ঢাকা ১০:১৫ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২১ মে ২০২৪, ৭ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

একুশের পর এবারে নারীসমাজের সম্মানে ‘শিল্পী বিশ্বাসে’র নতুন গান

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০৪:১৯:২২ অপরাহ্ন, বুধবার, ২ মার্চ ২০২২ ১৮৯ বার পড়া হয়েছে
ভয়েস একাত্তর অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকা

অমর একুশে ফেব্রুয়ারি ভাষা দিবস উপলক্ষ্যে অসাধারণ গান নিয়ে হাজির হয়েছিলেন গায়ীকা শিল্পী বিশ্বাস। এবারে আন্তর্জাতিক নারী দিবস উপলক্ষ্যে তিনি গেয়েছেন আরও একটি ব্যতিক্রমী গান। ৮ মার্চ নারী দিবসে গানটি প্রকাশ করা হবে। বিশ্বের নারী সমাজকে সম্মান জানিয়ে বাংলাদেশেও দিনটি নানা কর্মসূচির মধ্য দিয়ে বিশেষ ভাবে পালিত হয়ে আসছে।

নববর্ষের শুভেচ্ছা বার্তায় রোমান ক্যাথলিক ধর্মগুরু পোপ ফ্রান্সিস নারীর বিরুদ্ধে নির্যাতন বন্ধের আহ্বান জানিয়ে বলেছেন ‘নারীকে আঘাত করা মানে ঈশ্বরকে অপমান করা’। সন্তান ধারণ থেকে লালন পালনের মধ্য দিয়ে সমাজগঠনে মায়েদের ভূমিকাই মুখ্য। তাই ঈশ্বরের সঙ্গে মায়ের তুলনা যথার্থ। বিশ্বের মায়েদের সম্মান জানাতে ৮ মার্চ আন্তর্জাতিক নারী দিবস পালিত হয়ে আসছে।

দেশে দেশে নানা ভাষাভাষীর মানুষের বসবাস থাকলেও সুরের কোন মানচিত্র নেই। মায়ের ভাষার সুরে বিশ্বের নারীদের সম্মানে ব্যতিক্রমী একটি গান নিয়ে এবারে নারী দিবসে আসছেন নন্দিত গায়িকা ‘শিল্পী বিশ্বাস’। ১৯৭১ সালে বর্বর পাকিস্তানি হানাদার বাহিনীর বিরুদ্ধে বাংলার মানুষ ঝাপিয়ে পরে মুক্তিযুদ্ধে। ন’মাসের রক্ত ক্ষয়ী যুদ্ধে ৩০ লাখ শহীদ এবং প্রায় চার লাখ নারীর সম্ভ্রমের বিনিময়ে অর্জিত হয় লালসবুজে খচিত পতাকা।

গুরু বিশিষ্ট সঙ্গীতজ্ঞ সুজিত মোস্তফার সঙ্গে গায়ীকা শিল্পী বিশ্বাস

কুখ্যাত পাকিস্তানি হানাদার বাহিনী এবং তাদের দোসর দ্বারা চার লাখ নারী ধর্ষিত হন। ১৯৭১ সালের ২২ ডিসেম্বর বাংলাদেশ সরকার যুদ্ধকালীন সময়ে ধর্ষিত নারীদের বীরঙ্গনা খেতাবে ভূষিত করেন বাংলাদেশের অবিসংবাদিত নেতা জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান। ‘পাকিস্তান সেনাবাহিনীর হাতে নির্যাতিত নারীদের যথাযোগ্য সম্মান ও মর্যাদা’ দেবার জন্য সাধারণ মানুষের প্রতি আহ্বান জানান এবং বীরাঙ্গনাদেরকে নিজের মেয়ে হিসেবে আখ্যায়িত করেন।

আন্তর্জাতিক নারী দিবসকে দারণ করে এক মর্মস্পর্শী পটভূমিকে সামনে রেখে গানটি লিখেছেন কবি মোস্তফা আনোয়ার স্বপন। পেশায় যিনি একজন পদার্থবিজ্ঞানী। গানটির সুর করেছেন বিশিষ্ট সঙ্গীতজ্ঞ সুজিত মোস্তফা। সঙ্গীত পরিচালনা করেছেন প্রতিভাবান পরিচালক রোজেন রহমান। শিল্পী বিশ্বাস মিউজিক ইউটিউব চ্যানেলে গানটি অগনন শ্রোতার জন্য উন্মুক্ত করা হবে ৮ই মার্চ আন্তর্জাতিক নারী দিবসে। শত সমস্যাকে পাশ কাটিয়ে অবলীলায় এগিয়ে চলা গায়ীকা শিল্পী বিশ্বাস। সঙ্গীতকে ঘিরেই যার ঘরবসতি। সুরের জগতে ভেসে বেড়াতে চান তিনি।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published.

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

আপলোডকারীর তথ্য

একুশের পর এবারে নারীসমাজের সম্মানে ‘শিল্পী বিশ্বাসে’র নতুন গান

আপডেট সময় : ০৪:১৯:২২ অপরাহ্ন, বুধবার, ২ মার্চ ২০২২

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকা

অমর একুশে ফেব্রুয়ারি ভাষা দিবস উপলক্ষ্যে অসাধারণ গান নিয়ে হাজির হয়েছিলেন গায়ীকা শিল্পী বিশ্বাস। এবারে আন্তর্জাতিক নারী দিবস উপলক্ষ্যে তিনি গেয়েছেন আরও একটি ব্যতিক্রমী গান। ৮ মার্চ নারী দিবসে গানটি প্রকাশ করা হবে। বিশ্বের নারী সমাজকে সম্মান জানিয়ে বাংলাদেশেও দিনটি নানা কর্মসূচির মধ্য দিয়ে বিশেষ ভাবে পালিত হয়ে আসছে।

নববর্ষের শুভেচ্ছা বার্তায় রোমান ক্যাথলিক ধর্মগুরু পোপ ফ্রান্সিস নারীর বিরুদ্ধে নির্যাতন বন্ধের আহ্বান জানিয়ে বলেছেন ‘নারীকে আঘাত করা মানে ঈশ্বরকে অপমান করা’। সন্তান ধারণ থেকে লালন পালনের মধ্য দিয়ে সমাজগঠনে মায়েদের ভূমিকাই মুখ্য। তাই ঈশ্বরের সঙ্গে মায়ের তুলনা যথার্থ। বিশ্বের মায়েদের সম্মান জানাতে ৮ মার্চ আন্তর্জাতিক নারী দিবস পালিত হয়ে আসছে।

দেশে দেশে নানা ভাষাভাষীর মানুষের বসবাস থাকলেও সুরের কোন মানচিত্র নেই। মায়ের ভাষার সুরে বিশ্বের নারীদের সম্মানে ব্যতিক্রমী একটি গান নিয়ে এবারে নারী দিবসে আসছেন নন্দিত গায়িকা ‘শিল্পী বিশ্বাস’। ১৯৭১ সালে বর্বর পাকিস্তানি হানাদার বাহিনীর বিরুদ্ধে বাংলার মানুষ ঝাপিয়ে পরে মুক্তিযুদ্ধে। ন’মাসের রক্ত ক্ষয়ী যুদ্ধে ৩০ লাখ শহীদ এবং প্রায় চার লাখ নারীর সম্ভ্রমের বিনিময়ে অর্জিত হয় লালসবুজে খচিত পতাকা।

গুরু বিশিষ্ট সঙ্গীতজ্ঞ সুজিত মোস্তফার সঙ্গে গায়ীকা শিল্পী বিশ্বাস

কুখ্যাত পাকিস্তানি হানাদার বাহিনী এবং তাদের দোসর দ্বারা চার লাখ নারী ধর্ষিত হন। ১৯৭১ সালের ২২ ডিসেম্বর বাংলাদেশ সরকার যুদ্ধকালীন সময়ে ধর্ষিত নারীদের বীরঙ্গনা খেতাবে ভূষিত করেন বাংলাদেশের অবিসংবাদিত নেতা জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান। ‘পাকিস্তান সেনাবাহিনীর হাতে নির্যাতিত নারীদের যথাযোগ্য সম্মান ও মর্যাদা’ দেবার জন্য সাধারণ মানুষের প্রতি আহ্বান জানান এবং বীরাঙ্গনাদেরকে নিজের মেয়ে হিসেবে আখ্যায়িত করেন।

আন্তর্জাতিক নারী দিবসকে দারণ করে এক মর্মস্পর্শী পটভূমিকে সামনে রেখে গানটি লিখেছেন কবি মোস্তফা আনোয়ার স্বপন। পেশায় যিনি একজন পদার্থবিজ্ঞানী। গানটির সুর করেছেন বিশিষ্ট সঙ্গীতজ্ঞ সুজিত মোস্তফা। সঙ্গীত পরিচালনা করেছেন প্রতিভাবান পরিচালক রোজেন রহমান। শিল্পী বিশ্বাস মিউজিক ইউটিউব চ্যানেলে গানটি অগনন শ্রোতার জন্য উন্মুক্ত করা হবে ৮ই মার্চ আন্তর্জাতিক নারী দিবসে। শত সমস্যাকে পাশ কাটিয়ে অবলীলায় এগিয়ে চলা গায়ীকা শিল্পী বিশ্বাস। সঙ্গীতকে ঘিরেই যার ঘরবসতি। সুরের জগতে ভেসে বেড়াতে চান তিনি।