ঢাকা ১০:৪৭ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২১ মে ২০২৪, ৭ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

এই কান্নার শেষ কোথায় ?

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০৫:২৮:১৮ অপরাহ্ন, সোমবার, ২৬ এপ্রিল ২০২১ ২১৯ বার পড়া হয়েছে
ভয়েস একাত্তর অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

ঋদ্ধিমান

চীনের উহান প্রদেশ থেকে ২০১৯ সালের শেষ প্রান্তে অবির্ভাব হওয়া করোনা ভাইরাসটি গোটা দুনিয়া কাঁপিয়ে চলেছে। ২০২০ সালের গোড়ার দিকে অর্থাৎ মার্চ মাসে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (হু) এর সংস্কার করে। তারপর থেকে কভিড-১৯ নামে বিধ্বংসী হয়ে ওঠে। গত বছর কমসংখ্যক প্রাণ বদের খবর মেলে এশিয়ায়। কিন্তু ২১-এ নানা স্থানে নানা নামের পরিচিত হতে থাকে বিজ্ঞানিদের কাছে। পৃথিবীর তামাম শক্তি অচেনা-অজানা ভাইরাসটি কাছে পরাজিত।

এবারে ভারতে ছড়িয়ে পড়া নতুন ভ্যারিয়েন্ট অর্থাৎ বিজ্ঞানিরা যার নাম দিয়েছেন, ‘বেঙ্গল ভ্যারিয়েন্ট’। এটি মূলত পশ্চিমবঙ্গে ব্যাপক আকার ধারণ করেছে। আর গোটা বিশ্ব ভারতের দিকে তাকিয়ে রয়েছে কাতর দৃষ্টিতে। সৎকারের বিষয়টি পৌছে গিয়েছে গণচিতায়। চারিদিকে হাহাকার! মানব-জীবনের এমনি পতনতো কাম্য হতে পারে না।

বৈশ্বিক দুঃসময়ে বিশ্ব যেন হতবাক! মানুষের কি অন্যায় বলতে পারেন। এতটা বিস্ময়কর পরিস্থিতির জন্ম দিতে পারে-একটি ভাইরাস। যে নাকী আপনজনের স্পর্শ থেকেও বঞ্চিত করে গর্বধারীনি-ঔরষজাতের শেষকৃত্য থেকে!

শ্বাস দিয়েও স্বামীকে বাঁচানো গেলো না!

স্মরণকালের অক্সিজেন সংকটে পড়েছে ভারত। অক্সিজেনের অভাবে হাসপাতাল পৌছানোর আগেই মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়ছে মানুষ। মানবজীবনের যে এতোটুকু মূল্যহীন হয়ে পড়েছে।

উত্তরপ্রদেশের আগ্রার আওয়াজ এলাকার বাসিন্দা রেনু সিংহলের স্বামীর নাম রবি সিংহল (৪৭)। যাকে বাঁচাতে তিনি সরোজিনী নাইডু মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যাচ্ছিলেন কভিড আক্রান্ত স্বামীকে। অ্যাম্বুলেন্স নেই। অবশেষে অটোতে করে স্বামীকে হাসপাতাল নেবার পথে অটোতেই দম বন্ধ হয়ে আসে।

অক্সিজেনের অভাব। কিন্তু কোনো উপায় খুঁজে পাচ্ছিলেন অসহায় রেণু। অবশেষে স্বামীর মুখে নিজের মুখ লাগিয়ে শ্বাস দেওয়ার চেষ্টা করছিলেন।

একটি হাসপাতালের বাইরে অটোতেই স্ত্রীর কোলে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন স্বামী

কিন্তু স্বামীকে বাঁচাতে পারলেন না। অক্সিজেনের অভাবে দম বন্ধ হয়ে মারা গিয়েছেন। হাসপাতালের বাইরে অটোর ভেতরে স্ত্রীর কোলেই ঢলে পড়ে চিরবিদায় পথে চলে যান স্বামী।

একদিনে আক্রান্ত ৩ লাখ ৫৪ হাজার, মৃত্যু ২৮০৬

গত ২৪ ঘণ্টায় করোনা আক্রান্ত হয়েছে ৩ লাখ ৫৪ হাজার ৫৩১ জন এবং মারা গেছেন ২ হাজার ৮০৬ জন। ২৪ এপ্রিল করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ৩ লাখ ৪৯ হাজার ৩১৩ জন এবং মারা গেছেন ২ হাজার ৭৬১ জন। ভারতে এখনও পর্যন্ত করোনা শনাক্তর সংখ্যা ১ কোটি ৭৩ লাখ ৬ হাজার ৩০০ জন এবং মারা গেছেন ১ লাখ ৯৫ হাজার ১১৬ জন।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published.

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

আপলোডকারীর তথ্য
ট্যাগস :

এই কান্নার শেষ কোথায় ?

আপডেট সময় : ০৫:২৮:১৮ অপরাহ্ন, সোমবার, ২৬ এপ্রিল ২০২১

ঋদ্ধিমান

চীনের উহান প্রদেশ থেকে ২০১৯ সালের শেষ প্রান্তে অবির্ভাব হওয়া করোনা ভাইরাসটি গোটা দুনিয়া কাঁপিয়ে চলেছে। ২০২০ সালের গোড়ার দিকে অর্থাৎ মার্চ মাসে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (হু) এর সংস্কার করে। তারপর থেকে কভিড-১৯ নামে বিধ্বংসী হয়ে ওঠে। গত বছর কমসংখ্যক প্রাণ বদের খবর মেলে এশিয়ায়। কিন্তু ২১-এ নানা স্থানে নানা নামের পরিচিত হতে থাকে বিজ্ঞানিদের কাছে। পৃথিবীর তামাম শক্তি অচেনা-অজানা ভাইরাসটি কাছে পরাজিত।

এবারে ভারতে ছড়িয়ে পড়া নতুন ভ্যারিয়েন্ট অর্থাৎ বিজ্ঞানিরা যার নাম দিয়েছেন, ‘বেঙ্গল ভ্যারিয়েন্ট’। এটি মূলত পশ্চিমবঙ্গে ব্যাপক আকার ধারণ করেছে। আর গোটা বিশ্ব ভারতের দিকে তাকিয়ে রয়েছে কাতর দৃষ্টিতে। সৎকারের বিষয়টি পৌছে গিয়েছে গণচিতায়। চারিদিকে হাহাকার! মানব-জীবনের এমনি পতনতো কাম্য হতে পারে না।

বৈশ্বিক দুঃসময়ে বিশ্ব যেন হতবাক! মানুষের কি অন্যায় বলতে পারেন। এতটা বিস্ময়কর পরিস্থিতির জন্ম দিতে পারে-একটি ভাইরাস। যে নাকী আপনজনের স্পর্শ থেকেও বঞ্চিত করে গর্বধারীনি-ঔরষজাতের শেষকৃত্য থেকে!

শ্বাস দিয়েও স্বামীকে বাঁচানো গেলো না!

স্মরণকালের অক্সিজেন সংকটে পড়েছে ভারত। অক্সিজেনের অভাবে হাসপাতাল পৌছানোর আগেই মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়ছে মানুষ। মানবজীবনের যে এতোটুকু মূল্যহীন হয়ে পড়েছে।

উত্তরপ্রদেশের আগ্রার আওয়াজ এলাকার বাসিন্দা রেনু সিংহলের স্বামীর নাম রবি সিংহল (৪৭)। যাকে বাঁচাতে তিনি সরোজিনী নাইডু মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যাচ্ছিলেন কভিড আক্রান্ত স্বামীকে। অ্যাম্বুলেন্স নেই। অবশেষে অটোতে করে স্বামীকে হাসপাতাল নেবার পথে অটোতেই দম বন্ধ হয়ে আসে।

অক্সিজেনের অভাব। কিন্তু কোনো উপায় খুঁজে পাচ্ছিলেন অসহায় রেণু। অবশেষে স্বামীর মুখে নিজের মুখ লাগিয়ে শ্বাস দেওয়ার চেষ্টা করছিলেন।

একটি হাসপাতালের বাইরে অটোতেই স্ত্রীর কোলে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন স্বামী

কিন্তু স্বামীকে বাঁচাতে পারলেন না। অক্সিজেনের অভাবে দম বন্ধ হয়ে মারা গিয়েছেন। হাসপাতালের বাইরে অটোর ভেতরে স্ত্রীর কোলেই ঢলে পড়ে চিরবিদায় পথে চলে যান স্বামী।

একদিনে আক্রান্ত ৩ লাখ ৫৪ হাজার, মৃত্যু ২৮০৬

গত ২৪ ঘণ্টায় করোনা আক্রান্ত হয়েছে ৩ লাখ ৫৪ হাজার ৫৩১ জন এবং মারা গেছেন ২ হাজার ৮০৬ জন। ২৪ এপ্রিল করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ৩ লাখ ৪৯ হাজার ৩১৩ জন এবং মারা গেছেন ২ হাজার ৭৬১ জন। ভারতে এখনও পর্যন্ত করোনা শনাক্তর সংখ্যা ১ কোটি ৭৩ লাখ ৬ হাজার ৩০০ জন এবং মারা গেছেন ১ লাখ ৯৫ হাজার ১১৬ জন।