November 26, 2020, 6:34 am

সিভিএফ দূত সায়মা ওয়াজেদ পুতুলকে অভিনন্দন পরিবেশ মন্ত্রীর

Reporter Name
  • Update Time : Wednesday, July 22, 2020,
  • 101 Time View

ভয়েস ডিজিটাল ডেস্ক : অটিজম নিয়ে আত্মবিদেীত সায়মা ওয়াজেদ হোসেন পুতুল। দীর্ঘ দিন অটিজম নিয়ে কাজ করে দুনিয়াজোড়া ব্যাপক পরিচিতি লাভ করেছেন। মানব সেবাই ধর্ম, কর্মই জীবন এটাই তার ব্যক্তিগত শ্লোগান। এই শ্লেগানকে ধারণ করে তিনি সমাজের পিছিয়ে পড়া জণগোষ্ঠীর সেবায় নিজেকে নিয়োজিত করেছেন। এ কারণে তিনি আমাদের সমাজের শুভবোধের সারথি। সায়মা ওয়াজেদ হোসেন পুতুল বর্তমানে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার মানসিক স্বাস্থ্যের ওপর বিশেষজ্ঞ প্যানেলের একজন সদস্য এবং বাংলাদেশের অটিজম বিষয়ক জাতীয় কমিটির চেয়ারপারসন হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। বাংলাদেশে অটিজম বিষয়ক বিভিন্ন নীতি নির্ধারণে উল্লেখযোগ্য সাফল্য লাভের পর দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ায় বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার পক্ষ থেকে অটিজম বিষয়ক শুভেচ্ছা দূত হিসেবে সায়মা ওয়াজেদ কাজ করে চলেছেন। ধারাবাহিক কর্মজীবনের সাফল্যের মধ্য দিয়ে বিভিন্ন দায়িত্ব পালন করতে হচ্ছে তাকে। এবারে তিনি
ক্লাইমেট ভালনারেবল ফোরামের (সিভিএফ) দূত মনোনীত হয়েছেন। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের দৌহিত্রী ও প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার কন্যা সায়মা ওয়াজেদ হোসেন পুতুল সিভিএফ দূত মনোনিত হওয়ায় অভিনন্দন জানিয়েছেন বাংলাদেশের পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রী মো. শাহাব উদ্দিন। বুধবার এক অভিনন্দন বার্তায় মন্ত্রী বলেন, ক্লাইমেট ভালনারেবল ফোরাম (সিভিএফ) এর দূত হিসেবে সায়মা ওয়াজেদ হোসেন জলবায়ু ক্ষতিগ্রস্থ দেশগুলোর পক্ষে বিশ্বব্যাপী সচেতনতা বৃদ্ধির জন্য বিভিন্ন স্টেকহোল্ডার, গোষ্ঠীকে একত্রিত করতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবেন। সিভিএফ এর এজেন্ডা এবং মূল অগ্রাধিকারগুলি অনুসরণ করতে এবং জলবায়ু ঝুঁকিপূর্ণ দেশগুলির স্বার্থ রক্ষায় অবদান রাখবেন। তিনি প্রত্যাশা করেন, সদস্য দেশসমূহের মধ্যে বৈশ্বিক উষ্ণায়ন রোধ এবং অভিযোজন কার্যক্রম জোরদার করতে সফল হবেন।
সিভিএফ এর সভাপতি হিসেবে বাংলাদেশের দুই বছরের নির্বাচিত সময়ে দূত হিসেবে তিনি সদস্য দেশসমূহের মধ্যে মতৈক্য সৃষ্টিতে সাফল্যের সাথে কাজ করবেন প্রত্যাশা পরিবেশ মন্ত্রীর। সম্প্রতি জলবায়ু পরিবর্তনের কারণে ঝুঁকিতে থাকা ৪৮টি দেশের বৈশ্বিক প্ল্যাটফর্ম ক্লাইমেট ভালনারেবল ফোরামের প্রেসিডেন্ট পদ পায় বাংলাদেশ। আগামী দুই বছর বাংলাদেশ এই দায়িত্ব পালন করবে এবং জলবায়ু পরিবর্তনের কারণে যেসব দেশ সবচেয়ে বেশি ক্ষতির সম্মুখিন তাদের হয়ে কথা বলায় নেতৃত্ব প্রদান করবে বাংলাদেশ। সায়মা ওয়াজেদ হোসেন পুতুল ছাড়াও ক্লাইমেট ভালনারেবল ফোরামের (সিভিএফ) ছাড়াও মালদ্বীপের সাবেক প্রেসিডেন্ট নাশিদ কামাল, ফিলিপাইনের ডেপুটি স্পিকার লরেন লেগ্রেডা ও কঙ্গোর জলবায়ু বিশেষজ্ঞ তোসি মাপ্নু বিষয়ভিত্তিক দূত হিসেবে মনোনীত হয়েছেন।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category
© All rights reserved © 2017 voiceekattor
কারিগরি সহযোগিতায়: সোহাগ রানা
112233
Translate »