রধান মত পোষণ করেন।

উল্লেখ্য, মুজিব জন্মশতবার্ষিকী এবং স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উদযাপন উপলক্ষ্যে গত ৪ থেকে ১২ এপ্রিল পর্যন্ত বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর সার্বিক ব্যবস্থাপনায় বহুজাতিক অনুশীলন ‘শান্তির অগ্রসেনা’ পরিচালিত হয়। এই অনুশীলনের সর্বাপেক্ষা তাৎপর্যপূর্ণ অধ্যায় ‘আমি চিফস্’ কনক্লেভ’ এ যোগদানের উদ্দেশ্যে জাতিসংঘ শান্তিরক্ষা মিশন মিনুসকা এবং আনমিস এর ফোর্স কমান্ডারগণ বাংলাদেশে আগমন করেন। সফর শেষে তাঁরা এদিন ঢাকা ত্যাগ করবেন।

ফোর্স কমান্ডারগণের সাক্ষাত

ফোর্স কমান্ডারগণের সাক্ষাতের পূর্বে বাংলাদেশে সফররত ভুটান সেনাবাহিনীর ডেপুটি চিফ অব অপারেশনস্ ব্রিগেডিয়ার জেনারেল দরজি রিনচেন সেনাবাহিনী প্রধান জেনারেল আজিজ আহমেদ-এর সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাৎ করেন। সাক্ষাৎকালে তাঁরা পারস্পরিক কুশলাদি বিনিময় ছাড়াও দু’দেশের মধ্যে বিদ্যমান বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক বজায় রাখার পাশাপাশি প্রতিরক্ষা বিষয়ক কর্মশালা আয়োজন, বিশেষজ্ঞ প্রশিক্ষক ও প্রশিক্ষণার্থী বিনিময় এবং পারস্পরিক প্রতিরক্ষা বিষয়ক সহযোগিতা বৃদ্ধিতে বিশেষ গুরুত্বারোপ করেন।

আলোচনায় জেনারেল আজিজ আহমেদ বলপূর্বক বাস্তুচ্যুত মায়ানমার নাগরিকদের নিজ দেশে ফেরনোর ব্যাপারে বাংলাদেশের প্রতি ভুটান সরকারের আকুন্ঠ সমর্থন বজায় থাকবে বলে পূর্ণ আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

ভুটান সেনাবাহিনীর ডেপুটি চিফ অব অপারেশনস্ ব্রিগেডিয়ার জেনারেল দরজি রিনচেন ১১ এপ্রিল ঢাকা সেনানিবাসে অনুষ্ঠিত ‘আর্মি চিফস্’কনক্লেভ’ এবং বহুজাতিক অনুশীলন ‘শান্তির অগ্রসেনা’ তে অংশগ্রহণের জন্য ঢাকায় আগমন করেন। সফর শেষে তিনি আগামীকাল বুধবার ঢাকা ত্যাগ করেন।

 

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category
© All rights reserved © 2017 voiceekattor
কারিগরি সহযোগিতায়: সোহাগ রানা
11223