ঢাকা ১০:১৫ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২১ মে ২০২৪, ৭ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ভারতের বিরুদ্ধে পাকিস্তানকে উস্কানি চীন-তুরস্কের

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০৩:৫৫:১৫ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ১০ ফেব্রুয়ারী ২০২১ ২২২ বার পড়া হয়েছে
ভয়েস একাত্তর অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

ভয়েস ডিজিটাল ডেস্ক

সেনা দিবসে ভারতের সেনাপ্রধান জেনারেল এম এম নারাভানে বলেছেন, ‘আক্রমণ করলে তার পাল্টা জবাব দিতে প্রস্তুত আছে সেনাবাহিনী।’ ভারতের এমন হুঁশিয়ারির মধ্যে পাকিস্তানের হাত শক্ত করতে বরাবরের মতোই এগিয়ে এসেছে দুই ‘বন্ধু দেশ’ চীন ও তুরস্ক বলে দাবি করছে ভারতীয় মিডিয়া।
বলা হয়েছে, বিশ্বব্যাপী আর্থিক আত্মসাৎ ও সন্ত্রাসবাদে অর্থ জোগানের ওপর নজরদারি চালানো এফএটিএফ-এর ধূসর তালিকার অন্তর্ভূক্ত রয়েছে পাকিস্তান। ক্রমেই তাদের উপর বেড়ে চলেছে আর্থিক ঋণের বোঝা। এরই মধ্যে অস্ত্র সাহায্য নিয়ে পায়ের নীচের জমি শক্ত করতে এগিয়ে এসেছে চীন ও তুরস্ক।

পাকিস্তানকে যুদ্ধে মদত দিতে চীন ইতিমধ্যেই উন্নত মানের দ্বিতীয় রণতরী প্রস্তুত করেছে। তুরস্কর ইস্তানবুলে পাকিস্তানের জন্য যুদ্ধজাহাজ নির্মাণের কাজ শুরু হয়েছে। ২০১৯ এর অক্টোবরেই প্রতিরক্ষা ক্ষেত্রে ইমরান খান সরকারের পাশে থাকার কথা ঘোষণা করে তুরস্ক। তাদের রণতরী পেলে লাভবান হবে পাকিস্তান। 

এদিকে, চীন পাকিস্তানের জন্য যে চারটি ফ্রিগেট শ্রেণির যুদ্ধজাহাজ প্রস্তুত করছে, গত আগস্টে সেগুলোর প্রথমটি তুলে দেওয়া হয়েছে। এই দুই দেশের সাহায্য পেলে কোণঠাসা অবস্থাতেও পাকিস্তান প্রতিরক্ষা ক্ষেত্রে হালে পানি পেতে পারে বলে মনে করছে ভারতের বিশেষজ্ঞ মহল। সূত্র : এবিপি আনন্দ।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published.

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

আপলোডকারীর তথ্য
ট্যাগস :

ভারতের বিরুদ্ধে পাকিস্তানকে উস্কানি চীন-তুরস্কের

আপডেট সময় : ০৩:৫৫:১৫ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ১০ ফেব্রুয়ারী ২০২১

ভয়েস ডিজিটাল ডেস্ক

সেনা দিবসে ভারতের সেনাপ্রধান জেনারেল এম এম নারাভানে বলেছেন, ‘আক্রমণ করলে তার পাল্টা জবাব দিতে প্রস্তুত আছে সেনাবাহিনী।’ ভারতের এমন হুঁশিয়ারির মধ্যে পাকিস্তানের হাত শক্ত করতে বরাবরের মতোই এগিয়ে এসেছে দুই ‘বন্ধু দেশ’ চীন ও তুরস্ক বলে দাবি করছে ভারতীয় মিডিয়া।
বলা হয়েছে, বিশ্বব্যাপী আর্থিক আত্মসাৎ ও সন্ত্রাসবাদে অর্থ জোগানের ওপর নজরদারি চালানো এফএটিএফ-এর ধূসর তালিকার অন্তর্ভূক্ত রয়েছে পাকিস্তান। ক্রমেই তাদের উপর বেড়ে চলেছে আর্থিক ঋণের বোঝা। এরই মধ্যে অস্ত্র সাহায্য নিয়ে পায়ের নীচের জমি শক্ত করতে এগিয়ে এসেছে চীন ও তুরস্ক।

পাকিস্তানকে যুদ্ধে মদত দিতে চীন ইতিমধ্যেই উন্নত মানের দ্বিতীয় রণতরী প্রস্তুত করেছে। তুরস্কর ইস্তানবুলে পাকিস্তানের জন্য যুদ্ধজাহাজ নির্মাণের কাজ শুরু হয়েছে। ২০১৯ এর অক্টোবরেই প্রতিরক্ষা ক্ষেত্রে ইমরান খান সরকারের পাশে থাকার কথা ঘোষণা করে তুরস্ক। তাদের রণতরী পেলে লাভবান হবে পাকিস্তান। 

এদিকে, চীন পাকিস্তানের জন্য যে চারটি ফ্রিগেট শ্রেণির যুদ্ধজাহাজ প্রস্তুত করছে, গত আগস্টে সেগুলোর প্রথমটি তুলে দেওয়া হয়েছে। এই দুই দেশের সাহায্য পেলে কোণঠাসা অবস্থাতেও পাকিস্তান প্রতিরক্ষা ক্ষেত্রে হালে পানি পেতে পারে বলে মনে করছে ভারতের বিশেষজ্ঞ মহল। সূত্র : এবিপি আনন্দ।