ঢাকা ০৯:১২ অপরাহ্ন, সোমবার, ২৭ মে ২০২৪, ১৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

মুসলিম উইঘুরদের ওপর গণহত্যা চালিয়েছে চীন: যুক্তরাষ্ট্র

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০৩:৩৫:৫৮ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ১৮ জানুয়ারী ২০২১ ২৪৬ বার পড়া হয়েছে
ভয়েস একাত্তর অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

ভয়েস ডিজিটাল ডেস্ক

যুক্তরাষ্ট্রের কংগ্রেসনাল এক্সিকিউটিভ কমিশন কমিটি (সিইসিসি) একটি প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে। প্রতিবেদনে বলা হয়েছে চীন সংখ্যালঘু মুসলিম সম্প্রদায় উইঘুরদের ওপর গণহত্যা চালিয়েছে। সম্প্রতি যুক্তরাষ্ট্রের দ্বিদলীয় ঐকমত্যের ভিত্তিতে গঠিত কংগ্রেসনাল-এক্সিকিউটিভ অন চীনা (সিইসিসি)জানায়, নতুন নথিপত্রে গত বছর জিনজিয়াংয়ে ‘মানবতার বিরুদ্ধে অপরাধ’ দেখা গেছে, সম্ভবত সেখানে ‘গণহত্যা’ ঘটছে।

 

সিইসিসি’র সহ-সভাপতি ডেমোক্র্যাট প্রতিনিধি জিম ম্যাকগোভারন উইঘুরদের ওপর চীনের এমন পদক্ষেপকে বেদনাদায়ক এবং নজিরবিহীন বলে উল্লেখ করেছেন। সেইসঙ্গে তিনি কংগ্রেস এবং আসন্ন বাইডেন প্রশাসনকে চীনের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার আহ্বান জানান।

কয়েক লাখ উইঘুর মুসলিমদের বন্দিশিবিরে এবং তাদের ওপর নির্মম অত্যাচার চালাচ্ছে বলেও চীনের বিরুদ্ধে অভিযোগ উঠেছে। জাতিসংঘ জানিয়েছে, ১০ লাখের বেশি উইঘুর মুসলিমকে বন্দিশিবিরে আটকে রেখেছে চীন। তবে চীন বরাবরই এসব অভিযোগ সঠিক নয় বলে প্রত্যাখ্যান করেছে। নতুন করে প্রকাশিত প্রতিবেদনেরও নিন্দা জানিয়েছে চীনা সরকার।

জিনজিয়াং পরিস্থিতি নিয়ে বিবৃতিতে বেইজিং জানায়, সেখানে উগ্রপন্থা থেকে মানুষকে মুক্ত করতে তাদের কারিগরি শিক্ষা দেওয়া হচ্ছে। উইঘুরদের ডিটেনশন সেন্টারে বন্দী করে রাখার খবর প্রকাশ হলেও চীনা কর্তৃপক্ষ জানাচ্ছে, সেগুলো কারিগরি শিক্ষা কেন্দ্র। তাদের দাবি, সেখানে মানুষের দক্ষতা বাড়ানো হচ্ছে।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published.

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

আপলোডকারীর তথ্য
ট্যাগস :

মুসলিম উইঘুরদের ওপর গণহত্যা চালিয়েছে চীন: যুক্তরাষ্ট্র

আপডেট সময় : ০৩:৩৫:৫৮ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ১৮ জানুয়ারী ২০২১

ভয়েস ডিজিটাল ডেস্ক

যুক্তরাষ্ট্রের কংগ্রেসনাল এক্সিকিউটিভ কমিশন কমিটি (সিইসিসি) একটি প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে। প্রতিবেদনে বলা হয়েছে চীন সংখ্যালঘু মুসলিম সম্প্রদায় উইঘুরদের ওপর গণহত্যা চালিয়েছে। সম্প্রতি যুক্তরাষ্ট্রের দ্বিদলীয় ঐকমত্যের ভিত্তিতে গঠিত কংগ্রেসনাল-এক্সিকিউটিভ অন চীনা (সিইসিসি)জানায়, নতুন নথিপত্রে গত বছর জিনজিয়াংয়ে ‘মানবতার বিরুদ্ধে অপরাধ’ দেখা গেছে, সম্ভবত সেখানে ‘গণহত্যা’ ঘটছে।

 

সিইসিসি’র সহ-সভাপতি ডেমোক্র্যাট প্রতিনিধি জিম ম্যাকগোভারন উইঘুরদের ওপর চীনের এমন পদক্ষেপকে বেদনাদায়ক এবং নজিরবিহীন বলে উল্লেখ করেছেন। সেইসঙ্গে তিনি কংগ্রেস এবং আসন্ন বাইডেন প্রশাসনকে চীনের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার আহ্বান জানান।

কয়েক লাখ উইঘুর মুসলিমদের বন্দিশিবিরে এবং তাদের ওপর নির্মম অত্যাচার চালাচ্ছে বলেও চীনের বিরুদ্ধে অভিযোগ উঠেছে। জাতিসংঘ জানিয়েছে, ১০ লাখের বেশি উইঘুর মুসলিমকে বন্দিশিবিরে আটকে রেখেছে চীন। তবে চীন বরাবরই এসব অভিযোগ সঠিক নয় বলে প্রত্যাখ্যান করেছে। নতুন করে প্রকাশিত প্রতিবেদনেরও নিন্দা জানিয়েছে চীনা সরকার।

জিনজিয়াং পরিস্থিতি নিয়ে বিবৃতিতে বেইজিং জানায়, সেখানে উগ্রপন্থা থেকে মানুষকে মুক্ত করতে তাদের কারিগরি শিক্ষা দেওয়া হচ্ছে। উইঘুরদের ডিটেনশন সেন্টারে বন্দী করে রাখার খবর প্রকাশ হলেও চীনা কর্তৃপক্ষ জানাচ্ছে, সেগুলো কারিগরি শিক্ষা কেন্দ্র। তাদের দাবি, সেখানে মানুষের দক্ষতা বাড়ানো হচ্ছে।