ঢাকা ০৪:২৩ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৩ জুন ২০২৪, ২৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

উত্তর প্রদেশে প্রকাশ্যে গুলি করে দুই ভাকে খুন

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০৯:২৪:৪৬ অপরাহ্ন, রবিবার, ১৬ এপ্রিল ২০২৩ ৮৭ বার পড়া হয়েছে

ছবি সংগ্রহ

ভয়েস একাত্তর অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

অনলাইন ডেস্ক

ভারতে রাজ্যসভার সাবেক এক সদস্য এবং তার ভাইকে গুলি করে হত্যা করা হয়েছে। অপহরণের একটি মামলায় তিনি সাজাপ্রাপ্ত ছিলেন। আতিক-আশরফের মাথায় গুলি চালানোর পরেও ডজনেরও বেশি রাউন্ড গুলি চালান আততায়ীরা। আর গোটা ‘অপারেশন’টি শেষ হয় মাত্র ২২ সেকেন্ডে।

পুলিশ সূত্রে খবর, এই ঘটনার আগে হাসপাতালে রেকি করে গিয়েছিলেন অভিযুক্তরা। দু’দিন ধরে উত্তরপ্রদেশের প্রয়াগরাজের একটি হোটেলেও ছিলেন। সুযোগের অপেক্ষায় ছিলেন।

এফআইআরে বলা হয়েছে, যে সময়ে সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলছিলেন আতিক, সেই সময় শুটারদের মধ্যে এক জন তার হাতে ধরা বুম এবং ক্যামেরা ফেলে দেন। তার পরই পিস্তল বার করে পর পর গুলি চালান। এই হামলায় এক কনস্টেবল আহত হয়েছেন।

অভিযুক্তদের মধ্যেও আহত হয়েছেন এক জন। তার পরই অভিযুক্তরা হাত থেকে পিস্তল ফেলে দেন। আত্মসমর্পণ করেন। এই ঘটনায় কয়েক জন সাংবাদিকও সামান্য আহত পেয়েছেন বলে জানায় পুলিশ।

হত্যা ও হামলার একটি মামলায় বৃহস্পতিবার গ্রেপ্তারের পর আতিক আহমেদ নামে সাবেক বিধায়ককে শনিবার রাতে শারীরিক পরীক্ষার জন্য নিয়ে যাচ্ছিল পুলিশ। রাত সাড়ে ১০টার নাগাদ মেডিকেল কলেজের কাছে দাঁড়িয়ে তিনি সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলছিলেন।

এ সময় খুব কাছ থেকে পিস্তল বের করে তার মাথায় গুলি করা হয়। সেই সময় পাশে দাঁড়ানো তার ভাই আশরাফকেও গুলি করে হত্যা করা হয়। যারা গুলি করেছিলেন, তারা সাংবাদিক সেজে দাঁড়িয়ে ছিলেন।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published.

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

আপলোডকারীর তথ্য

উত্তর প্রদেশে প্রকাশ্যে গুলি করে দুই ভাকে খুন

আপডেট সময় : ০৯:২৪:৪৬ অপরাহ্ন, রবিবার, ১৬ এপ্রিল ২০২৩

অনলাইন ডেস্ক

ভারতে রাজ্যসভার সাবেক এক সদস্য এবং তার ভাইকে গুলি করে হত্যা করা হয়েছে। অপহরণের একটি মামলায় তিনি সাজাপ্রাপ্ত ছিলেন। আতিক-আশরফের মাথায় গুলি চালানোর পরেও ডজনেরও বেশি রাউন্ড গুলি চালান আততায়ীরা। আর গোটা ‘অপারেশন’টি শেষ হয় মাত্র ২২ সেকেন্ডে।

পুলিশ সূত্রে খবর, এই ঘটনার আগে হাসপাতালে রেকি করে গিয়েছিলেন অভিযুক্তরা। দু’দিন ধরে উত্তরপ্রদেশের প্রয়াগরাজের একটি হোটেলেও ছিলেন। সুযোগের অপেক্ষায় ছিলেন।

এফআইআরে বলা হয়েছে, যে সময়ে সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলছিলেন আতিক, সেই সময় শুটারদের মধ্যে এক জন তার হাতে ধরা বুম এবং ক্যামেরা ফেলে দেন। তার পরই পিস্তল বার করে পর পর গুলি চালান। এই হামলায় এক কনস্টেবল আহত হয়েছেন।

অভিযুক্তদের মধ্যেও আহত হয়েছেন এক জন। তার পরই অভিযুক্তরা হাত থেকে পিস্তল ফেলে দেন। আত্মসমর্পণ করেন। এই ঘটনায় কয়েক জন সাংবাদিকও সামান্য আহত পেয়েছেন বলে জানায় পুলিশ।

হত্যা ও হামলার একটি মামলায় বৃহস্পতিবার গ্রেপ্তারের পর আতিক আহমেদ নামে সাবেক বিধায়ককে শনিবার রাতে শারীরিক পরীক্ষার জন্য নিয়ে যাচ্ছিল পুলিশ। রাত সাড়ে ১০টার নাগাদ মেডিকেল কলেজের কাছে দাঁড়িয়ে তিনি সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলছিলেন।

এ সময় খুব কাছ থেকে পিস্তল বের করে তার মাথায় গুলি করা হয়। সেই সময় পাশে দাঁড়ানো তার ভাই আশরাফকেও গুলি করে হত্যা করা হয়। যারা গুলি করেছিলেন, তারা সাংবাদিক সেজে দাঁড়িয়ে ছিলেন।