ঢাকা ০৬:২৪ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৩০ মে ২০২৪, ১৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম ::
বিক্রয় উন্মোচন করলো প্রপার্টি বেচাকেনার তথ্যভিত্তিক ওয়েবসাইট ‘প্রপার্টি গাইড বাংলাদেশ শীর্ষস্থান হারালেন সাকিব, র‌্যাংকিংয়ে হৃদয়-তানজিদ-মুস্তাফিজের উন্নতি ত্বক ও চুলের যত্নে নিম পাতার ব্যবহার এপেক্সে নারী-পুরুষ নিয়োগ, কর্মস্থল ঢাকা আড়ংয়ে নারী-পুরুষ নিয়োগ, কর্মস্থল ঢাকা রোহিঙ্গাদের জন্য বিশ্বব্যাংক ৭০০ মিলিয়ন ডলার দিচ্ছে দক্ষিণ কোরিয়ায় ‘মলমূত্র’ বহনকারী বেলুন পাঠাচ্ছে উত্তর কোরিয়া উপজেলা পরিষদ নির্বাচন: তৃতীয় ধাপে বিজয়ী যারা প্রধানমন্ত্রী আগামীকাল রেমালে ক্ষতিগ্রস্ত পটুয়াখালীর কলাপাড়া পরিদর্শন করবেন বাংলাদেশি ব্যবসায়ীর বিদেশে বিনোয়োগের ৭০% ভারতে, কেন্দ্রীয় ব্যাংকের তথ্য

কভিড দুনিয়া ছেড়ে ঐ আকাশেই চলে গেলেন চন্দ্রজয়ী কলিন্স!

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ১১:৫৪:৫০ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৯ এপ্রিল ২০২১ ১৩২ বার পড়া হয়েছে
ভয়েস একাত্তর অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

‘১৯৬৯ সালের ২০ জুলাই (যুক্তরাষ্ট্রের স্থানীয় সময়)  ৯টা ৫৬ মিনিটে (০২৫৬ জিএমটিতে) যুক্তরাষ্ট্রের মহাকাশযান অ্যাপোলো-১১ থেকে চন্দ্রযান ঈগল চাঁদের ট্রাঙ্কুইলিটি বেইসে অবতরণ করে’

ভয়েস ডিজিটাল ডেস্ক

সঙ্গী নিল আর্মস্ট্রং আগেই চলে গেছেন। এবারে অস্থির কভিড দুনিয়া ছেড়ে ঐ নীল আকাশেই চলে গেলেন মাইকেল কলিন্স। চন্দ্রজয়ী অ্যাপোলো-১১ পৃথিবীকে চন্দ্রজয়ের এক নতুন বার্তা দিয়েছিলো। দুনিয়া কাঁপানো বার্তায় মানবকল্যাণে বিজ্ঞানের মাথা উচু মাহাত্মের কথাও দুনিয়ার মানুষকে এগিয়ে সাহায্য করলো।

মিশনের গুরুত্বপূর্ণ তিন সদস্যের একজন নিল আর্মস্ট্রং আগেই চলে গেছেন। এবারে গেলেন পৃথিবীর মায়া কাটিয়ে কলিন্সও চলে গেলেন।

যুক্তরাষ্ট্রের চন্দ্রজয়ী মানব ৯০ বছর বয়সে বুধবার মারা গেছেন। মৃত্যুকালে পরিবারের সদস্যরা পাশেই ছিলেন। তার পরিবারের তরফে দেওয়া বিবৃতিতে জানানো হয়েছে, ক্যান্সারের কাছে হার মানতে হয়েছে কলিন্সকে।

বিবৃতিতে কলিন্সের পরিবার বলেছে, এই অভিযাত্রী সব সময় চ্যালেঞ্জ নিতে পছন্দ করতেন। জীবনের শেষ চ্যালেঞ্জও তিনি একইভাবে নিয়েছিলেন।

১৯৬৯ সালের ২০ জুলাই (যুক্তরাষ্ট্রের স্থানীয় সময়) যুক্তরাষ্ট্রের মহাকাশযান অ্যাপোলো-১১ থেকে চন্দ্রযান ঈগল চাঁদের ট্রাঙ্কুইলিটি বেইসে অবতরণ করে।

পৃথিবীর জন্য ঐতিহাসিক সেই ক্ষণে আর্মস্ট্রং ও অলড্রিন চাঁদে নামলেও মাইকেল কলিন্সের নামা হয়নি।

যুক্তরাষ্ট্রের কেন্দ্রীয় সময় ৯টা ৫৬ মিনিটে (০২৫৬ জিএমটিতে) নিল আর্মস্ট্রং প্রথম মানুষ যিনি চাঁদের বুকে পা রেখে ইতিহাস সৃষ্টি করেন। এর কিছুক্ষণের তার সঙ্গী হন বাজ অলড্রিন। তাদের অপরসঙ্গী মাইকেল কলিন্স মূল যানে থেকে অভিযানের এক অংশ নিয়ন্ত্রণের দায়িত্ব পালন করছিলেন।

চন্দ্রবিজয়ের অর্ধ শতক উপলক্ষে ২০১৯ সালের ১৬ জুলাই ফ্লোরিডার কেনেডি স্পেস সেন্টারের এক অনুষ্ঠানে যোগ দিয়েছিলেন কলিন্স। যেখানে থেকে তাদের ঐতিহাসিক মিশন শুরু হয়েছিল। সেই দিনটি স্মরণ করে কলিন্স বলেছিলেন, রকেটের যাত্রার শুরুতেই একটি ধাক্কা (শকওয়েভ) লাগল।

পুরো শরীর যেন দুলছিল। এটা অন্য রকম এক অভিজ্ঞতা .. এটা বোঝার জন্য যে আসলে শক্তি বলতে কী বোঝায়।

অভিযাত্রীরা তাদের কাঁধে গোটা বিশ্বের ভার অনুভব করে। আমরা জানতাম, পৃথিবীর সবাই আমাদের দিকে তাকিয়ে আছে, সে শত্রু হোক কিংবা মিত্র।

কলিন্স মারা যাওয়ায় এখন চন্দ্রজয়ী মানবদের মধ্যে ৯১ বছর বয়সী বাজ অলড্রিন কেবল বেঁচে আছেন। নিল আর্মস্ট্রং আগেই মারা গেছেন।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published.

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

আপলোডকারীর তথ্য
ট্যাগস :

কভিড দুনিয়া ছেড়ে ঐ আকাশেই চলে গেলেন চন্দ্রজয়ী কলিন্স!

আপডেট সময় : ১১:৫৪:৫০ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৯ এপ্রিল ২০২১

‘১৯৬৯ সালের ২০ জুলাই (যুক্তরাষ্ট্রের স্থানীয় সময়)  ৯টা ৫৬ মিনিটে (০২৫৬ জিএমটিতে) যুক্তরাষ্ট্রের মহাকাশযান অ্যাপোলো-১১ থেকে চন্দ্রযান ঈগল চাঁদের ট্রাঙ্কুইলিটি বেইসে অবতরণ করে’

ভয়েস ডিজিটাল ডেস্ক

সঙ্গী নিল আর্মস্ট্রং আগেই চলে গেছেন। এবারে অস্থির কভিড দুনিয়া ছেড়ে ঐ নীল আকাশেই চলে গেলেন মাইকেল কলিন্স। চন্দ্রজয়ী অ্যাপোলো-১১ পৃথিবীকে চন্দ্রজয়ের এক নতুন বার্তা দিয়েছিলো। দুনিয়া কাঁপানো বার্তায় মানবকল্যাণে বিজ্ঞানের মাথা উচু মাহাত্মের কথাও দুনিয়ার মানুষকে এগিয়ে সাহায্য করলো।

মিশনের গুরুত্বপূর্ণ তিন সদস্যের একজন নিল আর্মস্ট্রং আগেই চলে গেছেন। এবারে গেলেন পৃথিবীর মায়া কাটিয়ে কলিন্সও চলে গেলেন।

যুক্তরাষ্ট্রের চন্দ্রজয়ী মানব ৯০ বছর বয়সে বুধবার মারা গেছেন। মৃত্যুকালে পরিবারের সদস্যরা পাশেই ছিলেন। তার পরিবারের তরফে দেওয়া বিবৃতিতে জানানো হয়েছে, ক্যান্সারের কাছে হার মানতে হয়েছে কলিন্সকে।

বিবৃতিতে কলিন্সের পরিবার বলেছে, এই অভিযাত্রী সব সময় চ্যালেঞ্জ নিতে পছন্দ করতেন। জীবনের শেষ চ্যালেঞ্জও তিনি একইভাবে নিয়েছিলেন।

১৯৬৯ সালের ২০ জুলাই (যুক্তরাষ্ট্রের স্থানীয় সময়) যুক্তরাষ্ট্রের মহাকাশযান অ্যাপোলো-১১ থেকে চন্দ্রযান ঈগল চাঁদের ট্রাঙ্কুইলিটি বেইসে অবতরণ করে।

পৃথিবীর জন্য ঐতিহাসিক সেই ক্ষণে আর্মস্ট্রং ও অলড্রিন চাঁদে নামলেও মাইকেল কলিন্সের নামা হয়নি।

যুক্তরাষ্ট্রের কেন্দ্রীয় সময় ৯টা ৫৬ মিনিটে (০২৫৬ জিএমটিতে) নিল আর্মস্ট্রং প্রথম মানুষ যিনি চাঁদের বুকে পা রেখে ইতিহাস সৃষ্টি করেন। এর কিছুক্ষণের তার সঙ্গী হন বাজ অলড্রিন। তাদের অপরসঙ্গী মাইকেল কলিন্স মূল যানে থেকে অভিযানের এক অংশ নিয়ন্ত্রণের দায়িত্ব পালন করছিলেন।

চন্দ্রবিজয়ের অর্ধ শতক উপলক্ষে ২০১৯ সালের ১৬ জুলাই ফ্লোরিডার কেনেডি স্পেস সেন্টারের এক অনুষ্ঠানে যোগ দিয়েছিলেন কলিন্স। যেখানে থেকে তাদের ঐতিহাসিক মিশন শুরু হয়েছিল। সেই দিনটি স্মরণ করে কলিন্স বলেছিলেন, রকেটের যাত্রার শুরুতেই একটি ধাক্কা (শকওয়েভ) লাগল।

পুরো শরীর যেন দুলছিল। এটা অন্য রকম এক অভিজ্ঞতা .. এটা বোঝার জন্য যে আসলে শক্তি বলতে কী বোঝায়।

অভিযাত্রীরা তাদের কাঁধে গোটা বিশ্বের ভার অনুভব করে। আমরা জানতাম, পৃথিবীর সবাই আমাদের দিকে তাকিয়ে আছে, সে শত্রু হোক কিংবা মিত্র।

কলিন্স মারা যাওয়ায় এখন চন্দ্রজয়ী মানবদের মধ্যে ৯১ বছর বয়সী বাজ অলড্রিন কেবল বেঁচে আছেন। নিল আর্মস্ট্রং আগেই মারা গেছেন।