ঢাকা ০৫:৩০ অপরাহ্ন, রবিবার, ১৪ এপ্রিল ২০২৪, ১ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

পর্যটন নগরী কক্সবাজারের হোটেল সায়মনে বঙ্গবন্ধু কর্নার স্থাপন

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০৭:১৫:২২ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ১৬ জানুয়ারী ২০২১ ২৫৪ বার পড়া হয়েছে
ভয়েস একাত্তর অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

ভয়েস ডিজিটাল ডেস্ক

পর্যটন নগরী কক্সবাজারে বিলাসবহুল হোটেল সায়মন বীচ রিসোর্টে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু কর্নার স্থাপন করা হয়েছে। মুজিব শতবর্ষ উদযাপন কর্মসূচির অংশ হিসেবে ১৩ জানুয়ারি কলাতলী বিচের সায়মন বীচ রিসোর্টে কর্নারটির উদ্বোধন করেন প্রতিষ্ঠানের ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) মাহবুবুর রহমান। ১৯৬৯ সালের হোটেল সায়মনে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সম্মানে আয়োজিত ক্যান্ডেল লাইট ডিনার ও তৎকালীন সময়ে সৈকত এলাকা পরির্দশনের ছবিসহ বিচের একাধিক ছবি প্রদর্শন হচ্ছে বঙ্গবন্ধু কর্নারে।

এসময় মাহবুবুর রহমান বলেন, ‘৬০-এর দশকে কক্সবাজারে পর্যটন সেবায় পথচলা শুরু করে হোটের সায়মন। চট্টগ্রামের ব্যবসায়ী প্রকৌশলী মোশারফ হোসেনের এ উদ্যোগকে সাধুবাদ জানিয়েছিলেন, বাংলাদেশ আপোষহীন নেতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান। সে সময়ে তিনি যখনই কক্সবাজারে এসেছেন তখনই ঝাউতলার হোটের সায়মনে অবস্থান করেছেন। সেই সূত্রে বঙ্গবন্ধু এবং হোটেল সায়মন একে অপরের পরিপূরক। বঙ্গবন্ধু পর তার দুই মেয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এবং শেখ রেহেনাও আমাদের অতিথি হয়ে এসেছেন। তাই বঙ্গবন্ধু পরিবারের সঙ্গে সায়মন হোটেল অবিচ্ছেদ্যে অংশে পরিণত হয়েছে।

মাহবুবুর রহমান আরও বলেন, হোটেল সায়মনে বঙ্গবন্ধুর জন্য আয়োজিত ক্যান্ডেল লাইট ডিনারই প্রকৌশলী মোশারফ হোসেনের রাজনীতির পথচলা শুরু। বঙ্গবন্ধুর আর্দশে উজ্জিবীত হয়ে ৫০ বছরের পথচলায় এমপি মন্ত্রীসহ নানা পদে আদিষ্ট হয়ে দেশের সেবা করেছেন সায়মনের স্বত্বাধিকারী মোশারফ হোসেন। পূর্বের ধারবাহিকতাকে সঙ্গী করে বিশ্বের দীর্ঘতম সমুদ্র সৈকত কক্সবাজারকে বিশ্ব পর্যটনের সঙ্গে সংযুক্ত করতে সৈকতের কলাতলী পয়েন্টে ৬ বছর আগে পাঁচ তারকা মানের সায়মন বীচ রিসোর্টের যাত্রা শুরু।  এমডি মাহবুবুর রহমান বলেন, আমরা বঙ্গবন্ধুর আদর্শ লালন করে সোনার বাংলার প্রতিষ্ঠায় উন্নত পর্যটনশিল্প বিকাশে কাজ করে যাব। কক্সবাজার পৌরসভার বাহারছড়া ঝাউতলাস্থ পুরানো সায়মন এলাকায় নবনির্মিত সায়মন হেরেটেজ ভবনে একটি স্থায়ী অত্যাধুনিক বঙ্গবন্ধু কর্নার নির্মাণাধীন রয়েছে। সেখানে বঙ্গবন্ধু সায়মনে অবস্থানকালীন সময়সহ রাজনৈতিক অঙ্গনের কিছু দুর্লভ আলোকচিত্র স্থাপন করা হবে। যা পর্যটক ও পরবর্তী প্রজন্মের জন্য উন্মুক্ত থাকবে।

বঙ্গবন্ধু কর্ণার উদ্বোধন শেষে মুজিব শতবর্ষ ও সাময়ন বীচ রিসোর্টের ৬ষ্ঠ প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী ও প্রকৌশলী মোশারফ হোসনের জন্মদিন উপলক্ষে কেক কাটার পরে তা এতিমদের মাঝে খাদ্যা বিতরণ করা হয়। একই সঙ্গে কক্সবাজারে আগত পর্যটকদের জন্য বঙ্গবন্ধু কর্নারটি উন্মুক্ত করে দেয়া হয়।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published.

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

আপলোডকারীর তথ্য
ট্যাগস :

পর্যটন নগরী কক্সবাজারের হোটেল সায়মনে বঙ্গবন্ধু কর্নার স্থাপন

আপডেট সময় : ০৭:১৫:২২ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ১৬ জানুয়ারী ২০২১

ভয়েস ডিজিটাল ডেস্ক

পর্যটন নগরী কক্সবাজারে বিলাসবহুল হোটেল সায়মন বীচ রিসোর্টে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু কর্নার স্থাপন করা হয়েছে। মুজিব শতবর্ষ উদযাপন কর্মসূচির অংশ হিসেবে ১৩ জানুয়ারি কলাতলী বিচের সায়মন বীচ রিসোর্টে কর্নারটির উদ্বোধন করেন প্রতিষ্ঠানের ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) মাহবুবুর রহমান। ১৯৬৯ সালের হোটেল সায়মনে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সম্মানে আয়োজিত ক্যান্ডেল লাইট ডিনার ও তৎকালীন সময়ে সৈকত এলাকা পরির্দশনের ছবিসহ বিচের একাধিক ছবি প্রদর্শন হচ্ছে বঙ্গবন্ধু কর্নারে।

এসময় মাহবুবুর রহমান বলেন, ‘৬০-এর দশকে কক্সবাজারে পর্যটন সেবায় পথচলা শুরু করে হোটের সায়মন। চট্টগ্রামের ব্যবসায়ী প্রকৌশলী মোশারফ হোসেনের এ উদ্যোগকে সাধুবাদ জানিয়েছিলেন, বাংলাদেশ আপোষহীন নেতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান। সে সময়ে তিনি যখনই কক্সবাজারে এসেছেন তখনই ঝাউতলার হোটের সায়মনে অবস্থান করেছেন। সেই সূত্রে বঙ্গবন্ধু এবং হোটেল সায়মন একে অপরের পরিপূরক। বঙ্গবন্ধু পর তার দুই মেয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এবং শেখ রেহেনাও আমাদের অতিথি হয়ে এসেছেন। তাই বঙ্গবন্ধু পরিবারের সঙ্গে সায়মন হোটেল অবিচ্ছেদ্যে অংশে পরিণত হয়েছে।

মাহবুবুর রহমান আরও বলেন, হোটেল সায়মনে বঙ্গবন্ধুর জন্য আয়োজিত ক্যান্ডেল লাইট ডিনারই প্রকৌশলী মোশারফ হোসেনের রাজনীতির পথচলা শুরু। বঙ্গবন্ধুর আর্দশে উজ্জিবীত হয়ে ৫০ বছরের পথচলায় এমপি মন্ত্রীসহ নানা পদে আদিষ্ট হয়ে দেশের সেবা করেছেন সায়মনের স্বত্বাধিকারী মোশারফ হোসেন। পূর্বের ধারবাহিকতাকে সঙ্গী করে বিশ্বের দীর্ঘতম সমুদ্র সৈকত কক্সবাজারকে বিশ্ব পর্যটনের সঙ্গে সংযুক্ত করতে সৈকতের কলাতলী পয়েন্টে ৬ বছর আগে পাঁচ তারকা মানের সায়মন বীচ রিসোর্টের যাত্রা শুরু।  এমডি মাহবুবুর রহমান বলেন, আমরা বঙ্গবন্ধুর আদর্শ লালন করে সোনার বাংলার প্রতিষ্ঠায় উন্নত পর্যটনশিল্প বিকাশে কাজ করে যাব। কক্সবাজার পৌরসভার বাহারছড়া ঝাউতলাস্থ পুরানো সায়মন এলাকায় নবনির্মিত সায়মন হেরেটেজ ভবনে একটি স্থায়ী অত্যাধুনিক বঙ্গবন্ধু কর্নার নির্মাণাধীন রয়েছে। সেখানে বঙ্গবন্ধু সায়মনে অবস্থানকালীন সময়সহ রাজনৈতিক অঙ্গনের কিছু দুর্লভ আলোকচিত্র স্থাপন করা হবে। যা পর্যটক ও পরবর্তী প্রজন্মের জন্য উন্মুক্ত থাকবে।

বঙ্গবন্ধু কর্ণার উদ্বোধন শেষে মুজিব শতবর্ষ ও সাময়ন বীচ রিসোর্টের ৬ষ্ঠ প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী ও প্রকৌশলী মোশারফ হোসনের জন্মদিন উপলক্ষে কেক কাটার পরে তা এতিমদের মাঝে খাদ্যা বিতরণ করা হয়। একই সঙ্গে কক্সবাজারে আগত পর্যটকদের জন্য বঙ্গবন্ধু কর্নারটি উন্মুক্ত করে দেয়া হয়।