বুধবার, ০৮ ডিসেম্বর ২০২১, ১০:৩৬ অপরাহ্ন

ফিল্মফেয়ার অ্যাওয়ার্ডস : সমালোচকদের চোখে জয়াই সেরা

Reporter Name
  • Update Time : বৃহস্পতিবার, ১ এপ্রিল, ২০২১
  • ১০৯ Time View

চতুর্থ ফিল্মফেয়ার অ্যাওয়ার্ডসের (বাংলা) লালগালিচা এবং মঞ্চে জয়া আহসান

ভয়েস ডিজিটাল ডেস্ক

আরেকবার গর্বিত হলো বাংলাদেশ। সাংস্কৃতিক পতাকা উর্ধে তুলে ধরলেন বাংলার সোনার মেয়ে জয়া আহসান। তার সাবলিল অভিনয় মৈলীতে মুগদ্ধ সাধারণ দর্শত-শ্রোতা। সংস্কৃতির কোন মানচিত্র নেই, তা বার বার প্রমাণ করে চলেছেন প্রতিথযশা এই সু-অভিনেত্রী। স্বয়ং ঈশ্বর তার সহায়। কাজ মানুষকে তার প্রাপ্য সম্মান থেকে বঞ্চিত করে না, তা প্রমাণ দিয়ে যাচ্ছে জয়া।

এবারের ফিল্মফেয়ার অ্যাওয়ার্ডসের ‘ব্ল্যাকলেডি’ আবারো উঠলো তার হাতে। ‘বিজয়া’ এবং ‘রবিবার’ ছবি দুটিতে অনবদ্য নৈপুণ্যের জন্য সমালোচকদের চোখে সেরা অভিনেত্রী হয়েছেন তিনি। দুটি পৃথক ছবিতে অসামান্য অভিনয়ের জন্য এই পুরস্কার সম্ভবত আগে কারো মেলেনি!

ভারতের ফিল্মফেয়ার ম্যাগাজিনের আয়োজনে চতুর্থ ফিল্মফেয়ার অ্যাওয়ার্ডস (বাংলা) অনুষ্ঠানে ২০১৯ সালে মুক্তিপ্রাপ্ত বাংলা চলচ্চিত্রগুলোকে স্বীকৃতি জানানো হয়েছে। বুধবার রাতে কলকাতার ওয়েস্টিন হোটেলে এই আয়োজনে ঝলমলে শাড়ি পরে অংশ নেন জয়া। তার দিকে ছিল সবার নজর। তার পুরস্কার জয়ের ফলে সেই আলোর বিচ্ছুরণ চারিদিকে আলোকিত করে।

ফিল্মফেয়ার ম্যাগাজিনের অফিসিয়াল টুইটার অ্যাকাউন্টে জয়ার পুরস্কারপ্রাপ্তির খবরটি শেয়ার করেছে। সঙ্গে জুড়ে দেওয়া হয়েছে ‘রবিবার’ ছবির একটি স্থিরচিত্র। ভারতের টাইমস অব ইন্ডিয়ার ই-টাইমসের অফিসিয়াল টুইটার অ্যাকাউন্টও তার এই স্বীকৃতি অর্জনের খবর শেয়ার করেছে।

২০১৮ সালের ফিল্মফেয়ার অ্যাওয়ার্ডসে (বাংলা) কৌশিক গাঙ্গুলির ‘বিসর্জন’ ছবিতে হিন্দু বিধবা পদ্মা চরিত্রে অসামান্য অভিনয়ের সুবাদে সেরা অভিনেত্রীর পুরস্কার ছিনিয়ে নেন জয়া। বাংলাদেশের কোনো অভিনেত্রীর এটাই প্রথম ছিল এই অর্জন। ছবিটির সিক্যুয়েল ‘বিজয়া’ তাকে আবারো এনে দিলো ফিল্মফেয়ারের ‘ব্ল্যাকলেডি’।

এবারের ফিল্মফেয়ার অ্যাওয়ার্ডসে (বাংলা) সমালোচক অভিনেত্রী শাখায় একাই দুটি মনোনয়ন পান জয়া। তার প্রতিদ্বন্দ্বী ছিলেন রাইমা সেন (তারিখ), সোহিনী সরকার (ভিঞ্চি দা), ঈশা সাহা (সোয়েটার) এবং শুভশ্রী গাঙ্গুলি (পরিণীতা)। তবে সমালোচকরা জয়াকেই সবচেয়ে যোগ্য মনে করেছেন।

‘ব্ল্যাকলেডি’ হাতে নেওয়ার পর জয়া বলেন, ‘বিজয়া এবং রবিবার ছবির জন্য এই পুরস্কার ওঠেছে আমার হাতে। দুটোই আমার ভীষণ প্রাণের কাছাকাছি। বিজয়ায় কৌশিক গাঙ্গুলি আমার জন্য যে চরিত্রটি রচনা করেছে তা আমার জীবনের মাইলফলক চরিত্র।

কৌশিক গাঙ্গুলিকে আমার অনেক ভালোবাসা। ছবিটি বাংলাদেশ ও ভারতের ভালোবাসার ফল্গুধারার গল্পই বলে যায়। সেই ধারাতে আমিও বলতে চাই, বাংলাদেশ-ভারত সম্পর্ক খুব সুন্দর থাকুক, দীর্ঘজীবী হোক।’ এরপরই ‘রবিবার’ ছবির সায়নী চরিত্রের কথা বলতে গিয়ে আবেগ তাড়িত জয়া।

কৌশিক গাঙ্গুলি পরিচালিত ‘বিজয়া’ মুক্তি পায় ২০১৯ সালের ৪ জানুয়ারি। এতেও ইছামতি নদীর পাড়ে বাংলাদেশ-ভারত সীমান্তবর্তী এলাকার হিন্দু বিধবা পদ্মার ভূমিকায় দেখা গেছে জয়াকে। নতুন গল্পে বাবার সঙ্গে কলকাতায় যায় পদ্মা।

অন্যদিকে অতনু ঘোষ পরিচালিত ‘রবিবার’ প্রেক্ষাগৃহে আসে ২০১৯ সালের ২৭ ডিসেম্বর। এতে সায়নী চরিত্রে দুর্দান্ত অভিনয় করেছেন জয়া। সমালোচকদের চোখে সেরা চলচ্চিত্র হয়েছে ‘রবিবার’। এছাড়া সেরা শব্দ শাখায়ও পুরস্কৃত হয়েছে এটি।

ফিল্মফেয়ার অ্যাওয়ার্ডসে (বাংলা) ‘আবর্ত’র (২০১৩) জন্য সেরা নবাগতা অভিনেত্রী এবং ‘ঈগলের চোখ’ (২০১৭) ছবির জন্য সেরা অভিনেত্রী শাখায় মনোনয়ন পেয়েছিলেন জয়া।

‘রবিবার’ ছবিতে জয়ার সহশিল্পী প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায় ‘গুমনামি’তে অসামান্য কাজের জন্য সেরা অভিনেতা হয়েছেন। এতে নেতাজি সুভাষ চন্দ্র বোস ও গুমনামি বাবার ভূমিকায় দেখা গেছে তাকে। শিল্প নির্দেশনা শাখায়ও সেরা হয়েছে সৃজিত মুখার্জির এই ছবি। সেরা চলচ্চিত্র পুরস্কারটি পেয়েছে সৃজিতের আরেক নির্মাণ ‘ভিঞ্চি দা’। তিনি ও রুদ্রনীল ঘোষ হয়েছেন সেরা গল্পকার।

সৃজিতের ‘শাহজাহান রিজেন্সি’র জন্য স্বস্তিকা মুখোপাধ্যায় এবং রাজ চক্রবর্তীর ‘পরিণীতা’র জন্য শুভশ্রী গাঙ্গুলি যৌথভাবে সেরা অভিনেত্রীর সম্মান জিতেছেন। ‘শাহজাহান রিজেন্সি’তে ‘কিচ্ছু চাইনি আমি’ গেয়ে শ্রোতাদের হৃদয় ছুঁয়ে ফেলা অভিনেতা অনির্বাণ ভট্টাচার্য সেরা গায়কের পুরস্কার পেয়েছেন।

‘জ্যেষ্ঠপুত্র’র জন্য সেরা পার্শ্ব অভিনেতা হয়েছেন ঋত্বিক চক্রবর্তী। একই ছবির সুবাদে পরিচালক এবং সংলাপ রচয়িতা শাখা দুটিতে সেরা কৌশিক গাঙ্গুলি। জয়ার ‘বিজয়া’র এই নির্মাতা ‘নগরকীর্তন ছবির সুবাদে সেরা চিত্রনাট্যকার স্বীকৃতি পেয়েছেন। তার ‘নগরকীর্তন’-এর জন্য সমালোচকদের চোখে সেরা অভিনেতা হয়েছেন ঋদ্ধি সেন। এছাড়া চিত্রগ্রহণ ও আবহসংগীত শাখায় সেরা হয়েছে ছবিটি।

ভারতের বাংলা ছবির প্রথম সারির অনেক তারকার পা পড়েছে লালগালিচায়। মঞ্চ মাতিয়েছেন অপরাজিতা অধ্যা, খরাজ মুখোপাধ্যায়, প্রিয়াঙ্কা সরকার, মধুমিতা সরকার, ঈশা সাহা, নিকিতা গান্ধী, অ্যাশ কিং, বেনি দয়াল। মীর আফসার আলি, অনির্বাণ ভট্টাচার্য ও অর্পিতা চট্টোপাধ্যায় এই আয়োজন সঞ্চালনা করেন।

ফিল্মফেয়ার অ্যাওয়ার্ডস (বাংলা) ২০২০ বিজয়ী তালিকা

সেরা চলচ্চিত্র : ভিঞ্চি দা, সেরা পরিচালক : কৌশিক গাঙ্গুলি (জ্যেষ্ঠপুত্র) সেরা চলচ্চিত্র (সমালোচক) রবিবার, সেরা অভিনেতা প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায় (গুমনামি), সেরা অভিনেতা (সমালোচক) ঋদ্ধি সেন (নগরকীর্তন), সেরা অভিনেত্রী স্বস্তিকা মুখোপাধ্যায় (শাহজাহান রিজেন্সি), শুভশ্রী গাঙ্গুলি (পরিণীতা) সেরা অভিনেত্রী (সমালোচক) জয়া আহসান (বিজয়া এবং রবিবার), সেরা পার্শ্ব অভিনেতা : ঋত্বিক চক্রবর্তী (জ্যেষ্ঠপুত্র), সেরা পার্শ্ব অভিনেত্রী লিলি চক্রবর্তী (সাঁঝবাতি), সেরা গল্পকার রুদ্রনীল ঘোষ ও সৃজিত মুখার্জি (ভিঞ্চি দা)|

সেরা চিত্রনাট্যকার কৌশিক গাঙ্গুলি (নগরকীর্তন), সেরা সংলাপ রচয়িতা কৌশিক গাঙ্গুলি (জ্যেষ্ঠপুত্র), সেরা নবাগত পরিচালক ইন্দ্রদীপ দাসগুপ্ত (কেদারা), সেরা নবাগতা অভিনেত্রী ঋত্বিকা পাল (কিয়া অ্যান্ড কসমস), সেরা গানের অ্যালবাম সোয়েটার (রণজয় ভট্টাচার্য ও অনিন্দ্য চট্টোপাধ্যায়), সেরা গীতিকার রণজয় ভট্টাচার্য (প্রেমে পড়া বারণ, ছবি: সোয়েটার)|

সেরা গায়ক অনির্বাণ ভট্টাচার্য (কিচ্ছু চাইনি আমি, ছবি: শাহজাহান রিজেন্সি) সেরা গায়িকা লগ্নজিতা চক্রবর্তী (প্রেমে পড়া বারণ, ছবি: সোয়েটার), সেরা আবহসংগীত নগরকীর্তন (প্রবুদ্ধ বন্দ্যোপাধ্যায়), সেরা চিত্রগ্রাহক শীর্ষ রায় (নগরকীর্তন), সেরা সম্পাদনা সুজয় দত্ত রায় (কেদারা), সেরা শিল্প নির্দেশক শিবাজি পাল (গুমনামি), সেরা শব্দ সৌগত বন্দ্যোপাধ্যায় (রবিবার), আজীবন সম্মাননা পেয়েছেন সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায় এবং তরুণ মজুমদার।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category
© All rights reserved © 2017 voiceekattor
কারিগরি সহযোগিতায়: সোহাগ রানা
11223