ঢাকা ০৪:১৭ অপরাহ্ন, রবিবার, ১৪ এপ্রিল ২০২৪, ১ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

আসন্ন ঈদের আগে পরে ৬দিন পণ্যবাহী ট্রাক-কাভার্ডভ্যান পারাপার বন্ধ থাকবে : নৌ-প্রতিমন্ত্রী

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০৬:১৬:৩৮ অপরাহ্ন, বুধবার, ৩১ মার্চ ২০২১ ১৮৫ বার পড়া হয়েছে
ভয়েস একাত্তর অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

ভয়েস রিপোর্ট, ঢাকা

আসন্ন রমজানের ঈদের আগে-পরে ৬দিন প্রয়োজনীয় ও দ্রুত পচনশীল পণ্যবাহী ট্রাক ব্যতীত সাধারণ পণ্যবাহী ট্রাক ও কাভার্ড ভ্যান ফেরীতে পারাপার বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। বুধবার নৌপরিবহন মন্ত্রকের সভাকক্ষে আসন্ন ঈদুল ফিতর উপলক্ষ্যে জরুরী বৈঠকে নেওয়া সিদ্ধান্তে আরও বলা হয়েছে, করোনাভাইরাস জনিত রোগবিস্তার রোধে স্বাস্থ্য বিভাগের প্রণীত গাইডলাইন/স্বাস্থ্যবিধি যথাযথভাবে অনুসরণ করে সদরঘাট নদীবন্দরসহ অন্যান্য নৌবন্দরে যাত্রীসহ নৌযান পরিচালনার বিষয়টি নিশ্চিত করতে নির্দেশ দিয়েছেন নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী।

তিনি বলেন, লঞ্চের অনুমোদিত ভাড়ার চেয়ে বেশি ভাড়া আদায়ে এবং নদীর মাঝপথে নৌকাযোগে যাত্রী উঠানো হলে দায়ি লঞ্চ মালিক ও চালকের বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে ।

করোনার সময়ে জরুরি প্রয়োজন ছাড়া কোথাও আসা-যাওয়া থেকে বিরত থাকতে সকলের প্রতি অনুরোধ জানিয়েছেন নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী। তিনি বলেন, এবারে করোনার দ্বিতীয় ঢেউ একটু বেশি। স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে হবে। করোনার সময়ে জরুরি প্রয়োজন না হলে স্থানান্তর না হতে পরামর্শ নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রীর।

বৈঠকে লঞ্চ, ফেরি ও স্টীমারসহ জলযান সুষ্ঠুভাবে চলাচল ও যাত্রীদের নিরাপত্তা নিশ্চিতকরণ সংক্রান্ত বৈঠকে এই আহ্বান জানান খালিদ মাহমুদ চৌধুরী। তিনি বলেন, আমাদের প্রত্যেককে সরকার নির্দেশিত স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে হবে। এর ব্যত্যয় ঘটলে আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা নেয়া হবে। যাত্রী পরিবহনের ক্ষেত্রে স্বাস্থ্যবিধি যথাযথভাবে অনুসরণ করতে হবে। গণপরিবহনে ৫০ ভাগ যাত্রী পরিবহনের সরকারি নির্দেশনা রয়েছে। করোনার সময়ের জন্য লঞ্চের ভাড়া পুননির্ধারণ করা হবে।

খালিদ মাহমুদ চৌধুরী বলেন, আমাদের সীমাবদ্ধতা রয়েছে, কিন্তু আন্তরিকতা ও চেষ্টার কোন কমতি নেই। মানুষের কর্মচাঞ্চল্য বেড়েছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার পরিকল্পনা অনুযায়ী পরিবহন সেক্টরে মানুষের সেবার ক্ষেত্রে বড় ধরনের পরিবর্তন আসছে। নতুন নতুন বাস, ট্রেন ও লঞ্চ যুক্ত হচ্ছে। ভবিষ্যতে আরও বাড়বে।

বৈঠকে নৌপরিবহন মন্ত্রণালয়ের সচিব মোহাম্মদ মেজবাহ উদ্দিন চৌধুরী, নৌপরিবহন অধিদফতরের মহাপরিচালক কমডোর আবু জাফর মো. জালাল উদ্দিন, বিআইডব্লিউটিএ’র চেয়ারম্যান কমডোর গোলাম সাদেক উপস্থিত ছিলেন।

 

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published.

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

আপলোডকারীর তথ্য
ট্যাগস :

আসন্ন ঈদের আগে পরে ৬দিন পণ্যবাহী ট্রাক-কাভার্ডভ্যান পারাপার বন্ধ থাকবে : নৌ-প্রতিমন্ত্রী

আপডেট সময় : ০৬:১৬:৩৮ অপরাহ্ন, বুধবার, ৩১ মার্চ ২০২১

ভয়েস রিপোর্ট, ঢাকা

আসন্ন রমজানের ঈদের আগে-পরে ৬দিন প্রয়োজনীয় ও দ্রুত পচনশীল পণ্যবাহী ট্রাক ব্যতীত সাধারণ পণ্যবাহী ট্রাক ও কাভার্ড ভ্যান ফেরীতে পারাপার বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। বুধবার নৌপরিবহন মন্ত্রকের সভাকক্ষে আসন্ন ঈদুল ফিতর উপলক্ষ্যে জরুরী বৈঠকে নেওয়া সিদ্ধান্তে আরও বলা হয়েছে, করোনাভাইরাস জনিত রোগবিস্তার রোধে স্বাস্থ্য বিভাগের প্রণীত গাইডলাইন/স্বাস্থ্যবিধি যথাযথভাবে অনুসরণ করে সদরঘাট নদীবন্দরসহ অন্যান্য নৌবন্দরে যাত্রীসহ নৌযান পরিচালনার বিষয়টি নিশ্চিত করতে নির্দেশ দিয়েছেন নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী।

তিনি বলেন, লঞ্চের অনুমোদিত ভাড়ার চেয়ে বেশি ভাড়া আদায়ে এবং নদীর মাঝপথে নৌকাযোগে যাত্রী উঠানো হলে দায়ি লঞ্চ মালিক ও চালকের বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে ।

করোনার সময়ে জরুরি প্রয়োজন ছাড়া কোথাও আসা-যাওয়া থেকে বিরত থাকতে সকলের প্রতি অনুরোধ জানিয়েছেন নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী। তিনি বলেন, এবারে করোনার দ্বিতীয় ঢেউ একটু বেশি। স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে হবে। করোনার সময়ে জরুরি প্রয়োজন না হলে স্থানান্তর না হতে পরামর্শ নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রীর।

বৈঠকে লঞ্চ, ফেরি ও স্টীমারসহ জলযান সুষ্ঠুভাবে চলাচল ও যাত্রীদের নিরাপত্তা নিশ্চিতকরণ সংক্রান্ত বৈঠকে এই আহ্বান জানান খালিদ মাহমুদ চৌধুরী। তিনি বলেন, আমাদের প্রত্যেককে সরকার নির্দেশিত স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে হবে। এর ব্যত্যয় ঘটলে আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা নেয়া হবে। যাত্রী পরিবহনের ক্ষেত্রে স্বাস্থ্যবিধি যথাযথভাবে অনুসরণ করতে হবে। গণপরিবহনে ৫০ ভাগ যাত্রী পরিবহনের সরকারি নির্দেশনা রয়েছে। করোনার সময়ের জন্য লঞ্চের ভাড়া পুননির্ধারণ করা হবে।

খালিদ মাহমুদ চৌধুরী বলেন, আমাদের সীমাবদ্ধতা রয়েছে, কিন্তু আন্তরিকতা ও চেষ্টার কোন কমতি নেই। মানুষের কর্মচাঞ্চল্য বেড়েছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার পরিকল্পনা অনুযায়ী পরিবহন সেক্টরে মানুষের সেবার ক্ষেত্রে বড় ধরনের পরিবর্তন আসছে। নতুন নতুন বাস, ট্রেন ও লঞ্চ যুক্ত হচ্ছে। ভবিষ্যতে আরও বাড়বে।

বৈঠকে নৌপরিবহন মন্ত্রণালয়ের সচিব মোহাম্মদ মেজবাহ উদ্দিন চৌধুরী, নৌপরিবহন অধিদফতরের মহাপরিচালক কমডোর আবু জাফর মো. জালাল উদ্দিন, বিআইডব্লিউটিএ’র চেয়ারম্যান কমডোর গোলাম সাদেক উপস্থিত ছিলেন।