বুধবার, ২২ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৫:০৮ পূর্বাহ্ন

ঢাকায় পৌঁছালো ৪৫ লাখ ডোজ টিকা

ভয়েস রিপোর্ট
  • Update Time : শনিবার, ৩ জুলাই, ২০২১
  • ৬১ Time View

টিকা গ্রহণের পর শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক। এ সময় তার সঙ্গে ছিলেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আব্দুল মোমেন ও ঢাকায় নিযুক্ত মার্কিন রাষ্ট্রদূত আর্ল মিলার। ছবি: বিদেশন্ত্রক

 ‘হাসিনা সরকারের উদ্যোগ দেশের ৮০শতাংশ মানুষকে টিকার আওতায় আনার পরিকল্পনা’

বহুল প্রত্যাশিত করোনার টিকার একের পর এক চালান এসে পৌঁছাচ্ছে ঢাকায়। শুক্রবার মধ্যরাতে যুক্তরাষ্ট্র এবং চীন থেকে দু’টো বিশেষ উড়োজাহাজে ২২ লাখ ডোজ টিকা এস পৌঁছে ঢাকার হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমান বন্দরে। সকালে এসে পৌছে আরও ২৩ লাখ ডোজ টিকার চালান। সব মিলিয়ে ৪৫ লাখ ডোজ টিকা আসলো ঢাকাঢ।  বাংলাদেশের বিদেশ ও স্বাস্থ্য মন্ত্রক এতথ্য নিশ্চিত করেছে।

যুক্তরাষ্ট্র থেকে মডার্নার টিকা

হোয়াইট হাউজের ঘোষণার প্রেক্ষিতে যুক্তরাষ্ট্রের তৈরি মডার্নার ২৫ লাখ ডোজ টিকা পাচ্ছে বাংলাদেশ। এই ঘোষণা ঢাকায় দেশটির রাষ্ট্রদূত আগেই দিয়েছিলেন। এরই অংশ হিসেবে প্রথম চালানে ঢাকা পৌছালো ১২ লাখ ডোজ টিকা।

শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে যুক্তরাষ্ট্রের টিকা গ্রহণের পর স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক উপস্থিত সাংবাদিকদের বলেন, ১২ লাখ টিকা গ্রহণ করা হয়েছে। শনিবার পৌঁছাবে আরও ১৩ লাখ ডোজ টিকা।

জাহিদ মালেক আরও বলেন, জোরেশোরে গণটিকাদান কর্মসূচি শুরু করার পরও সঠিক সময়ে কাঙ্খিত টিকা না পাওয়ায় তা ধরে রাখা সম্ভব হয়নি। পরিকল্পিতভাবে টিকা কর্মসূচিতে চালাতে গিয়ে হোঁচট খেতে হয়েছে। এসময় স্বাস্থ্যমন্ত্রীর প্রত্যাশা টিকার আর কোনো অভাব হবে না।

আমরা বিভিন্ন রাষ্ট্রের কাছ থেকে বাংলাদেশ টিকা পাচ্ছে। আগামীতে আরও পাবে। ডিসেম্বর নাগাদ ১০ কোটি টিকা হাতে পাবেন এবং যা দিয়ে ৫ কোটি মানুষকে টিকার আওতায় আনা সম্ভব হবে। স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, আগস্ট থেকে সেরামের টিকাও পাওয়া যাবে।

টিকা গ্রহণের পর শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক। এ সময় তার সঙ্গে ছিলেন বিদেশমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন ও ঢাকায় নিযুক্ত মার্কিন রাষ্ট্রদূত আর্ল মিলার।

উল্লেখ্য, গেল ২২ জুন হোয়াইট হাউস বাংলাদেশসহ দক্ষিণ এশিয়ার আট দেশের পাশাপাশি এশিয়ার ১৮টি দেশকে ১ কোটি ৬০ লাখ ডোজ টিকা দেওয়ার কথা ঘোষণা। কোভ্যাক্সের মাধ্যমে বরাদ্দ হওয়া টিকা থেকে বাংলাদেশ মডার্নার তৈরি ২৫ লাখ ডোজ টিকা পাবে। তার অংশ হিসেবে ১২ লাখ ডোজ টিকার প্রথম চালান এসে পৌঁছাল।

চীনের সিনোফার্মের টিকা

অপর দিকে চীনের সিনোফার্মের টিকার ২০ লাখ ডোজের প্রথম চালানটি এদিন মধ্য রাতে ঢাকায় পৌঁছে। ঢাকায় চীনের উপরাষ্ট্রদূত হুয়ালং ইয়ান সংবাদমাধ্যমকে জানান, সিনোফার্মের তৈরি ২০ লাখ টিকা নিয়ে বাংলাদেশ বিমানের দু’টি কার্গো উড়োজাহাজ বেইজিংয়ের স্থানীয় সময় রাত পৌনে ন’টা নাগাদ ঢাকার উদ্দেশে যাত্রা করেছে।
শনিবার মর্ডানার আরও ১৩ লাখ এবং সিনোফার্মার আরও ১০ লাখ টিকা এসে পৌঁছে। তাতে করে মর্ডানা ও সিনোফার্মার মোট ৪৫ লাখ টাকা ঢাকায় পৌঁছে ঢাকায়।

টিকা গ্রহণের সময় বিমানবন্দরে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশের বিদেশ মন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন, স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালিক, ঢাকায় নিযুক্ত মার্কিন রাষ্ট্রদূত আর্ল মিলার, বিদেশ সচিব মাসুদ বিন মোমেন, স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক আবুল বাশার মোহাম্মদ খুরশীদ আলম প্রমুখ।

স্বাস্থ্য মন্ত্রকের ভ্যাকসিন ডেপ্লয়মেন্ট কমিটির সদস্য সচিব ডা. শামসুল হক জানান, সম্প্রতি টিকাদান কর্মসূচির (ইপিআই) ব্যবস্থাপনায় এ টিকা সংরক্ষণ করা হবে। সেখানে সব ব্যবস্থা রয়েছে।

চীনের সঙ্গে বাণিজ্যিক চুক্তির আওতায় কেনা দেড় কোটি ডোজ টিকার প্রথম ২২ লাখ ডোজ টিকার চালান এটি। এর আগে দুই দফায় চীন ১১ লাখ টিকা উপহার হিসেবে বাংলাদেশকে দিয়েছে।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category
© All rights reserved © 2017 voiceekattor
কারিগরি সহযোগিতায়: সোহাগ রানা
11223