ঢাকা ১০:২৬ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২১ মে ২০২৪, ৭ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

পর্যটন শিল্পের অবদান জিডিপিতে ১০ শতাংশ উন্নীত করা হবে

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০৬:৪৮:৩৪ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ১৬ জানুয়ারী ২০২১ ২৫৪ বার পড়া হয়েছে
ভয়েস একাত্তর অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

ভয়েস রিপোর্ট

দিন দিন প্রসার করছে পর্যটন শিল্পের। অর্থনৈতিক উন্নয়নের সঙ্গে সঙ্গে মানুষের রুচিবোধ পাল্টেছে। সময় করে সপরিবারের বেড়াতে বেড়িয়ে পড়ারটা এখন নতুন কিছু নয়। বরং বছরের একটা সময় পরিবার-পরিজন নিয়ে হৈ হুলোরে মেতে থাকার আনন্দই আলাদা। তাই দিন দিন পর্যটন শিল্পের প্রসার ঘটছে। এরই ধারাবাহিকতায় পর্যটন শিল্পের অবদান ১০ শতাংশ করার পরিকল্পনা নিয়ে কাজ করছে সংশ্লিষ্ট মন্ত্রক। বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রকের নবনিযুক্ত সচিব মো. মোকাম্মেল হোসেনের মতে সম্মিলিতভাবে কাজ করা হলে জিডিপিতে পর্যটন শিল্পের অবদান ন্যূনতম ১০ শতাংশ উন্নীত করা সম্ভব। বাংলাদেশের অর্থনীতি এখন টেক-অফ স্টেজে উল্লেখ করে সচিব বলেন, দেশের অর্থনৈতিক উন্নয়নে পর্যটন একটি গুরুত্বপূর্ণ শিল্প।

বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নপূরণে ২০৪১ সালে বাংলাদেশকে একটি উন্নত দেশ হিসেবে গড়ে তোলার জন্য বাংলাদেশ পর্যটন করপোরেশনের (বাপক) কর্মকর্তাদের সততা ও নিষ্ঠার সঙ্গে কাজ করার আহ্বান জানান। বাংলাদেশের পর্যটন শিল্পের উন্নয়নে বহু চ্যালেঞ্জ রয়েছে, কিন্তু তা মোকাবিলা করেই আমাদের এগিয়ে যেতে হবে।

১০ জানুয়ারি বঙ্গবন্ধুর স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবসে বাংলাদেশে পর্যটন করপোরেশনের প্রধান কার্যালয় পরিদর্শন ও সংস্থার কর্মকর্তাদের সঙ্গে মতবিনিময় সভায় তিনি এসব কথা তুলে ধরেন। বাংলাদেশ পর্যটন করপোরেশনে চেয়ারম্যান রাম চন্দ্র দাস পর্যটন ভবনে নবনিযুক্ত সচিবকে স্বাগত জানান। মতবিনিময় সভায় বাংলাদেশ পর্যটন করপোরেশনের পক্ষ থেকে সংস্থার সামগ্রিক কার্যক্রম নিয়ে একটি ‘পাওয়ার পয়েন্ট প্রেজেন্টেশন’ উপস্থাপন করেন সংস্থার পরিচালক (বাণিজ্যিক) মো. আব্দুস সামাদ। সংস্থার চেয়ারম্যান বিভিন্ন উন্নয়নমূলক কর্মকাণ্ড এবং চলমান প্রকল্পসমূহ সম্পর্কে সচিবকে বিস্তারিত অবহিত করেন।

সচিব হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙালি বাংলাদেশের স্বাধীনতার মহান স্থপতি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতি গভীর শ্রদ্ধা নিবেদন করেন এবং ১০ জানুয়ারি বঙ্গবন্ধুর স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস’ উপলক্ষে তার অবদানের কথা তুলে ধরেন। তিনি পর্যটন শিল্প থেকে বাংলাদেশের জিডিপিতে অবদান ন্যূনতম ১০ শতাংশ উন্নীতকরণের জন্য সবাইকে সম্মিলিতভাবে কাজ করার আহ্বান জানান। নবনিযুক্ত সচিবকে বাংলাদেশ পর্যটন করপোরেশনের চেয়ারম্যান রাম চন্দ্র দাস ফুলেল শুভেচ্ছা জানানোর পর অফিসার্স অ্যাসোসিয়েশন এবং বাপক কেন্দ্রীয় কর্মচারী ইউনিয়নের পক্ষ থেকে শুভেচ্ছা জানানো হয়।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published.

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

আপলোডকারীর তথ্য
ট্যাগস :

পর্যটন শিল্পের অবদান জিডিপিতে ১০ শতাংশ উন্নীত করা হবে

আপডেট সময় : ০৬:৪৮:৩৪ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ১৬ জানুয়ারী ২০২১

ভয়েস রিপোর্ট

দিন দিন প্রসার করছে পর্যটন শিল্পের। অর্থনৈতিক উন্নয়নের সঙ্গে সঙ্গে মানুষের রুচিবোধ পাল্টেছে। সময় করে সপরিবারের বেড়াতে বেড়িয়ে পড়ারটা এখন নতুন কিছু নয়। বরং বছরের একটা সময় পরিবার-পরিজন নিয়ে হৈ হুলোরে মেতে থাকার আনন্দই আলাদা। তাই দিন দিন পর্যটন শিল্পের প্রসার ঘটছে। এরই ধারাবাহিকতায় পর্যটন শিল্পের অবদান ১০ শতাংশ করার পরিকল্পনা নিয়ে কাজ করছে সংশ্লিষ্ট মন্ত্রক। বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রকের নবনিযুক্ত সচিব মো. মোকাম্মেল হোসেনের মতে সম্মিলিতভাবে কাজ করা হলে জিডিপিতে পর্যটন শিল্পের অবদান ন্যূনতম ১০ শতাংশ উন্নীত করা সম্ভব। বাংলাদেশের অর্থনীতি এখন টেক-অফ স্টেজে উল্লেখ করে সচিব বলেন, দেশের অর্থনৈতিক উন্নয়নে পর্যটন একটি গুরুত্বপূর্ণ শিল্প।

বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নপূরণে ২০৪১ সালে বাংলাদেশকে একটি উন্নত দেশ হিসেবে গড়ে তোলার জন্য বাংলাদেশ পর্যটন করপোরেশনের (বাপক) কর্মকর্তাদের সততা ও নিষ্ঠার সঙ্গে কাজ করার আহ্বান জানান। বাংলাদেশের পর্যটন শিল্পের উন্নয়নে বহু চ্যালেঞ্জ রয়েছে, কিন্তু তা মোকাবিলা করেই আমাদের এগিয়ে যেতে হবে।

১০ জানুয়ারি বঙ্গবন্ধুর স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবসে বাংলাদেশে পর্যটন করপোরেশনের প্রধান কার্যালয় পরিদর্শন ও সংস্থার কর্মকর্তাদের সঙ্গে মতবিনিময় সভায় তিনি এসব কথা তুলে ধরেন। বাংলাদেশ পর্যটন করপোরেশনে চেয়ারম্যান রাম চন্দ্র দাস পর্যটন ভবনে নবনিযুক্ত সচিবকে স্বাগত জানান। মতবিনিময় সভায় বাংলাদেশ পর্যটন করপোরেশনের পক্ষ থেকে সংস্থার সামগ্রিক কার্যক্রম নিয়ে একটি ‘পাওয়ার পয়েন্ট প্রেজেন্টেশন’ উপস্থাপন করেন সংস্থার পরিচালক (বাণিজ্যিক) মো. আব্দুস সামাদ। সংস্থার চেয়ারম্যান বিভিন্ন উন্নয়নমূলক কর্মকাণ্ড এবং চলমান প্রকল্পসমূহ সম্পর্কে সচিবকে বিস্তারিত অবহিত করেন।

সচিব হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙালি বাংলাদেশের স্বাধীনতার মহান স্থপতি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতি গভীর শ্রদ্ধা নিবেদন করেন এবং ১০ জানুয়ারি বঙ্গবন্ধুর স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস’ উপলক্ষে তার অবদানের কথা তুলে ধরেন। তিনি পর্যটন শিল্প থেকে বাংলাদেশের জিডিপিতে অবদান ন্যূনতম ১০ শতাংশ উন্নীতকরণের জন্য সবাইকে সম্মিলিতভাবে কাজ করার আহ্বান জানান। নবনিযুক্ত সচিবকে বাংলাদেশ পর্যটন করপোরেশনের চেয়ারম্যান রাম চন্দ্র দাস ফুলেল শুভেচ্ছা জানানোর পর অফিসার্স অ্যাসোসিয়েশন এবং বাপক কেন্দ্রীয় কর্মচারী ইউনিয়নের পক্ষ থেকে শুভেচ্ছা জানানো হয়।