ঢাকা ০৭:৪৬ অপরাহ্ন, শনিবার, ২০ এপ্রিল ২০২৪, ৭ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ক্যানসার রুখবে গো-মাংস!

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০৮:৩৪:৩২ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৯ ডিসেম্বর ২০২৩ ৯২ বার পড়া হয়েছে
ভয়েস একাত্তর অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

 

যুক্তরাষ্ট্রের শিকাগো বিশ্ববিদ্যালয়ের বায়োলজিক্যাল সায়েন্সেস বিভাগের একদল গবেষক দাবি করেছেন, লাল মাংসে থাকা ‘ট্রান্স ভ্যাকসসেনিক অ্যাসিড (টিভিএ)’ নামক উপাদানটি টিউমারের অনুপ্রবেশ ঠেকানো এবং ক্যানসার কোষগুলোকে মেরে ফেলার জন্য মানবদেহের সিডি৮+ (টি সেল) কোষের সক্ষমতা বাড়ায়

 

ভয়েস হেলথ ডেস্ক

‘রেড মিট’ তথা লাল মাংস খাওয়ার পক্ষে বিপক্ষে নানা অপপ্রচার রয়েছে। যে কারণে অনেকের মাংস খাদ্যতালিকা থেকে ছাইটাই হয়েছে গরুর মাংস। কেউ কেউ এই মাংস খাবেন কিনা, তা নিয়েও ভোগেন দ্বেধা দ্বন্দ্বে।

সমাজের যখন এমন ভাবনায় দিন কাটছে, তখনই গরু এবং ভেড়ার মতো তৃণভোজী প্রাণীর মাংস এবং দুগ্ধজাত পণ্য নিয়ে সামনে এলো নতুন তথ্য।

বিশেষজ্ঞরা জানাচ্ছেন, ক্যানসারের ক্লিনিক্যাল চিকিৎসায় রোগীর জন্য সম্পূরক পুষ্টি হিসেবে গরু ও ভেড়ার মাংস এবং দুগ্ধজাত পণ্যে থাকা টিভিএ উপাদানটি ব্যবহার করা যেতে পারে।

যুক্তরাষ্ট্রের শিকাগো বিশ্ববিদ্যালয়ের বায়োলজিক্যাল সায়েন্সেস বিভাগের একদল গবেষকের দাবি, লাল মাংসে থাকা ‘ট্রান্স ভ্যাকসসেনিক অ্যাসিড (টিভিএ)’ নামক উপাদানটি টিউমারের অনুপ্রবেশ ঠেকানো এমনকি ক্যানসার কোষগুলোকে মেরে ফেলার জন্য মানবদেহের সিডি৮+ (টি সেল) কোষের সক্ষমতা বাড়ায়। সিবিএস নিউজের এই তথ্য জানিয়েছে।

তথ্য মতে, সম্প্রতি নেচার সাময়িকীতে প্রকাশিত এ সংক্রান্ত একটি গবেষণা প্রকাশ পেয়েছে। তার উদ্ধৃতি দিয়ে প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, রক্তে উচ্চ মাত্রায় টিভিএ সঞ্চালনকারী রোগীরা ইমিউনোথেরাপিতে ভালো সাড়া দেয়। ফলে ক্যানসারের ক্লিনিক্যাল চিকিৎসায় রোগীর জন্য সম্পূরক পুষ্টি হিসেবে গরু, ভেড়ার মাংস এবং দুগ্ধজাত পণ্যে থাকা টিভিএ উপাদানটি ব্যবহার করা যেতে পারে।

আরও জানা গিয়েছে, নতুন এ গবেষণার জ্যেষ্ঠ লেখক এবং শিকাগো ইউনিভার্সিটির প্রফেসর জিং চেন বলেছেন, খাদ্য এবং মানুষের স্বাস্থ্যের মধ্যে সম্পর্ক বোঝার জন্য অনেক গবেষণা হয়েছে।

মানুষ একাধারে নানা ধরনের খাবার গ্রহণের কারণে এ সম্পর্কিত অন্তর্নিহিত প্রক্রিয়ার পাঠোদ্ধার করা খুবই কঠিন। কিন্তু আমরা যদি শুধুমাত্র খাদ্য থেকে প্রাপ্ত পুষ্টি এবং বিপাকীয় উপাদানগুলোর দিকে নজর দেই, তাহলে বুঝতে পারি কীভাবে এগুলো রোগবালাইকে প্রভাবিত করে।

চেন আরও জানান, এ ক্ষেত্রে শুধুমাত্র ক্যানসার প্রতিরোধী মানবদেহের ‘টি সেলের’ ওপর দৃষ্টি রেখে এটিকে সক্রিয় ও শক্তিশালী করতে সক্ষম এমন পুষ্টি খুঁজতে গিয়ে টিভিএ উপাদানটি পাওয়া গিয়েছে।

গবেষণায় পরামর্শ দেয়া হয়েছে যে, টি-সেল ভিত্তিক ক্যানসারের চিকিৎসায় সহায়তা করার জন্য খাদ্যতালিকায় টিভিএ উপাদানটিকে সম্পূরক হিসেবে ব্যবহার করা যেতে পারে।

এক্ষত্রে জিং চেন সতর্ক করে বলেছেন, অত্যধিক লাল মাংস এবং দুগ্ধজাত খাবার স্বাস্থ্যের ওপর ক্ষতিকর প্রভাব ফেলার প্রমাণ রয়েছে। তাই এ গবেষণাটিকে অতিরিক্ত গরুর মাংস খাওয়ার অজুহাত হিসেবে নেয়া ঠিক হবে না।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published.

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

আপলোডকারীর তথ্য

ক্যানসার রুখবে গো-মাংস!

আপডেট সময় : ০৮:৩৪:৩২ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৯ ডিসেম্বর ২০২৩

 

যুক্তরাষ্ট্রের শিকাগো বিশ্ববিদ্যালয়ের বায়োলজিক্যাল সায়েন্সেস বিভাগের একদল গবেষক দাবি করেছেন, লাল মাংসে থাকা ‘ট্রান্স ভ্যাকসসেনিক অ্যাসিড (টিভিএ)’ নামক উপাদানটি টিউমারের অনুপ্রবেশ ঠেকানো এবং ক্যানসার কোষগুলোকে মেরে ফেলার জন্য মানবদেহের সিডি৮+ (টি সেল) কোষের সক্ষমতা বাড়ায়

 

ভয়েস হেলথ ডেস্ক

‘রেড মিট’ তথা লাল মাংস খাওয়ার পক্ষে বিপক্ষে নানা অপপ্রচার রয়েছে। যে কারণে অনেকের মাংস খাদ্যতালিকা থেকে ছাইটাই হয়েছে গরুর মাংস। কেউ কেউ এই মাংস খাবেন কিনা, তা নিয়েও ভোগেন দ্বেধা দ্বন্দ্বে।

সমাজের যখন এমন ভাবনায় দিন কাটছে, তখনই গরু এবং ভেড়ার মতো তৃণভোজী প্রাণীর মাংস এবং দুগ্ধজাত পণ্য নিয়ে সামনে এলো নতুন তথ্য।

বিশেষজ্ঞরা জানাচ্ছেন, ক্যানসারের ক্লিনিক্যাল চিকিৎসায় রোগীর জন্য সম্পূরক পুষ্টি হিসেবে গরু ও ভেড়ার মাংস এবং দুগ্ধজাত পণ্যে থাকা টিভিএ উপাদানটি ব্যবহার করা যেতে পারে।

যুক্তরাষ্ট্রের শিকাগো বিশ্ববিদ্যালয়ের বায়োলজিক্যাল সায়েন্সেস বিভাগের একদল গবেষকের দাবি, লাল মাংসে থাকা ‘ট্রান্স ভ্যাকসসেনিক অ্যাসিড (টিভিএ)’ নামক উপাদানটি টিউমারের অনুপ্রবেশ ঠেকানো এমনকি ক্যানসার কোষগুলোকে মেরে ফেলার জন্য মানবদেহের সিডি৮+ (টি সেল) কোষের সক্ষমতা বাড়ায়। সিবিএস নিউজের এই তথ্য জানিয়েছে।

তথ্য মতে, সম্প্রতি নেচার সাময়িকীতে প্রকাশিত এ সংক্রান্ত একটি গবেষণা প্রকাশ পেয়েছে। তার উদ্ধৃতি দিয়ে প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, রক্তে উচ্চ মাত্রায় টিভিএ সঞ্চালনকারী রোগীরা ইমিউনোথেরাপিতে ভালো সাড়া দেয়। ফলে ক্যানসারের ক্লিনিক্যাল চিকিৎসায় রোগীর জন্য সম্পূরক পুষ্টি হিসেবে গরু, ভেড়ার মাংস এবং দুগ্ধজাত পণ্যে থাকা টিভিএ উপাদানটি ব্যবহার করা যেতে পারে।

আরও জানা গিয়েছে, নতুন এ গবেষণার জ্যেষ্ঠ লেখক এবং শিকাগো ইউনিভার্সিটির প্রফেসর জিং চেন বলেছেন, খাদ্য এবং মানুষের স্বাস্থ্যের মধ্যে সম্পর্ক বোঝার জন্য অনেক গবেষণা হয়েছে।

মানুষ একাধারে নানা ধরনের খাবার গ্রহণের কারণে এ সম্পর্কিত অন্তর্নিহিত প্রক্রিয়ার পাঠোদ্ধার করা খুবই কঠিন। কিন্তু আমরা যদি শুধুমাত্র খাদ্য থেকে প্রাপ্ত পুষ্টি এবং বিপাকীয় উপাদানগুলোর দিকে নজর দেই, তাহলে বুঝতে পারি কীভাবে এগুলো রোগবালাইকে প্রভাবিত করে।

চেন আরও জানান, এ ক্ষেত্রে শুধুমাত্র ক্যানসার প্রতিরোধী মানবদেহের ‘টি সেলের’ ওপর দৃষ্টি রেখে এটিকে সক্রিয় ও শক্তিশালী করতে সক্ষম এমন পুষ্টি খুঁজতে গিয়ে টিভিএ উপাদানটি পাওয়া গিয়েছে।

গবেষণায় পরামর্শ দেয়া হয়েছে যে, টি-সেল ভিত্তিক ক্যানসারের চিকিৎসায় সহায়তা করার জন্য খাদ্যতালিকায় টিভিএ উপাদানটিকে সম্পূরক হিসেবে ব্যবহার করা যেতে পারে।

এক্ষত্রে জিং চেন সতর্ক করে বলেছেন, অত্যধিক লাল মাংস এবং দুগ্ধজাত খাবার স্বাস্থ্যের ওপর ক্ষতিকর প্রভাব ফেলার প্রমাণ রয়েছে। তাই এ গবেষণাটিকে অতিরিক্ত গরুর মাংস খাওয়ার অজুহাত হিসেবে নেয়া ঠিক হবে না।